কালিগঞ্জে তালাকপ্রাপ্ত নারীর যৌতুকের মামলায় আরেক নারী জেল হাজতে


প্রকাশিত : মে ৩১, ২০১৮ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: যৌতুকের মামলায় হেরে যাওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে দেন দরবার করে সুবিধা করতে না পেয়ে তালাক দেওয়া স্বামীর বাসায় জোরপূর্বক কিছুক্ষণ অবস্থান করে পরিকল্পিত যৌতুকের মামলায় এক নারী বিনা অপরাধে জেল হাজতে রয়েছেন। কালিগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের মুকুন্দ মধুসূধনপুর গ্রামের ঘটনা এটি। অভিযোগ, গৃহকত্রীর অভিযোগ পেলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নিয়ে প্রতারক খালেদার পক্ষ নিয়ে মিথ্যা মামলায় মুরশিদা খাতুন নামের এক নারীকে জেলে পাঠিয়েছে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, কালিগঞ্জ উপজেলার মুকুন্দ মধুসুধনপুর গ্রামের মোসলেম মোড়লের ছেলে মাসুম বিলাহ ছোটনের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী কোমরপুর গ্রামের শেখ আব্দুল খালেকের মেয়ে খালেদা খাতুনের ২০১৪ সালের ১১ জুন বিয়ে হয়। ২০১৫ সালের পহেলা মার্চ তাদের মধ্যে তালাক হয়ে গেলে খালেদা বাদি হয়ে ছেলে মাসুম ও তার নামে ২০১৫ সালের ২২ জুন আদালতে যৌতুকের মামলা করে। ২০১৬ সালের ২২ নভেম্বর মামলা খারিজ হয়ে যায়। মামলা খারিজ হওয়ার পর খালেদা ও তার পরিবারের লোকজন তাদেরকে (ফরিদা) নানাভাবে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়। এরপরও যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে খালেদা ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর কালিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দায়ের করে তাদের বিরুদ্ধে। চলতি বছরের ৪ জানুয়ারি অভিযোগ খারিজ করে দেন উপজেলা চেয়ারম্যান। এরপর তারা আবারো বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদে একই বিষয়ের উপর অভিযোগ করে নতুন করে হয়রানির পরিকল্পনা করলে তিনি গত ২১ মে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তার পরিবারের সদস্যদের অহেতুক হয়রানির হাত থেকে রক্ষা পেতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।