দেবহাটার হিজলডাঙ্গায় প্রতিপক্ষের হামলায় গ্রাম পুলিশসহ আহত ৪


প্রকাশিত : অক্টোবর ৫, ২০১৮ ||

দেবহাটা সংবাদদাতা: দেবহাটার হিজলডাঙ্গায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় গ্রাম পুলিশসহ তিন নারী আহত হয়েছে। বর্তমানে তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনায় গ্রাম পুলিশ বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে কুলিয়া ইউনিয়নের হিজলডাঙ্গা পুর্বপাড়ায়। জানা যায়, হিজলডাঙ্গা গ্রামের আশুতোষ সরকারের স্ত্রী আঙ্গুর দেবী বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে স্থানীয় একটি টিউবওয়েলে হাত মুখ ধোয়ার জন্য যায়। এসময় একই এলাকার স্বাধীন সরকারের স্ত্রী প্রিয়াংকার সাথে থুথু ফেলাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রিয়াংকা আঙ্গুর দেবীকে মারপিট করে চলে যায় এবং প্রিয়াংকার ভাশুর শান্তি রঞ্জন সরকারের স্ত্রী শিবানী রানী আবারো এসে তাকে মারপিট করে। বেলা সাড়ে ১১টার সময় উক্ত ঘটনা শুনে শান্তি রঞ্জন সরকার ও স্বাধীন সরকার ও তাদের স্ত্রীরা পুনরায় এসে বাড়িতে এসে মৃত হিরালাল পুলিনের পুত্র গ্রাম পুলিশ বিশ^জিৎ পুলিন, তার বোন ভবানী পুলিন, মা চিন্তা রানী ও আঙ্গুর দেবীকে ব্যপক মারপিট করে। এসময় তাদের আতœ-চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে তারা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এঘটনায় আহত গ্রাম পুলিশ বিশ^জিৎ পুলিন বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। এবিষয়ে শান্তি রঞ্জন সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন ব্যস্ত আছি পরে কথা বলবো। পরে আবারো তার কাছে জানার জন্য তার নাম্বারে ফোন দিলে তিনি স্থানীয় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের পরিচয়ে ফোন রিসিভ করান।