কালিগঞ্জে একই পরিবারের ৫ জনকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকারসহ ৬ লক্ষাধিক টাকার মালপত্র চুরি


প্রকাশিত : জুন ১১, ২০১৮ ||

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে খাদ্যদ্রব্যের সাথে চেতনানাশক মিশিয়ে ও স্প্রে করে একই পরিবারের ৫ জনকে অজ্ঞান করে নগদ টাকাসহ ৬ লক্ষাধিক টাকার মালপত্র চুরি করেছে দুর্বৃত্তরা। রবিবার দিবাগত রাতে উপজেলার তারালী ইউনিয়নের আমিয়ান গ্রামে এই চুরির ঘটনা ঘটে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আমিয়ান গ্রামের সুদাম ঘোষের ছেলে ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মিলন কুমার ঘোষ (৪৮) জানান, রবিবার রাত ১০ টার দিকে তিনি, তার ছেলে ৭ম শ্রেণির ছাত্র মনিষ ঘোষ (১৩) ও তার বাবা সুদাম ঘোষ (৮৬) রাতের খাবার খেয়ে ঘুমাতে যান। খাবারের সাথে চেতনানাশক থাকার কারণে অল্পক্ষণের মধ্যে তারা জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। একাদশী ব্রত পালন করার কারণে তার মা উষা রাণী ঘোষ (৭৫) ও স্ত্রী মালঞ্চী ঘোষ (৪০) খাবার না খেলেও চেতনানাশক স্প্রেতে অজ্ঞান হয়ে যান। এক পর্যায়ে সকাল সাড়ে ৫ টার দিকে মালঞ্চী ঘোষ চেতনা ফিরে পাওয়ার পর ঘরের আলমারি ভাঙা ও জিনিসপত্র তছনছ অবস্থায় দেখতে পান। এসময় পরিবারের অন্যরা অজ্ঞান থাকায় প্রতিবেশীদের সহায়তায় তাদের দ্রুত কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। মালঞ্চী ঘোষ জানান, দুর্বৃত্তরা তার শয়নকক্ষের স্টীলের আলমারি ভেঙে ১১ ভরি স্বর্ণালংকার, ২ টি এন্ড্রয়েডসহ ৪ টি মোবাইল, ৪০ হাজার টাকা ও প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র নিয়ে বাইরে থেকে দরজায় তালা লাগিয়ে চলে গেছে। অপর একটি কক্ষ থেকেও কিছু জিনিসপত্রসহ মোট ৬ লক্ষাধিক টাকা চুরি হয়েছে বলে তিনি জানান।
কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক কামরুল হাসান জানান, চেতনানাশক প্রয়োগের ফলে তারা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে তারা এখন শংকামুক্ত।
থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান হাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।