পত্রদূতে সংবাদ প্রকাশের পর গোল্ডেন বাবলু ও তার সহযোগিদের দৌড়ঝাপ শুরু


প্রকাশিত : জুলাই ১৯, ২০১৮ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: ২০১৩ সালের গাছকাটা, রাস্তাকাটা, টায়ার জ্বলানো, ঘর জ্বালানো এমন অপরাধ নেই যা গোল্ডেন বাবলু করেনি। অপরাধ জগতের এক ভয়ঙ্কর মূর্তিমান আতঙ্ক সেই গোল্ডেন বাবলু নাকি পুলিশের সোর্স। তাই যদি হয় তাহলে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা কোথায় ? এমন প্রশ্ন এলাকার শতশত মানুষের। শুধু তাই নয়, বিষ একই রেখে কোম্পানী চেঞ্জ করেছেন তিনি। নিজের অপরাধ ঢাকতে সরকার দলীয় এক নেতার আস্কারা পেয়ে নাকি আগের চেয়ে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন তিনি। দৈনিক পত্রদূত্র পত্রিকায় গোল্ডেন বাবলু ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে মাদক অপরাধ কর্মকান্ড সংবাদ প্রকাশ হবার পর বাবলু ও তার সহযোগিরা দৌড়ঝাপ শুরু করেছে। যুবদলের নেতা, নাশকতার মামলার আসামী, মাদককারবারী, টাকা ও গোল্ড ছিনতাইকারী গোল্ডেন বাবলু ও তার সহযোগিরা অপরাধ ঢাকতে এখন পুিলশের সোর্সসহ পরিচয় দিচ্ছে বলে এলাকাবাসি জানান। এলাকাবাসিরা জানান, বাবলু ভাড়া মাক্রোবাস গাড়ি চালক থেকে ২০০১ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিএনপির যুবদলে যোগদান করেন। এরপর জড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন ছত্রছায়ায় মাদক কারবারী, ছিনতাইকারীতে। এরপর ২০১৩ সালে বর্তমান সরকারের বিগত নির্বাচনী বানচাল করার জন্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর উপর হামলা, বাড়িঘর ভাংচুর, সাধারণ মানুষের উপর হামলা, পথচারী, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উপর হামলা চালিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল বলে এলাকাবাসির অভিযোগ। বাবলু ভাড়াটি মাইক্রোবাসের চালক থেকে এখন নানা ধরনের অপরাধমুলক কর্মকান্ড মাদককারবারী, টাকা ও গোল্ডেন ছিনতাইকারী সাথে জড়িয়ে পড়েছে। এসব অপরাধ কর্মকান্ড ঢাকতে বাবলু উপরে মহলে ম্যানেজ করে চলে। বাবলুর ও তার সহযোগিরা এলাকার সাধারণ মানুষের অতিষ্ট করে তোলে। বাবলুর ও তার সহযোগিদের অত্যাচারে এলাকার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। এলাকবাসি গোল্ডেন বাবলুর অত্যাচার থেকে রেহাই চেয়ে সংবাদ প্রকাশের অনুরোধ জানিয়েছে।