ডুমুরিয়ায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে যুবতীর অনশন


প্রকাশিত : আগস্ট ৩১, ২০১৮ ||

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি: ডুমুরিয়ার পল্লীতে বিয়ের দাবি নিয়ে এক যুবতী তার প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে দুই দিনব্যাপি অনশন পালন করছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার রাতে উপজেলার সাহস ইউনিয়নের খরশন্ডা গ্রামে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
জানা গেছে, উপজেলার সাহস ইউনিয়নের খরশন্ডা গ্রামের মৃত ফকরুল ইসলামের ছেলে ফরিদ উদ্দিন রুবেলের (২২) সাথে পাশের বাগদাড়ি গ্রামের মৃত নুরুল ইসলাম খানের মেয়ে আয়শা খাতুন রানি (২০) প্রায় দেড় বছর আগে প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। রুবেল খরশন্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারি এবং রানি বানিয়াখালি ব্র্যাক অফিসে কাস্টমার সার্ভিস ফ্যাসিলেটার পদে চাকরি করে। কিন্তু তাদের প্রেমজ সম্পর্কটিতে উভয় পরিবারের পক্ষ থেকে আপত্তি ছিল বলে জানা যায়। তারপরও রুবেল-রানি গোপনে মেলামেশা অব্যাহত রাখে। এক পর্যায়ে গত বুধবার বিকেলে মোটরসাইকেল যোগে ওই প্রেমিক-ঝুটি অজানার উদ্দেশ্য পাড়ি জমায়। পরে রাত ৯টার দিকে রানি বাড়িতে এলে তার মা তাসলিমা বেগম বিষয়টি জানতে পেরে মেয়েকে রুবেলদের বাড়িতে উঠিয়ে দিয়ে আসে। আর যুবতী রানীও এখন বিয়ের দাবিতে দুই দিন ব্যাপি ওই বাড়িতে অবস্থান করছে। এ বিষয়ে আয়শা খাতুন রানি সাংবাদিকদের বলেন, ওর সাথে আমার অনেক দিনের সম্পর্ক। তবে আমার পরিবার এটা মেনে নেয়নি কখনও। তারপরও আমরা সম্পর্ক ঠিক রাখি। এখন আর আমাকে বাড়িতে স্থান দিচ্ছে না। তাই রুবেলের সাথে বিয়ে করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই। রুবেলের ভাই মাসুদ জানান, ওই মেয়েটির আগে এক জায়গায় বিয়ে ছিল। আমার ভাইকে মিথ্যাভাবে ফাঁসানোর জন্য এ ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।