ঝাউডাঙ্গায় পুলিশ পরিচয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ


প্রকাশিত : মে ১২, ২০১৮ ||

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: পুলিশ পরিচয় দিয়ে ঝাউডাঙ্গা এলাকায় ব্যাপকহারে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে গত কয়েক দিনে কমপক্ষে ১০জনের নিকট থেকে চাঁদা আদায় করা হয়েছে

একটি দায়িত্বশীল সুত্র জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার গোবিন্দকাটী গ্রামের তালসারি এলাকায় সাদ্দাম নামে এক যুবক মাঠ থেকে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে একই এলাকার কালাম, জিয়ারুল পাথরঘাটা এলাকার সহিদুল তাকে আটক করে এরপর বলে তোমার বিরুদ্ধে মাদক বিক্রির অভিযোগ আছে পুলিশ সদস্য প্রবীর তোমাকে পাশে ডাকছে সে যেতে রাজি না হলে তাকে জোর করে তার কাছে নিয়ে যেয়ে ১০হাজার টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয় বাজারের চা বিক্রেতা কালিপদ ঘোষকে সম্প্রতি পুলিশ পরিচয় দিয়ে একটি সাদা রঙের মাইক্রোবাস তার দোকানের সামনে দাঁড়ায় সময় গোয়েন্দা সংস্থার লোক পরিচয় দিয়ে তাকে আটক করে সংস্থার সদস্যরা তাকে বলেন, তক্ষক সাপ রয়েছে তোমার কাছে সময় পাথরঘাটা গ্রামের একাধিক মাদক মামলার আসামি মাদকের ডিলার আছাদুল ইসলাম ঘোষপাড়া এলাকার সজল ঘোষ তাকে জোরপূর্বক তুলে নেয় পরে তার কাছ থেকে ১৭ হাজার টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়

একই এলাকার পুলিশ পরিচয় দিয়ে পঙ্কজ সরকারকে আটক করে ৩০ হাজার টাকা আদায় করা হয় পুলিশ পরিচয় দিয়ে মাদ্রাসা এলাকায় বাল্যবিবাহ দেওয়ার অভিযোগে শুকুর আলী নামে একজনকে আটক করে তার কাছ থেকে ৭হাজার টাকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় হাজিপুর গ্রামের সাহাজানকে আটক করে ১৫ হাজার টাকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ না থাকলেও সে বিদেশ থেকে বাড়ি ফিরেছেএমন অভিযোগে তাকে আটক করা হয় এলাকাবাসি জানায়, এলাকার কালাম, জিয়ারুল, আসাদুল এরাই মাদক ব্যবসায়ী রাত হলে এরা পুলিশ পরিচয় দিয়ে এলাকার নিরীহ সাধারণ মানুষকে আটক করে পরে উৎকোচ নিয়ে ছেড়ে দেয় ব্যাপারে সদর থানার ওসি মারুফ আহমেদ জানান, এসব ব্যাপারে কেউ থানায় অভিযোগ নিয়ে আসেনি পুলিশ পরিচয় দিয়ে যদি কেউ নিরীহ মানুষকে হয়রানী করে এবং চাঁদাবাজী করে থাকে সে ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে