আলবেদা মাহে রমজান: কদরের রাতে করণীয়


প্রকাশিত : জুন ১১, ২০১৮ ||

সাখাওয়াত উল্যাহ: আজ ২৫ রমজান সোমবার। বিদায়ের দ্বারপ্রান্তে মাহে রমজান। সহি বর্ণনা অনুযায়ী শেষ দশকের বিজোড় আজকের এ রাতটির গুরুত্ব কম নয়। বিজোড় রাতেই সংগঠিত হয়েছে লাইলাতুল কদর। আর কদরের রাতেই নাযিল হয়েছে মহাগ্রন্থ আল কোরআন।
শবে কদরে আমাদের করণীয়: শবে কদরের মত আর একটি রাত যেহেতু নেই, সেহেতু ওই রাতটিকে সমধিক গুরুত্ব দেয়া ঈমানদার ব্যক্তিদের দায়িত্ব। এ রাতের মূল্যবান মূহূর্তগুলোকে কাজে লাগানো উচিত। বস্তুত ভাগ্যবান তারাই যারা এ রাতকে ইবাদত-বন্দেগীতে অতিবাহিত করতে সক্ষম হয়। এ রাতে আমাদের করণীয়গুলো নি¤œরূপ:
১। কদরের রাতে অধিক পরিমাণ কুরআন তিলাওয়াত করা। যেহেতু এ রাতটি কুরআন নাযিলের রাত।
২। বিগত জীবনের গুনাহ গুলোর কথা স্মরণ করে অঝোর নয়নে কান্নাকাটি করা। দু’আ মুনাজাত করা। কেননা, মহান আল্লাহ এ রাতে সিদরাতুল মুনতাহার বিশেষ ফেরেশতাদেরকে দায়মুক্ত করে হযরত জীব্রাইল আমীনের নেতৃত্বে এ পৃথিবীতে প্রেরণ করেন। তাঁর নেতৃত্বে এ রাতে অসংখ্য ফেরেশতার আগমন ঘটে এবং তারা দু’আ মুনাজাতে ‘আমিন’ বলতে থাকেন।
৩। রাসূলে করীম (সা.) এর প্রতি মন খুলে দরুদ ও সালাম পেশ করা। কারণ যতবেশি দরুদ ও সালাম হবে ততবেশি দু’আ কবুল হবে এবং গুনাহ মাফ হয়ে যাবে।
৪। যিকির-আযকারে ব্যস্ত থাকতে হবে। আল্লাহ আল্লাহ যিকির করতে হবে এবং কালেমা তইয়্যেবার যিকির করতে হবে।
৫। নফল নামায, তাহাজ্জুদ, সালাতুল হজ্জ্ব, সালাতুত তাসবীহ পড়ার চেষ্টা করতে হবে।
৬। আল্লাহকে খুশী করার জনত্য বিন¤্র ও অত্যাধিক বিনয়ী হয়ে ইবাদত করতে হবে।
৭। মদ-জুয়া ছেড়ে দেয়ার চেষ্টা করতে হবে এবং ছেড়ে দেওয়ার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে তওবা-ইসতেগফার করতে হবে। কেননা তওবাকারী নিষ্পাপ শিশুর মত হয়ে যায়। নবী করীম (সা.) বলেছেন: ‘গুনাহ থেকে তওবাকারী এমন, যেমন সেই ব্যক্তি যার কোন গুনাহ নেই।’
৮। মা-বাবার সাথে মনোমালিন্য থাকলে তার জন্য ক্ষমা চেয়ে নেয়া।
৯। যার সাথে শত্রুতা বশত অথবা রাগবশত তিন দিনের বেশি কথা বলা বন্ধ আছে তার সাথে কথা বলা চালু করা।
১০। সুদ-ঘুষের থেকে চিরতরে তওবা করে তাকওয়ার অনুশীলন করা।
১১। প্রত্যহ পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায়ের অঙ্গীকার করা এবং রমযানের রোযাগুলোকে আদবের সাথে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া।
১২। সামর্থ অনুযায়ী দান-খয়রাত করা।
১৩। সাদাকাতুল ফিতর আদায় করা।
১৪। সালাম চর্চা করা।
১৫। মাগরিব থেকে ফজর পর্যন্ত ইবাদতে নিজেকে ব্যস্ত রাখা।