ডিজিটাল বাজারেও বিক্রি হচ্ছে কোরবানির পশু


প্রকাশিত : আগস্ট ১৯, ২০১৮ ||

বিশেষ প্রতিনিধি: ডিজিটাল যুগে পদার্পণ করেছে আমাদের দেশ এবং ডিজিটাল সুবিধা পাচ্ছে আমাদের দেশের মানুষ। দেশের মানুষ বর্তমানে ঘরে বসেই পাচ্ছে বিভিন্ন ধরণের নাগরিক সুবিধা। সবাই চাচ্ছে ব্যস্ততম জীবনে সব থেকে সহজ সমাধান। সহজ সমাধানের জন্য দেশে গড়ে উঠেছে বেশ কিছু ই-কমার্স সাইট। এই সাইট গুলোর মাধ্যমে জনসাধারণ ঘরে বসেই পাচ্ছে তাদের নিত্য প্রয়োজনীয় সকল জিনিসপত্র। ক্রেতা সাধারণের চাহিদার কথা মাথায় রেখে দিন দিন এই ডিজিটাল বাজারের পরিধি বেড়েই চলেছে। আসন্ন কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে বর্তমানে ডিজিটাল বাজারেও বিক্রি হচ্ছে কোরবানির পশু।

একসময় কোরবানি ঈদের আগে বিভিন্ন এলাকায় কোরবানি হাটের মাইকিং দূর থেকে ভেসে আসত। কোরবানির পশু ক্রয়ের আগে চলতো পছন্দ মতো পশু নির্বাচন প্রক্রিয়া। এরপর দামাদামিতে মিলে গেলেই কেনা হত কোরবানির পশু। এই প্রচলন এখনো আছে। কিন্তু সেই সাথে যুক্ত হয়েছে কিছু আধুনিক পদ্ধতি। বর্তমানে অনলাইনেও পাওয়া যাচ্ছে কোরবানির পশু। যারা পশুর হাটে যাওয়ার ঝক্কি এড়াতে চান তাদের জন্য থাকছে এই বিকল্প পদ্ধতি। অনলাইনে অর্থাৎ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কোরবানি পশু কেনার সুব্যবস্থা।

অনলাইনে পশু বিক্রির সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে বিক্রয় ডট কম, বেঙ্গল মিট, আমার দেশ ই-শপ, ক্লিক বিডি, কেইমু ডট কম ডট বিডি। গত তিন বছর ধরে অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি করছে দেশের অন্যতম রেডিমেড মাংস বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান বেঙ্গল মিট। কোরবানির পশু জবাই থেকে প্রক্রিয়াজাতকরণের ব্যবস্থাও করছে প্রতিষ্ঠানটি। এ বছর ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট জেলার ক্রেতাদের পশু সরবরাহ করছে এ প্রতিষ্ঠান। বেঙ্গল মিটের মাধ্যমে ক্রেতা সাধারণ সম্পূর্ণ স্টোরয়েডমুক্ত, রোগমুক্ত, স্বাস্থ্যবান কোরবানি পশু পাবেন ঘরে বসেই।

ই-কমার্সের জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান বিক্রয় ডটকমের ওয়েবসাইটে রয়েছে ৬০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত মূল্যের গরু। ১০ হাজার থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকার মধ্যে রয়েছে ছাগল। গ্রাহকরা কেনার আগে তাদের প্রত্যাশিত পশুটিকে খামারে সরাসরি দেখেও আসতে পারেন।

শুধু কোরবানির গরুই নয়, ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান দিচ্ছে কসাই পাওয়ার সুযোগও। সেবা ডট এক্সওয়াইজেড নামে প্রতিষ্ঠানের কসাই দেওয়ার ধরন হচ্ছে-গ্রাহকের কেনা পশুর মূল্যের ওপর হাজারে তিনশ টাকা নেওয়া হবে। এ সেবা দেওয়া হচ্ছে শুধু রাজধানীতেই। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ও পাওয়া যাচ্ছে কসাই।  ফেসবুক ‘বুচার শপ কসাই সাপ্লাই’ নামক একটি পেজ থেকেও কসাই সেবা দেওয়া হচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানের সেবাও ঢাকায় সীমাবদ্ধ। এ প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহকের পশুর মূল্যের ওপর প্রতি হাজারে নিচ্ছে ২০০ টাকা করে। তথ্য প্রযুক্তিতে দেশ উন্নত হওয়ায় আধুনিক ডিজিটাল সেবা পাচ্ছে দেশের জনগণ।