পাইকগাছায় শিব্সা সাহিত্য অঙ্গনের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত

পাইকগাছায় শিব্সা সাহিত্য অঙ্গনের নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের প্রথম সভা শুক্রবার বিকালে উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি সুরাইয়া বানু ডলির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপদেষ্টা শাহীনা বাবর, সহ-সভাপতি সরদার মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন, অনিতা রানী মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক লুৎফা ইসলাম, যুগ্ম-সম্পাদক বজলুর রহমান, সহ-সম্পাদক মমতাজ পারভীন মিনু, কোষাধ্যক্ষ নাজমিন নাহার, সহ-কোষাধ্যক্ষ লিলিমা খাতুন, সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা পারভীন শিল্পী, দপ্তর সম্পাদক বিকাশেন্দু সরকার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ আব্দুল আজিজ, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এ্যাডঃ শফিকুল ইসলাম কচি, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ সেলিনা আক্তার, গাজী শহিদুল ইসলাম খোকন, হোসনেয়ারা খানম, জিন্নাতুন্নেছা পান্না, উন্মেহায়াত মেহেরা বানু, তরুণ কান্তি মন্ডল, সোমা রায়, সাধনা সরকার ও আলফাতারা কাজল।

 

পাইকগাছায় গৃহবধুর জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নেওয়ার অভিযোগ

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছায় প্রভাবশালী প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে খুলনায় বসবাসরত এক গৃহবধুর পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়েছে। প্রাপ্ত অভিযোগে জানাগেছে, খুলনার সোনাডাঙ্গা থানার বানরগাতি এলাকার গোলাম মোস্তফা পাটোয়ারির স্ত্রী তহমিনা সুলতানা মিনার পাইকগাছা উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের হাছিমপুর মৌজার পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে হাছিমপুর গ্রামের মৃত কালাম খানের ছেলে সালাম খান ও মৃত কবির খানের ছেলে রাজ্জাক খানের হুকুমে তাদের লোকজন গত ১৭ আগস্ট সকাল ১০টার দিকে জোরপূর্বক মাটি কাটতে থাকে। এ সময় গৃহবধু তহমিনা তাদেরকে মাটি কাটতে নিষেধ করলে সালাম ও রাজ্জাক গৃহবধুকে মারপিট করতে উদ্যত্ত হয় এবং বিভিন্ন ধরণের হুমকি দেয়। এ ঘটনায় গৃহবধু তহমিনা বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ সালাম ও কবির সহ ১০ জনকে বিবাদী করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

উন্নয়ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

আজ সন্ধা ৭.০০ ঘটিকায় বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির নিজস্ব কার্যালয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শেখ মোশাররফ হোসেন এবং সভা পরিচালনা করেন মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান। বর্তমানে খুলনা বিভাগীয় সদরের সাথে শহর ও তদসংযুক্ত উপজেলা গুলোর সড়ক ও যোগাযোগের ব্যবস্থার বেহাল দশা, চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। আসন্ন ঈদু-উল-আযহায় জনগণের চরম দূর্ভোগের কথা মাথায় রেখে অতিদ্রুত এ ব্যপারে আশু ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়ে সভায় আরো বলা হয় বর্তমানে খুলনার ক্রীড়াঙ্গনের অবস্থা খুবই খারাপ, খুলনায় কোন খেলা-ধুলা না থাকায় স্টেডিয়ামগুলো মুখথুবড়ে পড়ে আছে। খুলনা বিমান বন্দরের কাজ মুখ থুবড়ে পড়ে আছে। খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়নের কোন অগ্রগতি নেই, নগরীর শিব বাড়ী মোড়ে জিয়া হল (পাবলিক হল) দীর্ঘদিন ধরে পরিত্যাক্ত হয়ে পড়ে আছে, যার ফলে বর্তমানে সভা সমাবেশ করার জন্য খুলনায় কোন অডিটরিয়াম নেই। খুলনায় অডিটরিয়াম-বিমান বন্দর-কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন উন্নয়নের দাবীতে আসন্ন ঈদুল আযহার পরে সংবাদ সম্মেলন করার মাধ্যমে কিছু কর্মসূচী গ্রহনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোঃ আবুল বাশার, মামনুরা জাকির খুকুমনি, যুগ্ম-মহাসচিব মিনা আজিজুর রহমান, আফজাল হোসেন রাজুসহ মিজানুর রহমান জিয়া, এ্যাড. মনিরুল ইসলাম পান্না, রকিব উদ্দিন ফারাজী, বিশ্বাস জাফর আহম্মেদ, শিকদার আব্দুল খালেক, জয়নাল আবেদীন বাবলু, নুরুজ্জামান খান বাচ্চু, এ্যাড. এ বি এম মোস্তফা জামান, মো: ইসমাইল হোসেন, এস এম রবিউল ইসলাম, মো: ফেরদউস হোসেন লাবু, মো: ইদ্রিস আলী খান বাচ্চু প্রমূখ।

মর্মান্তিক দূর্ঘটনায় হাফেজ মমিনুরের কুরুন মৃত

বুড়িগোয়ালিনী(শ্যামনগর) প্রতিনিধি। শ্যমনগর বুড়িগোয়ালিনী দাতিনা খালীর ফজলু মোড়লের ছেলে হাফেজ মমিনুর রহমান(২২) ফরিদ নাইন স্টোর কাঁকড়া প্রজেক্টের কাঁকড়া বহন গাড়ীর হেলফার গাছের বাড়ী লেগে পাকা দেওয়াল ও প্রজেক্টের গাড়ীর ফাকে পড়ে চাপা পড়ে , সনিবার বিকাল ৫টার সময়, সাথে সাথে পাশে অবস্থারত নিহতের চাচাত ভাই গাড়ী হতে পড়ে জাওয়ার পর পর তাড়া তাড়ি হাসপাতালে নিয়ে জাওয়ার পথে মারা যায় বলে জানান এলাকা বাসী এলকাবাসী আরো বলেন, কাঁকড়া প্রজেক্ট থেকে মাল পরিবহন করে নিয়ে আসার সময় বুড়িগোয়ালিনী দাতিনা খালী চেয়ারম্যান মোড় নামক স্থানে আসার পর গাছের ডালের বাড়ী লেগে পড়ে গেলে পাসে পাকা দেয়াল ও নিজেদের গাড়ীর চাপা পড়ে।

ফিংড়ী বাজার কমিটি গঠন সভাপতি লুৎফর,সম্পাদক ডাঃ গোবিন্দ

গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৯ টার সময় ফিংড়ী বাজার
কমিটি গঠন করা হয়েছে যার সভাপতি লুৎফর এবং সম্পাদক ডাঃ গোবিন্দ,সাতক্ষীরা
সদর উপজেলার ফিংড়ী বাজার কমিটি নিয়ে চলছিল জল্পনা আর কল্পনা,কিন্ত্ত
সবকিছু অবসান করে,দির্ঘদিন পর লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা
অনষ্ঠিত হয়,সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ফিংড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীদের
সাধারন সম্পাদক,ফিংড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সামছুর রহমান,বিশেষ
অতিথি বক্তব্য রাখেন রবিউল ইসলাম,প্রধান অতিথি চেয়ারম্যান সামছুর রহমান
বলেন সকল হিংসা ভুলে যেয়ে মিলেমিশে ফিংড়ী বাজার উন্নয়নে এক সাথে কাজ করতে
হবে,এমন বক্তব্যের পর সকল ব্যাবসায়িরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে সর্ব সম্মতি ক্রমে
ফিংড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি,বিশিষ্ট সমাজসেবক মোঃ লুৎফর রহমানকে
সভাপতি,রবিউল ইসলামকে সহ সভাপতি,পল্লী চিকিৎসক ডাঃ গোবিন্দ দাশকে সাধারন
সম্পাদক,এবং কমলেশ সরদারকে কোষাধ্যক্ষ করে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট ফিংড়ী বাজার
কমিটি গঠন করা হয়েছে,এই কমিটি দায়িত্ব নিয়ে ফিংড়ী বাজারকে একটি মডেল
বাজার হিসাবে গড়ে তুলবে এমন প্রত্যাসা সকল ব্যাবসায়িদের

নগরঘাটায় পরিবেশ দূষণের মারাত্মক ক্ষতির প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত

সাতক্ষীরার নগরঘাটায় অবস্থিত রাকিব অটোরাইচ মিলের কালোধুয়া ছাই ও নির্গত বর্জপদার্থের ফলে কৃষি জমি ও পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতির প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় রাকিব অটোরাইচ মিল সংলঙ্গ বঙ্গবন্ধু পেশা ভিত্তিক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে ঘন্টা ব্যাপি মানববন্ধন পালিত হয়। উক্ত মানববন্ধনে অংশ নেয় বঙ্গবন্ধু পেশা ভিত্তিক স্কুল ও কাপাশডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা ছাড়াও আসাননগর, কাপাশডাঙ্গা, নগরঘাটা, শ্যামনগর, মিঠাবাড়ি, ভৈরবনগর এলাকার কৃষক, শ্রমিক, ভ্যানচালক, রিক্সাচালক, পথচারি, মহিলা, যুবক সহ সকল এলাকাবাসি। মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে অবিলম্বে আবাসিক এলাকায় অবস্থিত রাকিব অটো রাইসমিল বন্ধের দাবি জানান হয়।
এলাকাবাসির আয়োজনে ইউপি সদস্য লক্ষ্মী কান্ত সরকারের সভাপতিত্বে বক্তাব্য রাখেন, জেলা ওয়ার্কাস পার্টি নেতা ফাহিমুল হক কিসলু, নগরঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান লিপু, বঙ্গবন্ধু পেশাভিত্তিক স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা লায়লা পারভীন সেঁজুতি, সাতক্ষীরা কলেজের শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পেশাভিত্তিক স্কুলের শিক্ষক বাবু রামকৃষ্ণ মন্ডল প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, সোহেল আহম্মেদ মানিক

ইউপি সদস্য লক্ষ্মী কান্ত সরকার বলেন, আমি উপজেলা নিবাহি অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান, থানা, সবজায়গাতে গিয়েছি । সবাই ব্যাবস্থা নেবেন বলে আমাকে আস্বস্থ করেছেন কিন্তু কোন ফলাফল আজও দেখা যায়নি। বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা যাচ্ছে এলাকাবাসীর মধ্যে। যদি এভাবে চলতে থাকে তাহলে নিকটতম ভবিষ্যতে এই এলাকার মানুষের অন্ধত্ব দেখা দেবে।
প্রধান শিক্ষিকা লায়লা পারভীন সেঁজুতি বলেন, আমরা দীর্ঘ বছর এই ছাইয়ের যন্ত্রনার শিকার, উড়ে আসা ছাইয়ের কারনে পাশ^বর্তী বঙ্গবন্ধু পেশা ভিত্তিক স্কুল ও কাপাশডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারছে না। ছাই বাতাসে মিশে কোমলমতি শিক্ষর্থীরা ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে, শ^াস প্রশ্বাসের সাথে ছাই প্রবেশ করে শ্বাস কষ্ঠে ভুগছে, দৃষ্টিশক্তি ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যালয়ে আসবাবপত্রে ছাই জমে ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। মিলের মালিক পক্ষ প্রশাসনকে ম্যানেজ করে মিল চালচ্ছে। পুলিশ প্রশাসনকে বুঝানো হয়েছে এলাকার কিছু লোক মিল বন্ধ করে ফায়দা লুটতে চায়। কিন্তু তারা জনগনের কষ্ট বুঝবে কিভাবে? তারাতো চলে এয়ারকন্ডিশন গাড়িতে। আজকের শিশু আগামি দিনের ভবিষ্যৎ, তারা আজ পথে দাড়িয়েছে। আজকের পরেও যদি এই মিলে চলে তাহলে জনগনকে ১টি করে ইট মেরে মিলটি উড়িয়ে দেয়ার আহব্বান করেন তিনি।
এছাড়া বক্তরা বলেন, রাকিব অটো রাইস মিলের বর্জ পাশের খালের পানিতে মিশে বেতনা ও কপোতাক্ষ নদের পানিতে মিশে মারা যাচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাছ। এই বর্জ মিশ্রিত পানি আশাপাশের মৎস্য ঘের ও পুকুরে মিশে দুর্ষিত হচ্ছে পানি ফলে মারা যাচ্ছে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষাকারি জীব। গ্রামবাসীর বিভিন্ন প্রকারের খাদ্য দ্রব্যর সাথে ছাই মিশে বিষক্রিয়ার সৃষ্টি হচ্ছে যা মানুষ এবং গৃহপালিত পশুর জীবন যাত্রার জন্য ঝুকিপূর্ন। এলাকাবাসির দৈনন্দিন প্রয়জনীয় জিনিসপত্রে ছাই জমে যাচ্ছে। কৃষকদের উৎপাদিত ফসলের উপর ব্যাপক ক্ষতি সাধন হচ্ছে। বিদ্যালয়ে শিক্ষাদানে বিরূপ প্রভাব পড়ছে। এছাড়া নির্গত কালো ধোয়া বাতাসকে দুর্গন্ধ করে ফেলছে। সর্বোপরি এলাকার স্বাভাবিক জীবরযাত্রায় বাধা সৃষ্টি হচ্ছে।
উক্ত রাইচমিলের সমস্ত বর্জ্য পদার্থ মহাসড়ক ছিদ্র করে দক্ষিন পাশের্^ স্ব-নির্ভর খালে ফেলানো হচ্ছে। এই বর্জ্য পদার্থ সমস্ত খালের পানিকে এত বিষাক্ত ও দূর্গন্ধ কওে তুলেছে যে খালের সকল জলজ প্রাণি মারা যাচ্ছে । এলাকার গরীব দুঃখী মানুষ যারা মাছ ধরে জীবিকা অর্জন করে তারা নিরুপায় হয়ে পড়েছে। এই বিষক্ত পানি মাঠের মৎস ঘেরে ঢুকে মারাক্তক ক্ষতি হচ্ছে। ফলে মাছ চাষীরাও ভুগছেন হতাশায়।

কলেজ ছাত্র গৌতম হত্যা মামলার প্রধান আসামি জামশেদ আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরায় চাঞ্চল্যকর কলেজ ছাত্র গৌতম হত্যা মামলার প্রধান আসামী মোঃ জামশেদকে আটক করেছে পুলিশ।
শনিবার দুপুরে খুলনা মহানগীরর দৌলতপুর এলাকা সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ তাকে আটক করে। আটক জামশেদ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মহাদেবনগর গ্রামের মোঃ রিয়দ আলীর ছেলে। বর্তমানে তিনি খুলনা মহানগীরর দৌলতপুর থানার মহেশ্বরপাশা এলাকায় বসবাস করেন।

পুলিশ জানায়, সদর উপজেলার মাহমুদপুর সীমান্ত আদর্শ কলেজের মেধাবী ছাত্র গৌতম হত্যা মামলার প্রধান আসামী জামশেদ খুলনার দৌলতপুরে অবস্থান করছেন এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দৌলতপুর থানার সহযোগিতায় শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় সেখান থেকে আটক করা হয় এ মামলার প্রধান আসামী জামশেদকে।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মারুফ আহম্মদ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খুলনা মহানগরীর দৌলতপুর এলাকা থেকে চাঞ্চল্যকর কলেজ ছাত্র গৌতম হত্যা মামলার প্রধান আসামী মোঃ জামশেদকে আটক করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, তাকে খুলনা থেকে এখন সাতক্ষীরায় আনা হচ্ছে।

উল্লেখ্য ঃ ২০১৬ সালের ১৩ ডিসেম্বর সদর উপজেলার মহাদেবনগর গ্রামের বাড়ি থেকে মাহমুদপুর সীমান্ত আদর্শ কলেজের ছাত্র গৌতম অপহরণ হয়। এরপর ১৭ ডিসেম্বর বাড়ির পার্শ্ববর্তী পুকুর থেকে তার মরাদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার বাবা গনেশ সরকার বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৩১, তারিখ-১৬.১২.১৬। পরে মামলাটি তদন্তের জন্য ডিবি পুলিশে হস্তান্তর করা হয়। এর আগে এ মামলার গ্রেফতারকৃত আসামি নাজমুল ও শাহাদাত ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন।

কীটনাশকের ক্রমবর্ধমান ব্যবহারে হুমকির মুখে জনস্বাস্থ্য: গবেষণায় পাওয়া তথ্য

মো. আসাদুজ্জামান সরদার: কীটনাশকের ক্রমবর্ধমান ব্যবহারে হুমকির মুখে পড়ছে জনস্বাস্থ্য। কীটনাশক ক্রয় থেকে শুরু করে ছিটানো, ছিটানোর সময় প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ না করা, ছিটানোর পরপরই কৃষি ক্ষেতে প্রবেশ, উন্মুক্ত জলাশয়ে ছিটানোর যন্ত্র ধৌতকরণ, কীটনাশকের পাত্রের বহুমুখী ব্যবহার, বাতাসের প্রতিকূলে বা বিক্ষিপ্তভাবে কীটনাশক ছিটানো, কীটনাশক ব্যবহারের প্রশিক্ষণ না থাকা প্রভৃতি কারণে কীটনাশকের দীর্ঘমেয়াদি বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ।

সম্প্রতি সাতক্ষীরায় বাংলাদেশ রিসোর্স সেন্টার ফর ইন্ডিজেনাস নলেজ (বারসিক) পরিচালিত এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।
শনিবার (২৬ আগস্ট) বেলা ১২টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক ও লোকজ আয়োজিত ‘কীটনাশক ব্যবহার ও এর ক্ষতিকর প্রভাব’ শীর্ষক মিট দ্য প্রেস অ্যান্ড ডায়ালগে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

এতে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করেন বারসিক ইনস্টিটিউট অব অ্যাপ্লাইড স্ট্যাডিজের শিক্ষার্থী আসাদুল ইসলাম ও শেখ তানজির আহমেদ।

মিট দ্য প্রেসে জানানো হয়, সাতক্ষীরার ৬০০ কৃষকের উপর পরিচালিত ওই গবেষণায় উত্তরদাতাদের মধ্যে ৯৮ দশমিক ৩৪ ভাগ কৃষক কীটনাশক ব্যবহার করেন। এর মধ্যে ৬১ দশমিক ৫৩ ভাগ কৃষক ক্যান্সার, লিভারের সমস্যা, ডায়াবেটিস, শারীরিক ও মানসিক বিকাশে বাধাগ্রস্ত হওয়া, শোনার সমস্যা, কিডনির সমস্যাসহ নানা রোগ আক্রান্ত।

গবেষণায় বলা হয়েছে, গবেষণাধীন কৃষকরা দৈনিক, সাপ্তাহিক বা মাসিক ভিত্তিতে কীটনাশক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কীটনাশক মিশ্রিত খাবার খেয়ে, কীটনাশক স্প্রে করার পরপরই হাত বা শরীর না ধুয়ে খাবার খেয়ে, পানি দূষণের মাধ্যমে, প্রতিবেশির ব্যবহৃত কীটনাশক থেকে ও গ্রাউন্ড স্প্রেসহ নানাভাবে কীটনাশক দ্বারা আক্রান্ত হন।

গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, স্প্রে করার সময় উত্তরদাতাদের মধ্যে ৭৫ ভাগ কৃষকের উপর সরাসরি কীটনাশক ছিটকে পড়েছে এবং কৃষি ক্ষেত থেকে এক কিলোমিটারের চেয়ে কম দূরত্বে বসবাস করে ৮৭ ভাগ কৃষক। উত্তরদাতাদের মধ্যে ৫৪ ভাগ কৃষক কখনই কীটনাশক ছিটানোর সময় প্রতিরোধমূলক পোশাক পরেন না।

গবেষণায় তথ্য অনুযায়ী, কৃষকরা সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করেন সিনজেনটা, এসিআই, মস্কো, পদ্মাসহ বিভিন্ন কোম্পানির কীটনাশক। সরকার নিষিদ্ধ বাসুডিন ১০জিআরসহ অন্যান্য ক্ষতিকর কীটনাশকও ব্যবহার করেন কৃষকরা। কীটনাশক ব্যবহারের যন্ত্র বা কৃষক নিজেই হাত-পা বা শরীর ধৌত করেন সেচ নালা, পুকুর, ডোবা, টিউবওয়েল, নদীসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে। এর মাধ্যমেও বিষক্রিয়া ছড়িয়ে পড়ে। ফলে জলজ মাছ ও জীববৈচিত্র্য ধ্বংস হচ্ছে।

উত্তরদাতাদের ৮৩ ভাগ কৃষক কখনই কীটনাশকের গায়ের লেবেল বা লিফলেট পড়েন না। আর ব্যবহৃত কীটনাশকের খালি পাত্র ঘর সাজানো, খাবার রাখা, পানি রাখা, খেলনা, খাবারজাত দ্রব্য প্যাকেটজাত করাসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করেন ১৬ ভাগ কৃষক। এছাড়া ব্যবহৃত কীটনাশকের পাত্র যেখানে-সেখানে ফেলার কারণেও দূষণ ছড়ায়। ৯০ ভাগ কৃষক কীটনাশক ব্যবহারে কোন প্রশিক্ষণ পাননি।

গবেষণায় জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষায় ৬ দফা সুপারিশ করা হয়। এগুলো হলো- কীটনাশক ক্রয়, ব্যবহার, সংরক্ষণ ও সেটি নষ্ট করার সময় ব্যক্তিগত সাবধানতার পাশাপাশি পরিবেশও যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়- সেবিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি, কীটনাশকের পাত্রগুলো পরিবারের অন্যান্য কাজে ব্যবহার না করে পরিবেশ সম্মত উপায়ে নষ্ট করা এবং স্ব স্ব কোম্পানিকে এই দায়িত্ব নিয়ে যারা খালিপাত্র ফেরত দেবে তাদের জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থা করা, কীটনাশক যাতে কৃষিকাজ ব্যতীত অন্য কাজে ব্যবহার করা না হয় সে বিষয়ে সকলকে সচেতন করা, ভেজাল ও নি¤œমানের কীটনাশক ব্যবহার বন্ধ করা, নিবন্ধিত পরিবেশক ব্যতীত অন্য কেউ যাতে কীটনাশক বিক্রি করতে না পারে সেবিষয়ে নজরদারি বাড়ানো এবং সর্বোপরি উৎপাদনকারী, ভোক্তা ও সরকারের কৃষি বিভাগের সমন্বিত প্রচেষ্টাতেই কীটনাশকের ব্যবহার কমিয়ে মাটির ক্ষতি ও জনস্বাস্থ্য রক্ষা করা সম্ভব।

পরে লোকজের নির্বাহী পরিচালক দেব প্রসাদ সরকারের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী, সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি আনিছুর রহিম, সুভাষ চৌধুরী, আবদুল ওয়াজেদ কচি, এম কামরুজ্জামান, ড. দিলীপ দেব, গোলাম সরোয়ার, আমিনুর রশীদ, আব্দুল জলিল, আব্দুস সামাদ, ইয়ারব হোসেন প্রমুখ।

ব্যাংদহা প্রেসক্লাবে চেয়ারম্যান ও বাজার কমিটির মতবিনিময়

 

ফিংড়ী প্রতিনিধি: সদর উপজেলার ব্যাংদহা প্রেসক্লাবে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে ফিংড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ব্যাংদহা বাজার কমিটির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ব্যাংদহা প্রেসক্লাবে শেখ হেদায়েতুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাংদহা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবু ছালেকের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ফিংড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান ও ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সামছুর রহমান। বিশেষ অতিথি ও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ফিংড়ী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মো. লুৎফর রহমান, সহ-সভাপতি ও ব্যাংদহা বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক শেখ মোনায়েম, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি ডা. গোবিন্দ দাশ, বাজার কমিটির সহ-সভাপতি শায়রুখ আহম্মেদ, ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আশশাফ হোসেন, ব্যাংদহা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি রশিদুল আলম রশিদ, সানাউল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর কবির মুকুল, কোষাধ্যক্ষ মানিক বাছাড়, ক্রীড়া সম্পাদক জিএম আজিজুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক সমীর ঘোষ, সদস্য শেখ খাবিরুল্লাহ প্রমুখ।

কাজীরহাট কলেজের অধ্যক্ষ এসএম সহিদুল আলম ট্রেনিংয়ে ম্যালয়েশিয়ায় যাচ্ছেন

 

কাজীরহাট (কলারোয়া) প্রতিনিধি: কলারোয়ার কাজীরহাট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ এসএম সহিদুল আলম  বাংলাদেশ কলেজ এডুকেশন ডেভলপমেন্ট প্রোজেক্ট (বিসিইডিপি) এর অধিনে লেডারশীপ ট্রেনিংয়ের জন্য দি ইউনিভার্সিটি অফ নোটিংহাম, মালেশিয়া ক্যাম্পাসে যাচ্ছেন। শিক্ষামন্ত্রণালয়ের চিঠি পাওয়ার পরে কলেজের অধ্যক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। আগামী মাসের ৮ তারিখে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বেন এবং ১০ তারিখ থেকে ২৭ তারিখ পর্যন্ত সে দেশে অবস্থান করবেন। কলেজ অধ্যক্ষ এসএম সহিদুল আলম সকলের দোয়া কামনা করেছেন।

হাসপাতালে গিয়ে রোগীদের ওষুদ কিনে দিলেন এমপি জগলুল

নিজস্ব প্রতিনিধি: হাসপাতালে অাকস্মিক পরিদর্শনে গিয়ে কয়েকজন দুস্ত রোগীদেরকে ওষুদ কিনে দিলেন এস, এম জগলুল হায়দার এমপি। শনিবার সকাল ১১ টায় শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনে যান সাতক্ষীরা – ৪ অাসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব এস, এম জগলুল হায়দার। এসময় তিনি হাসপাতালের অাউটডোরে রোগীদের চিকিৎসা দীর্ঘক্ষণ পর্যবেক্ষণ করেন এবং কয়েকজন গরীব, অসহায়, অসুস্থ রোগীদের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ঔষধ নিজ খরচে কিনে দেন। সমগ্র হাসপাতাল ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং রোগীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন জগলুল হায়দার এমপি। গরীব রোগীদের প্রতি এই মহানুভবতায় উপস্থিত সকলেই এমপি মহোদয়ের জন্য প্রাণভরে দোয়া করেন। এমপি সাহেব অসুস্থ রোগীদের বলেন, ” মহান অাল্লাহ পাকের দরবারে অসুস্থ মানুষের দোয়া কবুল হয়। অাপনারা সকলে অামার নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন।”

দেবহাটা পারুলিয়ায় ৮ দলীয় ফুটবললীগের উদ্বোধন

 

দেবহাটা ব্যুরো: দেবহাটা পারুলিয়ায় ৮দলীয় আঞ্চলিক ফুটবললীগের  উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকাল ৫টায় দক্ষিণ পারুলিয়া স্পোটিং ক্লাবের আয়োজনে দক্ষিণ পারুলিয়া স্পোটিং ক্লাব মাঠে উদ্বোধনী খেলায় একদিকে অংশগ্রহণ করে গতবারের চাম্পিয়ন সখিপুর মিতালী সংঘ ফুটবল একাদশ ও অপরদিকে অংশগ্রহণ করে মোল্লা পাড়া ফুটবল একাদশ। অনুষ্ঠানে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও দক্ষীণ পারুলিয়া স্পোটিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিন্নুরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে খেলার উদ্বোধন ঘোষনা করেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি। বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের সদস্য আল-ফেরদাউস আলফা, পারুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুরআমিন গাজী, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ ও সখিপুর মিতালী সংঘের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, পারুলিয়া স্পোটিং ক্লাবের সভাপতি যুবলীগ নেতা শেখ তাজুল ইসলাম, পারুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য ফরহাদ হোসেন হিরা, সাধারণ সম্পাদক রাসেল আহম্মেদ, পারুলিয়া স্পোটিং ক্লাবের ক্রিয়া সম্পাদক অসিম ঘোষ প্রমুখ। খেলা পরিচালনা করেন, দিলিপ ঘোষ, রামু সরকার ও  টুটুল ঘোষ এবং ধারা বিবরণী দেন সিরাজুল ইসলাম, সুভাষ ঘোষ ও মাসুদ।

শ্যামনগরে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সর্বোচ্চ সঞ্চয় ও ঋণ আদায়কারীর পুরস্কার ও সনদ প্রদান

 

সুন্দরবনাঞ্চল (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: শ্যামনগর উপজেলায় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প ও উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হল রুমে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাঠ সহকারী, সুপারভাইজারদের সাথে মতবিনিময় ও ইউনিয়ন পর্যায়ে সর্বোচ্চ সঞ্চয় ও ঋণ আদায়কারীদের পুরস্কার বিতরণী ও সনদপত্র প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন মঙ্গলবার করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব ও পুরস্কার বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. কামরুজজামান। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারী প্রদীপ কুমার, রিপোর্টার রনজিৎ বর্মন, প্রকল্পের সুপারভাইজার ও মাঠ সহকারীবৃন্দ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিগত তিন মাসে সর্বোচ্চ সঞ্চয় ও ঋণ আদায়কারীদের মধ্যে প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন শিখা রানী বাইন, দ্বিতীয় সুশান্ত মন্ডল ও তৃতিয় সুকুমার মন্ডল। জানা যায়, প্রকল্পের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের অনুপ্রাণিত করতে এ উদ্যোগ গ্রহণ।

কালিগঞ্জের নাজিমগঞ্জ বাজারে ৫অবৈধ দোকান ঘর উচ্ছেদ

 

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নূর আহম্মেদ মাসুম এর উপস্থিতিতে শুক্রবার সকাল ৯টায় নাজিমগঞ্জ মোকামের কাকশিয়ালী নদীর খেয়াঘাটের পার্শ্বে অবৈধভাবে নির্মিত ৫টি পাকা দোকান ঘর ভেঙে দেয়া হয়েছে। এসময় ভূমি অফিসের সার্ভায়ের শফিকুল ইসলাম, কালিগঞ্জ থানার এসআই আলমগীর হোসেন ও মুরাদ হোসেনসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। নাজিগঞ্জের খেয়াঘাটের পার্শ্বে খাস জমিতে স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি অবৈধ ভাবে পাকা ঘর নির্মান কাজ শুরু করলে উপজেলা ভূমি অফিসের পক্ষ থেকে ঘর নির্মাণ করতে নিষেধ করে। নিষেধ উপেক্ষা করে ঘর নির্মাণের কার্যক্রম চালালে গত শুক্রবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুর আহম্মেদ মাছুম এর নির্দেশে ১০জন শ্রমিক দিয়ে পাকা ঘর ভেঙে এবং টিনের চাল উচ্ছেদ করা হয়। উচ্ছেদ করা ঘর গুলি হলো শিতলপুর গ্রামের মৃত আহম্মাদ মোড়লের ছেলে আমজেদ আলী, মৃত কিনু মোড়লের ছেলে ইশার আলী, গনপতি গ্রামের আব্দুর রউফের ছেলে নূর আলাম, বসন্তপুর গ্রামের রহমাতুল্লার ছেলে আব্দুর রহমান, শীতলপুর গ্রামের হামিদের ছেলে শাহাজন আলীর ঘর। এছাড়া সারাফাত আলীর নির্মাণরত ঘরের পিলার ভেঙে দেওয়া হয়। এসময় নাজিমগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফিরোজ কবির কাজলসহ স্থানীয় ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের নয়, সমগ্র বিশ্বের মানুষের নেতা: মৎস্য প্রতিমন্ত্রী

 

পত্রদূত রিপোর্ট: মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাংলাদেশের নেতা ছিলেন না, তিনি ছিলেন সমগ্র বিশ্বের মানুষের নেতা । তাঁর নেতৃত্বে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করি। যারা স্বাধীনতা চায়নি তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে।

তিনি শুক্রবার বিকেলে খুলনা ডুমুরিয়া ধামালিয়া ইউনিয়নের চেঁচুড়ী মাঝের পাড়া উলকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে স্বাধীনতার মহান স্থাপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪২তম শাহাদত বাষির্কী ও জাতীয় শোক দিবস-২০১৭ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালির জন্য অত্যšত গুরুত্বপূর্ণ। নতুন প্রজন্মের মাঝে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও দর্শন ছড়িয়ে দিতে হবে। ৭০’ এর সাধারণ নির্বাচনসহ এ দেশের গণমানুষের আশা আকাঙ্খা পূরণে প্রতিটি আন্দোলন তাঁর ভূমিকা ছিল অগ্রণী। ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ সালে বাঙািল জাতির ইতিহাসে এক কলল্কজনক অধ্যায়। তিনি বলেন, দেশের স্বাধীনতাবিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মদদে ঘাতকচক্রের হাতে ধানমন্ডির নিজ বাসভবনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নিহত হন। জাতির পিতাকে হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করতে হবে। বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক মুক্তির জন্য সারা জীবন কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধু শোষনমুক্ত সমাজ বিনির্মাণের স্বপ্ন দেখেছিলেন সেই স্বপ্ন বা¯তবায়ন করতে প্রত্যেকটি জনগণকে এক সাথে কাজ করার জন্য তিনি আহবান জানান।

ধামালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাষ্টার সাইদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে বক্তৃতা করেন খুলনা জেলা পরিষদের সদস্য সরদার আবু সালেহ, ভবদহ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সরদার মতলেব এবং ধামালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজওয়ান মোল্ল¬া। পরে তিনি ডুমুরিয়ার শোভনা ইউনিয়নের গাবতলায় জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় যোগদান করেন।