উৎসবমুখর পরিবেশ, সন্তুষ্ট প্রার্থী ও ভোটাররা


প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২১, ২০১৭ ||

 

 

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় ভোট শুরুর আগে থেকেই রংপুরের কেন্দ্রগুলোয় ভোটারদের উপস্থিতি দেখা গেছে। কুয়াশা ও তীব্র শীত উপেক্ষা করেই তারা ভোট দিতে আসছেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতিও বাড়ছে। কোথাও কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির খবর না থাকায় ভোটারদের মধ্যে আনন্দমুখর পরিবেশ দেখা যাচ্ছে। সমানতালে ভোট দিতে লাইন ধরছেন নারী ও পুরুষ ভোটাররা। কেন্দ্রগুলোয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পর্যাপ্ত সদস্য মোতায়েন রয়েছে।

সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে মাহীগঞ্জের দেওয়ানতুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা। এখন পর্যন্ত ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু থাকবে কিনা সেব্যাপারে বাবলা শঙ্কাও প্রকাশ করেছেন।

সকাল ৯টা ২১ মিনিটে নগরীর আলমনগর কলেজরোড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। ভোট দেওয়া শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘জয়ের বিষয়ে আমি শতভাগ আশাবাদী। এখনও পর্যন্ত নির্বাচনের পরিবেশ খুবই ভালো আছে। কোনও ধরনের অস্বস্তিকর পরিস্থিতির খবর পাইনি। উৎসবমুখর পরিবেশে সবাই ভোট দিচ্ছেন।’

এদিকে, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নগরীর নিউ সেনপাড়ায় শিশুমঙ্গল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনিও ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচন হলো নির্বাচন কমিশনের পরীক্ষা। এর মাধ্যমে তাদের প্রমাণ করতে হবে যে তারা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের আয়োজন করতে পারে। কাজেই এই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।’

প্রায় একই সময় গুপ্তপাড়ায় সালেমা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোট দিয়েছেন সিপিবি-বাসদের প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস। তিনিও ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য, রংপুর সিটি করপোরেশনে (রসিক) দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ। এর আগে ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর রসিকে প্রথম ভোট হয়। এবার নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডের ১৯৩টি ভোটকেন্দ্রে ১ হাজার ১২২টি বুথে ভোটগ্রহণ চলছে। এ নির্বাচনে মোট ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৯৯৪ ভোটার ভোট দেবেন।