কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগরে শ্রেণি কক্ষে ধান গুদামজাত: বের করে নিতে বলায় শিক্ষককে মারপিট!


প্রকাশিত : আগস্ট ২৪, ২০১৭ ||

কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ৬৮নং কালিকাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আলতাফ হোসেন বিদ্যালয়ের ভিতর ধান রাখাকে কেন্দ্র করে গুরুতর আহত হয়ে কালিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে চিকিৎসাধীন আছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় মৃত হাজির শেখের ছেলে গনি শেখ (৫৫) ও তার ছেলে আনোয়ারুল (৩০) তাদের জমির ধান মাড়াই করে বস্তা ভর্তি করে বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণি কক্ষে গুদামজাত করে রাখে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আলতাফ হোসেন ক্লাস রুম থেকে ধান বের করে নিতে বললে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে গনি শেখ ও তার ছেলে আনোয়ারুল উক্ত শিক্ষকের উপর চড়াও হয়ে এলোপাতাড়িভাবে মারপিট করে আহত করে। পরে প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য শিক্ষক ও স্থানীয় জনতা এসে গনি শেখ ও আনোয়ারুলের কবল থেকে শিক্ষক আলতাফ হোসেনকে উদ্ধার করে কালিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে¬ক্সে ভর্তি করে। এব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মাহমুদ মোস্তফার নিকট কাছে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি অফিসিয়াল কাজে বাইরে ছিলাম। আমার অনুপস্থিতিতে শিক্ষককে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষ এবং ইউপি চেয়ারম্যানকে জানানো হয়েছে। শিশু শ্রেণিতে ধান রাখার অনুমতি দেয়া বৈধ কিনা জানতে চাইলে তিনি উত্তর না দিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। অপরদিকে উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সোহারাব হোসেনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, বিষয়টি মৌখিকভাবে জানতে পেরেছি। আমরা বিষয়টিতে ক্ষুব্ধ ও শিক্ষকদের নিরাপত্তা নিয়ে শংকিত। লিখিত অভিযোগ পেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে আলোচনা সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেব। এব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন শিক্ষক আলতাফ হোসেন।