খুলনায় বাল্য বিবাহ নির্মূলে গোল টেবিল বৈঠক


প্রকাশিত : জুন ২, ২০১৮ ||

পত্রদূত ডেস্ক: সাতক্ষীরা জেলায় বাল্য বিবাহের হার তুলনামূলকভাবে অন্যান্য জেলার চেয়ে বেশি। এ জেলায় বাল্য বিবাহরোধে করণীয় এবং ১৮ বছরের আগে যাতে বিয়ে না হয় সে জন্য গৃহীত কার্যক্রম ঠিক করার উদ্দেশ্যে ৩১ মে সকাল ১০টায় সিএসএস আভা সেন্টারে ‘নবযাত্রা’ প্রকল্প একটি গোল টেবিল বৈঠক করেছে। খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মোহাম্মদ ফারুক হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ কমিশনার সোনালী সেন।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, খুলনা বিভাগগের সকল উপজেলাকে পর্যায়ক্রমে বাল্য বিবাহমুক্ত ঘোষণা করা হবে। এটি সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। এজন্য জনগণকে সরকারের সাথে একত্রে কাজ করতে হবে। সভাপতির বক্তৃতায় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, শুধু আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও প্রশাসনের মাধ্যমে বাল্য বিবাহ বন্ধ করা সম্ভব নয়, প্রয়োজন মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা। আমরা আমাদের সকলের নিজ নিজ অবস্থান থেকে বাল্য বিবাহ নিরোধের জন্য কাজ করবো।
বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার সোনালী সেন বলেন, যে কারনে বাল্য বিবাহ হচ্ছে সেসব কারণ ও প্রয়োজন অনুযায়ি আমাদের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। কোথাও বাল্য বিবাহ হলে সাথে সাথে তা পুলিশকে জানাতে হবে। সবাইকে সম্মিলিতভাবে বাল্য বিবাহ বন্ধে সোচ্চার হতে হবে।
অনুষ্ঠানে মতামত ব্যক্ত করেন খুলনা কালেক্টরেটের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার শেখ নুরুল আলম ও জান্নাতুল আফরোজ স্বর্ণা, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান ডিসিপ্লিন এর সহযোগি অধ্যপক ড. সেলিনা আহমেদ। মতামত ব্যক্ত করেন সাংবাদিকবৃন্দ, মানবাধিকার কর্মী, নারীনেত্রীবৃন্দ, বিবাহ নিবন্ধক, এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ। উপস্থিত ছিলেন সর্দার জাহাঙ্গীর হোসেন, মোহাম্মদ নুরুল আলম রাজু, তাসনুভা জামান, তৌহিদুল আলম, এবং মোক্তার হোসেইন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মো. আশিক বিল্লাহ।