থ্রিজি সিম বদলে ফোরজি সিম নিতে চায় তাহলে গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নেওয়া যাবে না: এটা বিটিআরসির সিদ্ধান্ত


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮ ||

 

দেশে চালু হলো ফোরজি সেবা। এর মাধ্যমে ফোরজি যুগে ঢুকলো বাংলাদেশ। সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা ক্লাবে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর কাছে ফোরজি সেবার লাইসেন্স হস্তান্তরের সঙ্গে সঙ্গে তিনটি অপারেটর আনুষ্ঠানিকভাবে এ সেবা চালু করে। অপারেটরগুলো হচ্ছে গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক। এছাড়াও ওই অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের পক্ষ থেকেও ফোরজি সেবার লাইসেন্স গ্রহণ করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। সভাপতিত্ব করেন বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন অপারেটর কোম্পানিগুলোর শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘কোনও কোনও মোবাইল ফোন অপারেটর (গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক) সিম রিপ্লেসমেন্টের নামে টাকা নিচ্ছে। এটা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আমি অপারেটরদের কাছে অনুরোধ করবো গ্রাহক যদি থ্রিজি সিম বদলে ফোরজি সিম নিতে চায় তাহলে টাকা নেবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘জনগণ যে টাকা দিয়ে মোবাইলসেবা কেনেন, সেই অনুপাতে তারা সেবা পাচ্ছেন না। এটা খুবই দুঃখজনক। জনগণকে টাকার মান অনুযায়ী সেবা দিতে হবে। জনগণ যে সেবা চায়, সেই সেবাই তাকে দিতে হবে।’ ফোরজি বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আগামী দিনে ফোরজি সেবা ভয়েস কল কমিয়ে দেবে, ডাটানির্ভর (ইন্টারনেট) সেবার পরিমাণ বাড়াবে। এতে জনগণ আরও উন্নতমানের সেবা পাবে। যাতে সব মিলিয়ে গ্রাহকই উপকৃত হবেন।’

বিটিআরসির চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহামুদ তার বক্তব্যে বলেন, ‘ফোরজি এসেছে। ফাইভজি আসছে।’ তিনি বলেন, ‘সিম রিপ্লেস করতে কোনও কোনও অপারেটর টাকা নিচ্ছে। কোনও গ্রাহক যদি থ্রিজি সিম বদলে ফোরজি সিম নিতে চায় তাহলে গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নেওয়া যাবে না। এটা বিটিআরসির সিদ্ধান্ত। মন্ত্রণালয় কী করবে সেটা দেখার অপেক্ষায় আছি।’

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী মাইকেল ফোলি বলেন, ‘আমাদের ৮০টি সাইটে এখন ফোরজি চালু আছে। আগামীকাল থেকে এর সংখ্যা আরও বাড়বে।’

রবির প্রধান নির্বাহী মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমাদের ১৭৯টি সাইটে ফোরজি চালু আছে।’ ফোরজি ব্যবহার করতে স্মার্টফোন ও নেটওয়ার্ক ডিভাইসের শুল্ক কমানোর আহ্বান জানান তিনি। এছাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চলে ফোরজি ছড়িয়ে দিতে কোনও ইনসেনটিভ দেওয়া যায় কিনা সে বিষয়ে সবার মতামত চান তিনি।

বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী এরিক অস বলেন, ‘আমরাও ফোরজি চালু করেছি। ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণ ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য ফোরজি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।’

টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী গোলাম কুদ্দুস বলেন, ‘আমরা শিগগিরই ফোরজি চালু করবো। আমরা ফোরজি সেবা নিয়ে প্রান্তিক জনগণের কাছে পৌঁছাতে চাই।’

এর আগে বিকালে গণভবনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই সেবা চালুর সুসংবাদ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।