কমনরুম বন্ধ থাকায় সাতক্ষীরা সরকারি কলেজে খেলাধূলা ব্যাহত


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ ||

শাকিল হোসেন: মাদক সেবিদের আড্ডা, বহিরাগদের দখলদারিত্ব ও সংস্কারের অভাবেই বন্ধ হয়ে আছে সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ছাত্র কমনরুম। দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকায় কলেজে ছাত্রদের ক্রীড়া চর্চা ব্যাহত হচ্ছে। সমস্যা সমাধান করে দ্রুত সময়ের মধ্যে ছাত্র কমন খুলে দেওয়ার দাবি ছাত্রদের। কলেজ সূত্র জানায়, ৩৩ একর জমির উপর কলেজটি ১৯৪৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। প্রথমে গ্রাণনাথ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উপর কলেজের সার্বিক কার্যক্রম চলতো। কলেজের প্রথম অধ্যক্ষ উমাপদ দত্তের প্রচেষ্টায় কলেজের সার্বিক উন্নতি সাধিত হয়। এরপর ১৯৮০ সালে জাতীয়করণ করা হয়। বর্তমানে এইচএসসি, ডিগ্রি, অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স চালু আছে। সব মিলিয়ে বর্তমানে প্রায় ২০ হাজার ছাত্রছাত্রী অধ্যায়নরত আছে। যাদের জন্য কলেজে দুটি আলাদা কমনরুম রয়েছে। এ কমনরুম বাবদ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ আদায় করা হলেও নানা সমস্যায় বন্ধ রাখা হয়েছে ছাত্র কমনরুম। ছাত্র কমনরুম বন্ধ থাকার বিষয়ে সাতক্ষীরা সরকারি কলেজে অনার্স ৩য় বর্ষের ছাত্র শাহেদুল ইসলাম জানান, কলেজে সব সময় আমাদের ক্লাস থাকে না। অবসর সময় আমরা আগে কমান রুমে গিয়ে খেলাধূলা করতাম। কিন্তু বন্ধ থাকায় আমরা আর খেলাধূলা করতে পারছি না। কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র রুদ্র কুমার উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, পড়াশুনার পাশাপাশি খেলাধূলা চর্চা করাও জরুরী। কিন্তু কলেজে ভর্তি হয়ে দেখি খেলাধূলার তেমন কোন ব্যবস্থা নেই। কমনরুমও বন্ধ থাকে। এতে করে শিক্ষার্থীদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ রুদ্ধ হয়ে পড়ছে। কলেজর আরেক ছাত্র আব্দুল্লাহ আল মুনিব বলেন, আগে কমনরুম খোলা পাওয়া যেত। তবে, সেখানে শিক্ষার্থীদের খেলাধূলা করার কোন পরিবেশ ছিলো না। সব সময় বহিরাগতরা দখল করে রখতো। কিছু বলতে গেলে নানা ভাবে হুমকি দিতো সেই কারণে ইচ্চা থাকলেও আমরা খেলতে পারতাম না।
এদিকে, দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের সর্ববৃহৎ এ বিদ্যাপিটের ছাত্র কমনরুম দীর্ঘ সংস্কারের উদ্যোগ নেই কর্তৃপক্ষে। এ বিষয়ে চাইলে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর বিশ্বাস সুদেব কুমার বলেন, ‘ছাত্র কমন রুমের বিষয়ে আমরা অবগত আছি। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নেয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই ছাত্র কমনরুম সংস্কার তা ছাত্রদের জন্য খুলে দেওয়া হবে।’