নারী পাচার মামলায় ইউপি সদস্য কারাগারে


প্রকাশিত : এপ্রিল ২৫, ২০১৮ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: নারী পাচার মামলায় সদর উপজেলার ৫নং শিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শফিকুল ইসলাম (৪৮) কে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে তাকে শিবপুরের পায়রাডাঙা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়। ২০১৭ সালের জুন মাসে শফিকুল ইসলাম বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেখিয়ে একই উপজেলার (৩০) এক মহিলাকে ভারতে পাচার করে বলে অভিযোগ ওঠে। শফিকুল ইসলাম সদর উপজেলার কুশখালি বর্ডার দিয়ে তাকে ভারতে পাচার করেন মামলায় অভিযোগ করা হয়। পাচারের ৬ মাস পর ঐ মহিলা বাড়িতে ফোন করে জানায়, শফিকুল ইসলাম তাকে ভারতে বিক্রয় করেছে এবং তাকে দিয়ে নিষিদ্ধ কাজ করতে বাধ্য করছে।

ঐ মহিলার ছেলে জানায়, তার মা ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে বাড়িতে একবার ফোন করেছিল। ফোনে তিনি বলেন, ‘শফিকুল আমাকে ভারতে বিক্রি করেছে’। তারপর আর কখনো তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তখন সাগর হোসেন শফিকুলসহ ৬ জনকে আসামী করে থানায় মামলা করে। মামলার আসামীরা হলেন, পায়রাডাঙা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম, তেতুলতলা গ্রামের মৃত রজব আলির ছেলে ওবায়দুর হোসেন মানি, পরাণদাহ গ্রামের নুর হোসেনের ছেলে আজহারুল ইসলাম, পায়রাডাঙা গ্রামের মোজ্জাম্মেল হকের ছেলে ওদিদুর রহমান পান্না, একই গ্রামের জিয়াদ আলির ছেলে ওসিকুর রহমান ও ভারতের নাগরিক, পায়রাডাঙায় বসবাসকারি আবুল বাশার মোল্লা।

সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক শরিফুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নারী পাচার মামলার অভিযুক্ত আসামী শফিকুল ইসলামকে সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।