শ্যামনগরে অপহরণ নাটকের ভিকটিম আটক


প্রকাশিত : আগস্ট ২৯, ২০১৮ ||

শ্যামনগর (সদর) প্রতিনিধি: শ্যামনগরে অপহরণ নাটকের ভিকটিম মোমিনুর রহমান মোমিন (৩২) কে ৫বছর পরে আটক করে পুলিশের নিকট সোপার্দ করেছে স্থানীয়রা। মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে তার নিজের বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা তাকে আটক করে। সে উপজেলার ভুরুলিয়া ইউনিয়নের নাগবাটী গ্রামের ওহাব গাজীর ছেলে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, নিজের ছেলের অপহরণের মিথ্যা নাটক সাজায় মোমিনের পিতা ওহাব গাজী। এই অপহরণের নাটক সাজিয়ে ২০১৩ সালের ১০ জানুয়ারি ওহাব গাজী বাদী হয়ে একটি অপহরণের মামলা দায়ের করে শ্যামনগর থানায়। এই মামলার আসামী করা হয় উপজেলার আবাদচন্ডীপুর গ্রামের এরশাদ আলীর ছেলে আবুল বাসার, এরশাদ আলী, তাহের আলী ও প্রতিবেশি জহুর আলী গাজীর স্ত্রী ফরিদা খাতুনকে। পরবর্তীতে আসামীরা জামিনে মুক্তি পেয়ে সন্ধান করতে থাকে মোমিনের অবস্থান সর্ম্পকে। লুকিয়ে থাকায় তার সন্ধান পাওয়া অনেক দুরূহ হয়ে ওঠে। ভিকটিম মোমিন মাঝে মাঝে গভীর রাতে নিজের বাড়িতে আসলেও ভোর না হতেই সে পালিয়ে চলে যেত বলে জানান স্থানীয় আবুল কাশেমসহ আরো অনেকে। অবশেষে ৫ বছর পালিয়ে থাকার পরে মঙ্গলবার ভোরে তার নিজের বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার আগেই পথে মধ্যে মোমিনকে আটক করে রেখে থানায় খবর দেয় এলাকাবাসি। পরবর্তীতে শ্যামনগর থানার এসআই রোকন তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। স্থানীয় কালাম, সোহেল, আমিনুরসহ অনেকে বলেন, জমি-জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের কারণে মিথ্যা মামলা করে বিবাদীদের জেল খাটিয়েছে মোমিনের পরিবার। শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইলিয়াস হোসেন (পিপিএম) মোমিনের আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ২০১৩ সালের ৬নং মামলার ভিকটিমকে এলাকাবাসি আটক করে থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং পরবর্তীতে আদালতে প্রেরণ করে।