শ্যামনগরে শিক্ষক আব্দুর রউফের বিরুদ্ধে অভিযোগ


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮ ||

শ্যামনগর প্রতিনিধি: শ্যামনগরে দক্ষিণ শ্রীফলকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুর রউফের বিরুদ্ধে বিদ্যালয় আগমন প্রস্থানে অনিয়মিত, বীমা কর্মকর্তা সেজে অনৈতিক আচরণসহ নানা অভিযোগ পাওয়া গেছে। শ্যামনগর উপজেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর অভিযোগটি দায়ের করেন হাওয়ালভাঙ্গি গ্রামের মুজিবর রহমান সরদারের পুত্র রঈসুল ইসলাম। অভিযোগ সূত্রে প্রকাশ, দক্ষিণ শ্রীফলকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুর রউফ নিয়মিত প্রতিষ্ঠানে আগমন প্রস্থান করেন না। অথচ শিক্ষক হাজিরা খাতায় তঞ্চকতা করে প্রধান শিক্ষককে ভুল বুঝিয়ে উপস্থিতির স্বাক্ষর করেন। তিনি সরকারি চাকুরিজীবী হওয়া সত্বেও ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইনস্যুরেন্স (বীমা) কোম্পানী শ্যামনগর শাখার একজন কর্মকর্তা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত না গিয়ে সর্বদা বীমার কাজে ব্যস্ত থাকায় লেখাপড়ার পরিবেশ বিঘœ হচ্ছে। সর্বদা বীমার কাজ নিয়ে টেনশনে থাকায় কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের যথাযথ পাঠদান করতে না পারায় লেখাপড়ায় ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এদিকে গত ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে হাওয়ালভাঙ্গি বাজারে অবস্থিত মেসার্স রবিউল কৃষি বিতানে প্রকাশ্যে হামলা চালানোর অনৈতিক কার্যক্রমের ঘটনা ঘটায় উক্ত আব্দুর রউফ। বীমা সংক্রান্ত কাজে বিরোধ দেখিয়ে সরকারি চাকরিজীবী আব্দুর রউফ এধরনের কাজ করেন এবং প্রকাশ্যে রঈসুল ইসলামকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে লাঠি দ্বারা মারতে উদ্যত হন। এ দিকে স্থানীয়রা জানান, মাষ্টার আব্দুর রউফ সর্বদা বীমা কাজে ব্যস্ত থাকেন এবং লোকদের ভুল বুঝিয়ে ও সাধারণ মানুষকে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে বীমা ফরমে স্বাক্ষর, টিপ সহি নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে মাষ্টার আব্দুর রউফ বীমা সংক্রান্ত বিরোধে কথা স্বীকার করেন। একজন সরকারি চাকরিজীবী এধরনের কার্যকলাপের জড়িত থাকায় আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।