আশাশুনির পারিশামারি থেকে পরিত্যক্ত ৫টি বোমা উদ্ধার: থানায় মামলা


প্রকাশিত : জানুয়ারি ১৪, ২০১৮ ||

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনির খাজরা ইউনিয়নের পারিশামারী চেউটিয়া নদী পাড় থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৫টি অবিস্ফোড়িত বোমা উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আকতারুজ্জামান জানান, উপজেলার খাজরা ইউনিয়নের দেয়াবর্ষিয়া (ফটিকখালী) গ্রামের অমল কৃষ্ণ মন্ডলের পুত্র স্বপনের ভাষ্য মতে শনিবার দিবাগত রাত পৌনে ১০টার দিকে সে এবং খালিয়া গ্রামের ইবাদুল ইসলাম সানার পুত্র শামীম একটি ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেলে কাপসন্ডা বাজার এলাকা থেকে পিরোজপুর অভিমুখে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে পারিশামারী গ্রামের মৃত যোতিন্দ্র রায়ের পুত্র শান্তিরঞ্জন রায়ের মৎস্য ঘেরের দক্ষিণ পাশের রাস্তার উপর পৌছলে ৫/৬ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল তাদের পথ রোধ করে মারপিট শুরু করে। এক পর্যায়ে আক্রমনকারীরা বোমা নিক্ষেপ করতে গেলে স্বপনরা নদীতে লাফিয়ে পড়ে এবং তাদের ডাকচিৎকারে সংঘবদ্ধ দলের ছোড়া ৫টি বোমা চেউটিয়া নদী পাড়ে ফেলে দ্রুত পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আকতারুজ্জামান, এসআই প্রদীপ কুমার সানা ও এএসআই মাহবুব ঘটনাস্থল পৌছে ইউপি চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম, ইউপি সদস্য ও অর্ধশতাধিক জনতার উপস্থিতিতে একটি ব্যাগে ৫টি অবিস্ফোড়িত বোমা উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নেয়। এ ব্যাপারে রোববার স্বপন কুমার মন্ডল বাদী হয়ে ৩ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক আরো ২/৩ জন অজ্ঞাতনামা রেখে বিস্ফোড়ক দ্রব্য ও পেনালকোট আইনে ০৩(০১)১৮ নং মামলা দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে স্বপনের আপন সহোদর বিমল কৃষ্ণ মন্ডল এ প্রতিবেদককে জানান, রাত ৯টার দিকে তিনি রাইচ মিলের ঘরে তালা লাগানোর সময় তাকে দেখে হঠাৎ কাপসন্ডার জনৈক রমজান চলতি মটর সাইকেল থামায়। রমজান বলতে থাকে স্বপন এবং অজ্ঞাতনামা একটি ছেলে ভাড়াই চালিত মটর সাইকেল যোগে হাত ফাক করে একটি ব্যাগ ধরে পিরোজপুর অভিমুখে যাচ্ছিল। পূবশত্রুতা বসত কিছু ঘটায় কিনা এমন সন্দেহে রমজান তাদের পিছু নিয়ে পারিশামারির অজধ্যা মন্ডলের বাড়ির সামনে গিয়ে গতি রোধ করা মাত্রই হাতে থাকা ব্যাগটি স্বপন চেউটিয়া নদীতে ছুড়ে ফেলে দেয়। নটকীয় এ ঘটনায় এলাকায় প্রকৃত ঘটনা নিয়ে ধ্রু¤্রজালের সৃষ্টি হয়েছে।