কেশবপুরে আটক ইয়াবা ব্যবসায়ী মিলনের বিরুদ্ধে চিংড়া বাজার কমিটির সাংবাদিক সম্মেলন


প্রকাশিত : মে ৩০, ২০১৮ ||

 

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি: কেশবপুরে পুলিশের হাতে আটক সন্ত্রাসী ও ইয়াবা ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম মিলন ও তার সহযোগী পিতা-ভাইয়ের বিরুদ্ধে চিংড়া বাজার কমিটি সাংবাদ সম্মেলন করেছে।

সোমবার সকালে চিংড়া বাজার কমিটির পক্ষে সদস্য আজগার আলী সাংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে বলেন, চিংড়া গ্রামের পেশাদার চোর নামে পরিচিত শেখ শওকাত আলী, তার দুই ছেলে সন্ত্রাসী ও মাদক স¤্রাট খ্যাত রফিকুল ইসলাম ওরফে মিলন ও বিল্লাল হোসেন ওরফে বিলুর অত্যাচারে বাজারের সাধারণ ব্যবসায়ীরা হয়রানীর শিকার হচ্ছে। এই চক্রটি চলতি বছরের ৪মে বিষ্ণুপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের চিংড়া বাজারে কসমেটিকের দোকানে কৌশলে ১১ পিস ইয়াবা,  ৫ মে  চিংড়া  গ্রামের নাজমুল হোসেনের চিংড়া বাজারের চায়ের দোকানে ১২ পিস ইয়াবা, ২৫ মে কুখ্যাত মিলন ওই বাজারের সাঈদুর রহমানকে ফাঁসাতে তার বাড়িতে ৮ বোতল ফেন্সিডিল রাখার ঘটনায় সে নিজেই ফেঁসে গেল। গত ২৬ মে সে গভীর রাতে পুলিশের হাতে আটক হয়। এছাড়া মিলন ও তার ভাই বিলু ও পিতা শওকাত আলীর  বিরুদ্ধে কেশবপুর থানাসহ বিভিন্ন থানায় হত্যা, চেক জালিয়াতি, চুরি,ডাকাতি, ছিনতাইসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে সাংবাদিক সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়।

বাজার কমিটির সভাপতি আজাহারুল ইসলাস মানিক জানান, গত ১৭ মার্চ চিংড়া বাজারের মনিরুজ্জামান বাবু, রহমত উদ্দিন ও মফিজুরের দোকান চুরির ঘটনায় বাজার কমিটি শালিশের মাধ্যমে উক্ত মিলন, বিলু ও তার পিতা শওকাতের কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে।

সাংবাদ সম্মেলনে ব্যবসায়ীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নজরূল ইসলাম, সুজন, মাহাবুর রহমান, উজ্জল হোসেন, জাহিদুল ইসলাম শিমুল, শেখ সুহাগ,কাজী মুন্না, মিন্টু শেখ, মফিজুর রহমান গাজী, কামরুল, শাহাদাত আমজেদসহ ৩০ জন ব্যবসায়ী। তাদের হয়রানীর হাত থেকে প্ররিত্রাণ পেতে উপস্থিত ব্যবসায়ীরা অবিলম্বে আটক মিলনের ভাই বিলু ও পিতা শওকাত আলীকে গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানান।