প্রতিবন্ধী ছোট ভাইয়ের বৌকে ধর্ষণের চেষ্টায় ভাসুর আটক


প্রকাশিত : অক্টোবর ১৭, ২০১৭ ||

 

শহর প্রতিনিধি: প্রতিবন্ধী ছোট ভাইয়ের বৌকে ধর্ষণের চেষ্টায় ভাসুরকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ভাসুর শহরের কাছারীপাড়া এলাকার মৃত কাছেদ আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম দীপু (৩৪)।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৭ সেপ্টেম্বর’১৭ তারিখে দীপুর বাক প্রতিবন্ধী ছোটভাই তরিকুল ইসলামের সাথে পারিবারিকভাবে বিবাহ হয় পুরাতন সাতক্ষীরা এলাকার আরশাদ আলীর কন্যা রামীর সাথে। বিয়ের পর থেকে দীপু বিভিন্ন সময়ে রীমাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এতে রীমা রাজি না হলে দীপু তাকে বিভিন্ন হুমকি ধামকি প্রদান করতো। একপর্যায়ে কয়েকদিন পূর্বে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে রীমাকে একা পেয়ে ভাসুর দীপু তাকে জড়িয়ে ধরে এবং স্পর্শকাতর স্থান হাত দেওয়ার চেষ্টা করেন। সে সময় দীপু বলে তুমি একথা কাউকে বলবে না। বললে তোমাকে দুনিয়া ছাড়তে হবে। ওই দিন তার স্বামী তরিকুল ইসলাম বাড়িতে আসলে রীমা তাকে বিষয়টি অবহিত করে। বাকপ্রতিবন্ধী তরিকুল ইশারার মাধ্যমে বলে তার আগেও একটি বৌ ছিলো। কিন্তু তার বড় ভাই দীপুর কারণে সে চলে গেছে। পরদিন ২৬ সেপ্টেম্বর’১৭ তারিখে স্বামী কাজে যাওয়ার পরে রীমা তার নিজের ঘরে ঘুমাচ্ছিল। এমন সময় দীপু তার ঘরে প্রবেশ করে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। রীমা কৌশলে দীপুর হাত ছাড়িয়ে তার বাপের বাড়িতে চলে যায়।
পরে ওই ভাসুর নামক লম্পটের শাস্তির জন্য ৩ অক্টোবর’১৭ তারিখে রীমা বাদী হয়ে সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ওই ভাসুর নামক লম্পটকে আটকের জন্য সদর থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক সোমবার সকাল ১০টার দিকে পোস্ট অফিস মোড় এলাকা থেকে দীপুকে আটক করে পুলিশ।
এদিকে দীপুকে আটকের পর তার মামা কওছারসহ কয়েকজন ব্যক্তি রীমাকে মামলা তুলে নেওয়ার বিভিন্ন হুমকি ধামকি প্রদর্শন শুরু করেছে বলে রীমা জানান।
এঘটনায় সদর থানার উপপরিদর্শক ইউসুফ আলী আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, কোর্টের আদেশ ছিলো। যে কারণে দীপুকে আটক করা হয়েছে।