সাতক্ষীরায় পৌরসভার রাস্তা দখল করে ভবন নির্মাণ বন্ধের দাবি


প্রকাশিত : অক্টোবর ১৭, ২০১৭ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা পৌর কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অমান্য করে শহরের কাটিয়ায় অবৈধভাবে ভবন নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় এলাকাবাসি বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও কোন ফল পাননি বলে জানাগেছে।
এলাকাবাসি জানান, শহরের কাটিয়া মধ্যপাড়ার শেখ হাবিবুর রহমানের ছেলে শেখ আজিজুর রহমান টনি ও স্ত্রী স্কুল শিক্ষিকা রেহেনা খাতুন কাজল পৌরসভার যাতায়াতের রাস্তা দখল করে বহুতল বিশিষ্ট ভবন নির্মাণ শুরু করে। এঘটনায় স্থানীয়ভাবে শেখ আজিজুর রহমান টনি ও তার স্ত্রী কাজলকে বার বার নিষেধ করা স্বত্বেও আইনকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে পৌরসভার আইন লঙ্ঘন করে পৌর সভার রাস্তা দখল করে অবৈধ বহুতল ভবন নির্মাণ করে চলেছে।
এদিকে নিয়ম বর্হিভূতভাবে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধকরার জন্য অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও পৌর মেয়রের নিকট এলাকাবাসির পক্ষে দরখস্ত করলে তাৎক্ষণিকভাবে সাতক্ষীরার জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে উক্ত অবৈধ ও বেআইনি বহুতল ভবনের নির্মাণ কাজ স্থগিত করা হয়।
পরবর্তীতে পৌরসভার মেয়রের নির্দেশে ওই অবৈধ ভবনের জমি ও পৌর সভার রাস্তা পৌর সভার জরিপ কারি মামুনের নেতৃত্বে একাধিক বার মাপ জরিপ করা হয়। মাপ জরিপে ঘটনা সত্য ও সঠিক ভাবে প্রমাণিত হয়।
মাপ জরিপের রিপোর্টে তিনি মামুন উল্লেখ করেন, রেহেনা খাতুন কাজল ও তার স্বামী শেখ আজিজুর রহমান টনি গং যে অবৈধ, বেআইনি বহুতলভবন নির্মাণ করছে তার কলাম বা পিলার, পায়খানার স্যুপ ট্যাংক, সীমানা প্রাচীর ও ঘরের সানসেট পৌরসভার রাস্তার উপর অবস্থিত। উক্ত রিপোর্টে পৌরসভার প্রকৌশলী, শহরপরিকল্পাবিদসহ অনেকেই স্বাক্ষর করেন।
এলাকাবাসি আরো জানান, রাস্তা দখল করে এভাবে বহুতল ভবন নির্মাণ অব্যাহত থাকলেও অত্র এলাকার যাতায়াতের রাস্তা সংকীর্ণ হয়ে পড়বে। এতে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার কবলে পড়ে উক্ত রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী সাধারণ মানুষ। পৌরসভার রাস্তা দখল করে বাড়ি নির্মাণ করে জনগনের চলাচলের বিঘœ ঘটিয়ে যে বহুতল ভবন বিনা অনুমতিতে নির্মান করছে তা অবিলম্বে ভেঙে ফেলার জন্য এবং রাস্তার উপর থেকে মাটি ও অন্য স্থাপনা সরানোর জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের নিকট পৌরবাসি অতিদ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন।