চুকনগরে হাত বাড়ালেই মাদক


প্রকাশিত : এপ্রিল ২২, ২০১৮ ||

 

গাজী আব্দুল কুদ্দুস, চুকনগর (খুলনা): চুকনগরে হাত বাড়ালেই মাদক। মাদক সেবী ও ব্যবসায়ীরা দিনদিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে। ব্যবসায়ীরা নয়া কৌশলে মাদক আনা নেয়ার কারণে অপরাধীরা ধরা ছোয়ার বাইরে থাকছে। প্রতিনিয়ন নেশার ছোবলে আক্রান্ত হচ্ছে উঠতি বয়সের স্কুল কলেজ পড়–য়া যুব সমাজ। ফলে প্রকৃত অপরাধীদের আটক করতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ!

স্থানীয়সূত্রেজানাগেছে, খুলনাজেলারডুমুরিয়াউপজেলারপশ্চিমপ্রান্তেচুকনগরশহরটিঅবস্থিত।শহরটিবিভাগীয়শহরখুলনাপ্রবেশদ্বারনামেখ্যাত।এটিখুলনা, যশোরওসাতক্ষীরাজেলারমধ্যস্থলেহওয়ায়ট্রানজিডএলাকাহিসেবেপরিচিত।এছাড়াভারতসীমান্তেরখুবকাছাকাছিথাকায়একাধিকরুটচুকনগরস্থলপথেরসাথেসংযোগরয়েছে।ফলেঅতিসহজেমাদকসেবীওব্যবসায়ীদেরহাতেঅবৈধপথেআসাবিভিন্নপ্রকারমাদকদ্রব্যপৌঁছেযাচ্ছে।কিশোর, যুবকওবৃদ্ধপর্যন্তবিভিন্নশ্রেণিপেশারমানুষমাদকাসক্তহয়েপড়েছে।

অপরএকটিসূত্রজানায়, সম্প্রতিনারীরাওমাদকসেবনসহবেঁচাকেনায়তৎপররয়েছে।আবারঅনেকমাদকব্যবসায়ীরস্ত্রীরামাদকবিক্রয়েরক্ষেত্রেস্বামীকেসহযোগীহিসেবেকাজকরছে।বিকালথেকেশুরুকরেমধ্যরাতপর্যন্তচলমানরয়েছেমাদকবিকিকিনিওসেবন।এমরণনেশাযেনএকেবারেগ্রাসকরেআছেপ্রত্যন্তএলাকা।আবারঅনেকএলাকাসম্পর্কেপুলিশেরনেইকোনধারনা।মাদকবিক্রেতাদেরনিজস্বসোর্সগ্রামেরবিভিন্নরাস্তারমোড়েপাহারা  দিয়েনিবিঘেœ চালিয়েযাচ্ছেতারাএসকলকর্মকান্ড।মাদকেরমধ্যেরয়েছেইয়াবাট্যাবলেট, গাঁজা, ফেনসিডিল, মদ  ওহেরোইন।তবেসম্প্রতিবহনেরঝুকিকমাতেইয়াবা, গাঁজাওহেরোইনেরপ্রতিচাহিদাবেড়েছে।অভিনবকৌশলেবিকাশেরমাধ্যমেটাকালেনদেনেরপরবেঁচাকেনাহচ্ছেএসকলমাদকদ্রব্য।আরনির্দিষ্টজায়গায়পৌঁছেদেয়াহচ্ছেচাহিদামতমাদকদ্রব্য।এঅঞ্চলের১৮মাইলবাজার, মাগুরাঘোনাকরিমবাক্রমোড়,দোলখোলাবাজার, মাগুরাঘোনানতুনবাজার, আরশনগরনতুনবাজার, বাদুড়িয়াবাজার, নরনিয়াআটলিয়াচাররাস্তারমোড়, কাটাখালব্রিজেরমাথা, রোস্তমপুরস্কুলমাঠ, চুকনগরগুচ্ছগ্রাম, বলফিল্ড, রায়পাড়া, শ্মশানঘাট, অলিপুরশ্মশানঘাট, দক্ষিণগোবিন্দকাটি, চাকুন্দিয়াবিলএলাকা, কাঁঠালতলাস্কুলমাঠ, কাঁঠালতলামঠমন্দিরচত্তর, বরাতিয়াস্কুলমাঠ, বরাতিয়াভদ্রানদীরতীরেইটভাটাএলাকা, কুলবাড়িয়াস্লুইসগেট, দিব্যপল্লীস্কুলমাঠ, বালিকাবিদ্যালয়স্কুলমাঠ, বয়ারসিংকাঠেরব্রীজসহনির্জনএলাকাসমূহমাদকসেবীওব্যবসায়ীদেরনিরাপদজায়গাহিসাবেব্যবহৃতহচ্ছে।এরমধ্যেঅধিকাংশস্পটআইন-শৃংখলাবাহিনীরসদস্যদেরজানারবাইরেরয়েছেবলেঅভিমতব্যক্তকরেনএলাকারসাধারণমানুষ।আরনেশারটাকাজোগাড়করতেএলাকায়প্রায়চুরিরঘটনাঘটেচলেছে।অপরদিকেঅভিভাবকমহলরয়েছেচরমহতাশারমধ্যে।

এপ্রসঙ্গেআটলিয়াইউপিচেয়ারম্যানওইউনিয়নআওয়ামীলীগেরসাধারণসম্পাদকএড. প্রতাপরায়বলেন, ইউনিয়নটিকেমাদকমুক্তএকটিসুন্দরপরিচ্ছন্নইউনিয়নজনগণকেউপহারদেয়ারলক্ষ্যেআমিকাজকরছি।ইউনিয়নপরিষদেগত২মাসে২টিমাদকবিরোধীসমাবেশকরেছি।

ডুমুরিয়াথানারঅফিসারইনচার্জমোহাম্মদহাবিলহোসেনবলেন, মাদকেরব্যাপারেআমারপ্রশাসনজিরোট্রলারেন্সেআছে।যেখানেমাদকসেখানেইপ্রতিরোধ।মাদকেরব্যাপারেকাউকেকোনপ্রকারছাড়দেয়ারসুযোগনেই।

জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) সজীব খাঁন বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত আছে। মাদকের সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারপূর্বক আইনের আওতায় নিয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।