পাইকগাছায় শ্মশান ও কালীমন্দিরের জায়গার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৮ ||

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: পাইকগাছার পাতড়াবুনিয়া শ্মশান ও কালীমন্দিরের জায়গার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। বুধবার সকালে দু’পক্ষের উপস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল আউয়াল এ স্থাপনা অপসারণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, গড়ইখালীর তহশীলদার নুরুল ইসলাম, কয়রা আমাদীর ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান প্রশান্ত বাইন, ইউপি সদস্য বিপুল মন্ডল, কলেজ শিক্ষক শক্তিপদ মন্ডল, সার্ভেয়ার সাকিরুলসহ দুটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দ। উল্লেখ্য, গত ১৫ আগস্টে শুড়িখালী বাজারের পার্শের্^ গড়ইখালীর পাতড়াবুনিয়ার সার্বজনীন শ্মশান ও কালীমন্দিরের জমি ক্রয় সূত্রে স্থানীয় আছাদুল ও ফরহাদ গাইন দখল করে। বিরোধপূর্ণ এ জমিতে ১৩টি টিনসেডের ঘর নির্মাণ করলে বিরোধ দেখা দেয়। এ নিয়ে দুটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দ ইউএনও’র কাছে অভিযোগ করলে তিনি ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ দেন। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়ে এলাকাবাসির ডাকে রবিবার বিকেলে মন্দির চত্তরে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। কালীমন্দিরের সভাপতি সুকুমার মন্ডল ও সম্পাদক প্রশান্ত মন্ডল জানান, সমাবেশের পর রাতে ফরহাদরা ঘরের কাঠামো রেখে টিনের ছাউনি, বেড়াসহ বেশিরভাগাংশ ভেঙে ফেলে দিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শনের করে ওসি আমিনুল বিপ্লব বলেন, ফরহাদ গাইন ভাংচুরের অভিযোগ এনে দুটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দের নামে অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত ইউএনও ও এসিল্যান্ড মো. আব্দুল আউয়াল বলেন, বুধবার সকালে ঘটনাস্থলে পৌছিয়ে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে দু’পক্ষকে শান্তিপুর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।