সুন্দরবনে জেলেদের উপরে বনদস্যু দাদা ভাই বাহিনীর গুলিবর্ষণ প্রাণে বাঁচলো দুই জেলে, মুক্তিপণ দিয়ে বাড়িতে ফিরেছে ৩ জেলে


প্রকাশিত : মার্চ ২৫, ২০১৮ ||

 

 

 

শ্যামনগর (সদর) প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা রেঞ্জ পশ্চিম সুন্দরবনে নদীতে মাছ ধরার সময় জেলেদের উপরে নবাগত বনদস্যু দাদা ভাই বাহিনীর সদস্যরা ব্যাপক গুলি বর্ষণ করেছে। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সুন্দরবনের মালঞ্চ নদী সংলগ্ন পালোকাটি খালে গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জাল নৌকা ফেলে কোন রকমে প্রাণ হাতে নিয়ে বাড়িতে ফিরেছে ২ জেলে। ফিরে আসা জেলেরা হলেন, মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিণ কদমতলা গ্রামের ফজলু হক গাজীর ছেলে শামীম হোসেন (২৫) ও আইয়ুব আলী গাজীর ছেলে রহিম গাজী (৩৫)। ফিরে আসা জেলে রহিম জানায়, কদমতলা বন অফিস হতে অনুমতি নিয়ে সুন্দরবনের পালোকাটি খালে মাছ ধরার সময় বনদস্যু দাদা ভাই বাহিনীর সদস্যরা তাদের জিম্মি করতে এগিয়ে আসতে থাকে। বিপদ বুঝতে পেরে নৌকা নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় তাদের উপরে বৃষ্টিরমত গুলিবর্ষণ করে দাদা ভাই বাহিনী। এসময় জাল নৌকা ফেলে নদীতে ঝাপ দিয়ে কোন রকমে প্রাণে বেঁচে যায়। পরবর্তীতে কদমতলা বন অফিসের সদস্যরা তাদের উদ্ধার করেন। কদমতলা স্টেশন কর্মকর্তা নাসিরুদ্দীন সত্যতা স্বীকার করে জানান, জেলেদের উপরে ১৫ থেকে ২০ রাউন্ড গুলি ছোড়ে বনদস্যু বাহিনীর সদস্যরা।

এদিকে ফিরে আসা অন্য জেলেরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের মৌখালী গ্রামের ইসমাইল গাজীর ছেলে করিম গাজী দাদা ভাই বাহিনীর সেকেন্ডইন কমান্ডের দায়িত্বরত। বাগেরহাট জেলার রামপাল থানার কয়েকজনকে নিয়ে সে নুতন বাহিনী গঠন করেছে। কিছুদিন পূর্বে করিম স্ত্রী সন্তান নিয়ে ভারতে পাড়ি জমায়। তাছাড়া বছর তিনেক পূর্বে ফেন্সিডিল রাখার দায়ে পুলিশ তাকে আটক করে।

অপরদিকে একই বাহিনীর হাতে জিম্মি ৩ জেলে শনিবার ভোর রাতের দিকে নিজ নিজ বাড়িতে ফিরেছে। ফিরে আসা জেলেরা হলো দক্ষিণ কদমতলা গ্রামে নওশাদ গাজীর ছেলে নবাব গাজী এবং একই এলাকার খবির খেশের ছেলে জামাল শেখ ও নুর ইসলাম শেখের ছেলে ফারুক হোসেন। গত ৩দিন পূর্বে সুন্দরবনে চালতেবাড়ীয়া এলাকা থেকে মুক্তিপণের দাবিতে বনদস্যু দাদাভাই বাহিনী তাদের অপহরণ করে। পরবর্তীতে পারিবারিক দেন দরবারে মুক্তিপণের ৩০ হাজার টাকা বিকাশে মাধ্যমে পরিশোধ করে মুক্তিপায়।