সাইকোলজি


প্রকাশিত : এপ্রিল ৬, ২০১৮ ||

শাহিনা কাজল

তোমার ঘাড়ে ঝুলবো বলেই-
সাইকোলজি পড়েছি বাইশ বছর!
প্রথম যেদিন তোমাকে ছুঁয়েছিলাম
তুমি ভাব এমন দেখালে যেন উত্তম কুমার নয়
হিটলারের প্রধান সেনাপতি।

সেদিন লজ্জায় নাক চেপে দিব্বি কেটে
বলেছিলাম বান্ধবীদের
এই বাঁধলাম বেণী ওর অহংকারী চোখের মোহনায়,
ঘাড় মটকাবোই

ভাগ্য ভালো ত্রিকোণমিতিটাও রপ্ত ছিল,
না হলে স্নানঘরে ডুবাতে পারতাম না
উল্টো বেলতলাতেই যেতে হতো।
দীর্ঘ লাইন ছিল সুদর্শন, কুদর্শন আর হ্যাংলাদের
আবশ্যিক বিষয়ের মতোই পড়েছি প্রেমপত্র
আহা! সুখের ঝর্ণাধারা!

তুমি কোমরে যার আঁচল বেঁধে যাও পার্ক,
সিনেমা কিংবা ফাগুনের দেশে
ঘুমোও যার হৃদপি- মুঠোয় ভরে
সুখের নি:শ্বাস ভরো কবিতায়
নিষিক্ত শিশিরে ভেজাও দূর্বাদল
সে কী আসলেই সাইকোলজিতে পটু?
হবে হয়তো! ল্যুভরের মিউজিয়াম।

আমিও দেখে এসেছি দাজ্জালের নগরী থেকে
কী করে হিংস্রতার ছোবল আয়ত্ব করে
ভাঙা পায়ে কষ্ট চেপে চলতে হয়
জ্যোতিষ্কম-লের এ গলি থেকে ও-গলি।

তোমাকে কাছে পাওয়ার জন্য
আমি ক্যারাতে প্রাকট্সি করিনি কখনোই,
জামদানি শাড়ীর আঁচল ভরে
লিপিস্টিক, আই’ব্রু কিংবা মোনালিসা হাসির
মন্ত্রটা শিখেছি গাঢ় সবুজের মতো।
আর আমার সাইকোলজি!!