নাশকতা মামলার আসামী সাতক্ষীরা আহছানিয়া মিশনের কার্যকরী সদস্য জিএম মাহবুব গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা আহছানিয়া মিশন কার্যকরী কমিটির সদস্য জামাত নেতা মাহবুবর রহমান (৫০) কে নাশকতা মামলায় গ্রেপ্তার করেছে সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ। রবিবার দুপুরে শহরের সংগীতা সিনেমা হলের সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গ্রেপ্তার হওয়া মাহবুবর রহমান নাশকতা মামলার আসামি। তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা (নং ৫২ তাং-২২-০৯-২০১৮, ৩/৬ ধারায় ১৯০৮ সালের বিষ্ফোরক আইন ততসহ ১৫(৩)/২৫ ডি ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন) হয়েছে। এ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জিএম মাহবুবর রহমান মুনশিপাড়া এলাকার মৃত মোকছেদ আলীর পুত্র। তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা করা হয়েছে। উল্লেখ্য বিগত তিন বছর আগে নারী ঘটিত মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছিল, সে মামলার বাদী ছিল মুনশিপাড়া এলাকার জীবন পীর। এছাড়াও সে দীর্ঘদিন ধরে মিশনের অর্থআত্মসাৎসহ মিশনকে ব্যবহার করে জামাতের গোপন বৈঠক করে আসছিল। সেই সাথে ভুয়া ডাক্তার সেজে লাইসেন্সবিহীন ফার্মেসী চালিয়ে আসছিল। এছাড়াও সাতক্ষীরা আহছআনিয়া মিশনের কার্যকরী কমিটিতে মার্ডার কেসের আসামীসহ একাধিক জামাত সংশ্লিষ্ট সদস্য রয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এব্যাপারে এলাকার সচেতন মহল মনে করছেন খান বাহাদুর আহছান উল্লাহ (রহ.) এর প্রতিষ্ঠিত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নাশকতা মামলার আসামী ও মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের কমিটি থেকে বাদ দিয়ে মিশনের পবিত্রতা রক্ষার্থে পীর কেবলার আদর্শের মানুষদের দ্বারা নতুন কমিটি করা হলে প্রতিষ্ঠানটি রক্ষা পাবে বলে মনে করছেন।

যশোরের বর্ষীয়ান নেতা তরিকুল ইসলাম আর নেই

যশোর প্রতিনিধি: যশোরসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকার বর্ষীয়ান রাজনীতিক তরিকুল ইসলাম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার বিকেল পাঁচটার কিছু সময় পর তিনি মারা যান। গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় বেশ কিছুদিন আগে তাকে অ্যাপোলোতে ভর্তি করা হয়েছিল। তরিকুল ইসলামের ভাইপো ও যশোর পৌরসভার সাবেক মেয়র মারুফুল ইসলাম বিকেলে অ্যাপোলো হাসপাতালেই ছিলেন। সেখান থেকে বিকেল ৫টা ২০ মিনিটের দিকে তিনি বলেন, ‘এখন থেকে মিনিট দশেক আগে চাচা মারা গেছেন। মৃত্যুর সময় আমি তার কাছেই ছিলাম।’
যশোর নগর বিএনপি সভাপতি মারুফ জানান, রবিবার ডায়ালিসিস দেওয়ার সময় তরিকুল ইসলামের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। দুপুরের দিকে ডাক্তাররা নিশ্চিত করেন, ডায়ালিসিস দেওয়ার সময় তার ‘হার্ট অ্যাটাক্ট’ হয়েছে। বেলা দেড়টার দিকে তাকে লাইফ সাপোর্ট দেন ডাক্তাররা। আর বিকেল পাঁচটার কিছু সময় পর তিনি মৃত্যুবরণ করেন।
‘চাচার শরীরের সঙ্গে সংযুক্ত যন্ত্রপাতি খুলছেন ডাক্তাররা। এরপর মরদেহ বুঝিয়ে দেবে,’ বলছিলেন মারুফুল ইসলাম।
এই রিপোর্ট লেখার সময় অ্যাপোলো হাসপাতালে ছিলেন তরিকুল ইসলামের স্ত্রী অধ্যাপক নার্গিস বেগম, দুই ছেলে শান্তনু ইসলাম সুমিত ও অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, তাদের স্ত্রীসহ নিকটাত্মীয়রা। রয়েছেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বাঘারপাড়া উপজেলা সভাপতি টিএস আইয়ুব, যশোর জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন প্রমুখ।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সংবাদ সম্মেলন অবাধ নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের দাবিতে ৬ নভেম্বর দেশব্যাপী পদযাত্রা

সাতক্ষীরায় রাজনৈতিক কর্মীদের ওপর পুলিশ ও প্রশাসনের নিপীড়ন নির্যাতনে উদ্ভূত পরিস্থিতি সরেজমিন পরিদর্শন শেষে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ রবিবার সকাল ১১টায় পল্টনস্থ মুক্তিভবনের প্রগতি সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে সাতক্ষীরা সফরকারী প্রতিনিধি দলের অন্যতম সদস্য ও জোট সমন্বয়ক বিপ্ল¬বী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সাতক্ষীরার জনপদে দীর্ঘদিন ধরে এক ভীতিকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ২০১৩-১৫ সালের দিকে সেখানে মৌলবাদী জঙ্গিগোষ্ঠীর তা-বে জনপদ অস্থির ছিল। আর এখন সেখানকার জনগণ অত্যাচার নির্যাতনে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। এটা আমরা দীর্ঘদিন ধরেই শুনে আসছিলাম। গত ২০ সেপ্টেম্বরের ঘটনায় এটা যে সত্য তার প্রমাণ পেয়েছি। সেদিন অবাধ নিরপেক্ষ গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট ঘোষিত দেশব্যাপী জেলা পর্যায়ে নির্বাচন কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সাতক্ষীরায় বাম জোটের মিছিলে পুলিশী হামলা চালিয়ে বাসদ সাতক্ষীরা জেলা সমন্বয়ক নিত্যানন্দ সরকার, বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা এড. খগেন্দ্রনাথ ঘোষ ও প্রশান্ত রায়কে গ্রেপ্তার করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মিথ্যা মামলা দায়ের করে দীর্ঘদিন কারাবন্দী করে রাখে। হাইকোর্ট থেকে তাদের জামিন নিতে হয়েছে।
লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, গত ১ নভেম্বর ২০১৮ তালার খলিশখালীতে বাম জোটের জনসভার কর্মসূচি ছিল। জনসভার অনুমোদনের জন্য সাতক্ষীরার এসপি বরাবরে আবেদন করা হয়েছিল। তার প্রেক্ষিতে জনসভার প্রচার কাজ চালানোর জন্য মৌখিকভাবে অনুমতিও দিয়েছিল পুলিশ প্রশাসন। কিন্তু জনসভার আগের দিন ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যায় স্থানীয় পাটকেলঘাটা থানা থেকে জানানো হয় যে, জনসভা করা যাবে না এবং রাত ১২টায় পুনরায় শেখ আবুল কালামকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে থানায় আটকে রাখা হয় এবং পুলিশ খলিশখালি পল্ল¬ীমঙ্গল ক্লাব মাঠে নির্মিত জনসভা মঞ্চ ভেঙে দেয়। নেতৃবৃন্দ ১ নভেম্বর এসপি কার্যালয়ে এসপি এবং ডিসির সাথে সাক্ষাৎ করে ঘটনা বর্ণনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে জোট সমন্বয়ক সাইফুল হক বলেন, আমরা সাতক্ষীরার পূর্বাপর বিরোধী মত দমনের এহেন নির্যাতন, মিথ্যা মামলা হয়রানী, গ্রেপ্তার বাণিজ্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, বাসদ (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় নেতা শুভ্রাংশু চক্রবর্তী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশররফ হোসেন নান্নু ও সম্পাদকম-লীর সদস্য আজিজুর রহমান, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক, বিপ¬বী গণতান্ত্রিক পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা মোমিনুর রহমান বিশাল।

ভোট চেয়ে বৃহত্তম মোটরসাইকেল এমপি জগলুর শোভাযাত্রা

শ্যামনগর (সদর) প্রতিনিধি: নৌকায় ভোট চেয়ে বৃহত্তম মোটরসাইকেল শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দিলেন সাতক্ষীরা-৪ আসনের এমপি এসএম জগলুল হায়দার। রোববার বিকাল ৩টায় কালিগঞ্জ কাকশিয়ার্লি নদীর দক্ষিণ প্রান্তে স্থাপিত বিশাল বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল চত্তরে হাজার হাজর নেতাকর্মী সমর্থক প্রাণপ্রিয় নেতাকে শুভেচ্ছা জানান। এসময় এমপি জগলুল হায়দার ২০টি ইউনিয়নের দলীয় সভাপতি-সম্পাদকদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন এবং দীর্ঘ ১০ কিলোমিটার ব্যাপি হাজার হাজার মোটরসাইকেল, পিকআপ ও মাইক্রো শোভাযাত্রা যোগে শ্যামনগরে সদরে সরকারি হরিচরণ পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে এক জনসভার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেন। বিকাল ৫টায় শোভাযাত্রাটি সভাঙ্গনে পৌছালে পুরো স্কুল প্রাঙ্গন জনসমুদ্রে পরিণত হয়। হাজার হাজার জনতার নৌকার স্লোগানে সভাস্থল মুখরিত হয়ে ওঠে। মেহনতি জনতার ভালবাসায় সিক্ত হলেন এমপি জগলুল হায়দার। সভাপতির বক্তেব্যে তিনি বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা বিশ্ব মানবতার মা দেশরতœ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে গেছে। গ্রাম অঞ্চল থেকে শহর পর্যন্ত রাস্তা পাকা হয়েছে, কালভার্ট ব্রীজ নির্মাণ হয়েছে। উন্নয়নের ধারাকে বজায় রাখতে আবারও শেখ হাসিনার সরকার দরকার। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিজেদের হিংসা বিভেদ ভুলে বৃহত্তম স্বার্থে আবার ও নৌকায় ভোট চাইলেন এমপি জগলুল হায়দার। এসময় উপস্থিত জনতা নৌকায় ভোট দেওয়ায় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, বিগত ৫ টি বছর ২০ টি ইউনিয়নে সবার সাথে কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করেছি। সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তৃণমূল মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দিয়েছি। সংসদীয় আসনে অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছি। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অসীম কুমার মৃধা, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের পিপি এড. জহুরুল হায়দারসহ ২০টি ইউনিয়নের আওয়ামী নেতৃবৃন্দ এবং অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

কালিগঞ্জে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা

পত্রদূত ডেস্ক: গ্রামীণ সংস্কৃতির একটি অংশ লাঠি খেলা। ঐতিহ্যবাহী এই খেলাটি এখনো বেশ জনপ্রিয়। আবহমানকাল ধরে বিভিন্ন জেলায় এক সময় বিনোদনের খোরাক জুগিয়েছে লাঠি খেলা। কিন্তু কালের বির্বতণে মানুষ আজ ভুলতে বসেছে এই খেলাটি।
ঢোল আর লাঠির তালে তালে নাচা-নাচি। অন্য দিকে প্রতিপক্ষের হাত থেকে আত্মরক্ষার কৌশল অবলম্বনের প্রচেষ্টা সম্বলিত টানটান উত্তেজনার একটি খেলার নাম লাঠি খেলা। লাঠি খেলা অনুশীলনকারীকে লাঠিয়াল বলা হয়। এই খেলার জন্য লাঠি সাড়ে চার থেকে পাঁচ ফুট লম্বা, তবে প্রায় তৈলাক্ত হয়। প্রত্যেক খেলোয়ার তাদের নিজ নিজ লাঠি দিয়ে রণকৌশল প্রদর্শন করে।
হুমকির মুখে পড়েছে এই আবহমান বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় অনুষঙ্গ লাঠি খেলার সঙ্গে সংশ্লি¬ষ্টদের জীবন-জীবিকাও। তারপরও অনেককেই এখনও দেখা যায়-খেলাটি খেলতে।
সেই ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে রবিবার বিকালে কালিগঞ্জ উপজেলার ঘোনায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজ্জাক মোড়লের আয়োজনে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলাটি দেখতে হাজার-হাজার নারী পুরুষ আশ-পাশের গ্রাম থেকে একত্রিত হয়।
এদিকে খেলা দেখতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ম-লীর অন্যতম সদস্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি।
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুজ্জামান, সহ-সভাপতি তরিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন পাড়, কালিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, কালিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ হোসেন, নলতা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মুস্তাফি সুজনসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

জেলা জাপা সভাপতি শেখ আজহার হোসেনের নির্বাচনী মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা

সাতক্ষীরা-২ (সদর) আসনের জাতীয় পার্টির দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন নির্বাচনী মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা করেছেন। রবিবার সকাল সাড়ে দশটায় শহরের আমতলা থেকে নির্বাচনী মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা বের করে পৌরসভাসহ সদরের ১৪টি ইউনিয়নে শেখ আজহার হোসেনের নেতৃত্বে এ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম, মো. নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু, সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা শেখ আনোয়ার জাহিদ তপন, জেলা যুব সংহতির সভাপতি শাখাওয়াতুল করিম পিটুল, সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের, জেলা ছাত্র সমাজের সভাপতি কায়ছারুজ্জামান হিমেল, সাধারণ সম্পাদক জাতীয় ছাত্র সমাজ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. আকরামুল ইসলাম, জলা ছাত্র সমাজের সাংগঠনিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান সুমন, সাবেক ছাত্র নেতা আবুল কালাম, জাতীয় ছাত্র সমাজ সদর উপজেলা সভাপতি আশরাফুজ্জামানসহ সদর ও ইউনিয়নের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃৃন্দ।

সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার ব্যাংক লিমিটেডের ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার ব্যাংক লিমিটেডের ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। রবিবার ব্যাংক চত্তরে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার ব্যাংক লি. সাতক্ষীরা এফভিপি ও ম্যানেজার মো. সহিদুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ, পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি, সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ লিয়াকত পারভেজ, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মকসুমুল হাকিম, সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার ব্যাংক লিমিটেড সাতক্ষীরা শাখার সেকেন্ড অফিসার শেখ আবুল ফারাহ, বিটিভির জেলা প্রতিনিধি মোজাফ্ফার রহমান, সাংবাদিক কাজী শওকাত হোসেন ময়না, শরিফুল্লাহ কায়সার সুমন, ঠিকাদার শেখ আব্দুল মান্নান প্রমুখ। এসময় ব্যবসায়ী, ব্যাংকের গ্রাহক ও সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার ব্যাংক লিমিটেড সাতক্ষীরা শাখার কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

৮০লক্ষ ৭ হাজার টাকা ব্যয়ে ফিংড়িতে সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

পত্রদূত ডেস্ক: ৮০লক্ষ ৭ হাজার টাকা ব্যয়ে ফিংড়ি ইউনিয়নে সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। রবিবার দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবুল খায়ের সরদারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন উর রশিদ, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মকসুমুল হাকিম, সদর উপজেলা প্রকৌশলী মো. সফিউল আজম, ফিংড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. লুৎফর রহমান, ফিংড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সামছুর রহমান প্রমুখ।

জেলায় নজিরবিহীন ডেপুটেশন বাণিজ্য!

আব্দুস সামাদ: অনিয়মই যেন নিয়মে পরিণত হয়েছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগে। তাই নীতিমালার তোয়াক্কা না করে নিজেদের পছন্দমত স্কুলে ডেপুটেশন নিয়ে চাকরি করছেন পাঁচ সহকারী শিক্ষক। বর্তমান সরকারের বদলী নীতিমালায় ডেপুটেশন দেওয়ার কোন সুযোগ না থাকলেও প্রায় চার বছর ধরে একই বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে রয়েছেন এ পাঁচ শিক্ষক। কেউকে আবার ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে উপজেলার বাইরে অন্য উপজেলায়, কাউকে আবার জেলার গন্ডি পেরিয়ে দেওয়া হয়েছে অন্য জেলায়। এভাবে ডেপুটেশন দেওয়ার কোন সুয়োগ নেই স্বীকার করলেও অজ্ঞাত কারণে জেলায় নজিরবিহীন এ ডেপুটেশনের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন না জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রুহুল আমিন।
জেলা প্রাথমকি শিক্ষা অফিসের তথ্য থেকে জানা যায়, জেলার বর্তমানে ২৪ জন শিক্ষক ডেপুটেশনে আছে। এরমধ্যে সদর উপজেলায় ১১জন, আশাশুনি উপজেলায় তিন জন, দেবহাটা উপজেলায় দু’জন, কালিগঞ্জ উপজেলায় ছয়জন ও শ্যামনগর উপজেলায় দু’জন। তবে নিয়োম না থাকায় তালা ও কলারোয় উপজেলায় কোন ডেপুটেশন নেই বলে জানিয়েছে স্ব স্ব উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা।
সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় ডেপুটেশনপ্রাপ্ত শিক্ষক: শিমুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক তাহের খাতুন ২০১৫ সালের ১০ জুন থেকে, জিএন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শরীফা শামছুন্নাহার ২০১৬ সালের ১৬ মে থেকে, রামেরডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রেহেনা পারভীন ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে, দক্ষিণ ফিংড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সৈয়দা তহমিনা ২০১৭ সালের ১৫ মার্চ থেকে, মাহমুদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রওশন আক্তার বানু ২০১৭ সালের ৭ মে থেকে পরীক্ষণ বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন। শিকড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সায়মা ইয়াসমিন ২০১৭ সালের ২৬ এপ্রিল থেকে পুর্বদহকুলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন। মির্জানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শাহনাজ আক্তার ২০১৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে সুন্দরবন টেক্সটাইল মিলস সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন। মুকুন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রেক্সনা পারভীন ২০১৮ সালের ১২ মার্চ থেকে আখড়াখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন। দক্ষিণ দেবনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ফারজানা মতিন ২০১৮ সালের ১২ মার্চ থেকে যোগরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন। বলাডাংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সুরাইয়া ইয়াসমিন ২০১৮ সালের ১২ মার্চ থেকে এবং জিএন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নাজমা খাতুন ২০১৮ সালের ১৮ মার্চ থেকে নবযুগ শিক্ষা সোপান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন।
শ্যামনগর উপজেলায় ডেপুটেশনপ্রাপ্ত শিক্ষক: ১৪২নং শৈলখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. আনারুল হককে ৫৬নং ভুরুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং ১৫৮নং মাধ্যমঝাপা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক কানন বালা গায়েনকে ৬১নং ভেটখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে।
আশাশুনি উপজেলায় ডেপুটেশন প্রাপ্ত শিক্ষক: বিলবকচক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক বিধান চন্দ্র মন্ডল ২০১৮ সালের ১৭ মে থেকে কোডন্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে, তুয়ারডাংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক অম্বিকা আঢ্য ২০১৮ সালের ৪ জুলাই থেকে বুধহাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং পিরোজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রেহেনা বিলকিস ২০১৮ সালের ১৫ মে থেকে শ্রীরামকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন।
দেবহাটা উপজেলায় ডেপুটেশন প্রাপ্ত শিক্ষক: ১৩নং ঘলঘলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নারায়ণ চন্দ্র পাল ২০১৩ সালের ১৫ এপ্রিল থেকে ২৩নং সখিপুর দীঘিরপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং ৪৮ নং উত্তর সখিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক দূর্গা রানী দেব ২০১৮ সালের ১৭ এপ্রিল থেকে খুলনা জেলার শিরোমনি মহাসিন আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন।
এ বিষয়ে দেবহাটা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার প্রণব কুমার মল্লিক বলেন, এসব ডেপুটেশনের বিষয়ে আমি তেমন কিছু বলতে পারবো না। অনেক আগে থেকে এ ডেপুটেশন গুলো দেওয়া হয়েছে। এদের উপরের অর্ডার আছে। এখানে আমাদের কিছু বলার নেই। নিয়ম বহি:ভূতভাবে জেলার বাইরে ডেপুটেশন দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নিয়ম অনিয়ম জানি না, যা আছে থাক না অসুবিধা কোথায়-এই বলে ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোন কেটে দেন।
কালিগঞ্জ উপজেলায় ডেপুটেশনপ্রাপ্ত শিক্ষক: চালিতা বড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শামীমা ইয়াসমিন ২০১৬ সালের ২৬ জুন থেকে, মৌতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক স্বপ্না রানী ২০১৬ সালের ২৮ মার্চ থেকে, কালিকাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. ছাইফুল্লাহ সিদ্দিকী ২০১৫ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে, রঘুনাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. আজিজুর রহমান ২০১৫ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এবং ঘোনা মাঘরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ওবায়দুল্লাহ ২০১৪ সালের ১৯ জানুয়ারি থেকে নলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন। এছাড়াও শুইলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আজিজ আনজুম ২০১৪ সালের ১৮ মে থেকে উপজেলার বাইরে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কামাল নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে আছেন।
এ উপজেলায় যে ৬ জন শিক্ষককে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে তারমধ্যে পাঁচ জনকেই একই বিদ্যালয়ে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। বাকি একজনকে উপজেলার বাইরে সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে কালিগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুল হাকিম বলেন, এ ডেপুটেশনগুলো দীর্ঘ দিন ধরে রয়েছে। এর আগের যে ডিপিইও স্যার ছিলেন। তিনি এসব ডেপুটেশন বাতিল করার জন্য আমাদের কাছে তালিকা চেয়ে ছিলেন। তালিকার প্রেক্ষিতে তিনি এখান থেকে দেওয়া ডেপুটেশনগুলো বাতিল করেছিলেন। কিন্তু যেগুলো মন্ত্রণালয় বা অধিদপ্তর থেকে দেওয়া হয়েছে। সেগুলো বাতিল করতে পারেন নি। তবে তিনি এগুলো বালিত করার জন্য মন্ত্রণালয়ে এবং অধিদপ্তরে লিখেছিলেন। এসময় তিনি নিয়ম বহি:ভূত এসব ডেপুটেশন বাতিল হওয়া দরকার বলেও জানান।
ডেপুটেশনের কোন নিয়ম নেই স্বীকার করে সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রুহুল আমিন বলেন, যদি কোন শিক্ষক ডেপুটেশনে থাকে তবে সেটি অবৈধ। তবে, আমি কোন ডেপুটেশন দেইনি। পূর্বে কোন ডেপুটেশন দেওয়া থাকলে সেগুলোর দায়-দায়িত্ব আমার না। আপনি পত্রিকায় লেখেন। লেখার পর তা দেখে আমি বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

পাবলিক লাইব্রেরীতে বসবে পড়–য়াদের আড্ডা

পত্রদূত ডেস্ক: সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরী হবে পাবলিকের জন্য। বসবে পড়–য়াদের পড়ার আড্ডা। জ্ঞান চর্চার মাধ্যমে আলোকিত হবে মানুষের হৃদয়। আলোকের ঝর্ণা ধারায় পরিণত হবে পাবলিক লাইব্রেরী। ছাত্র, শিক্ষক, সাংবাদিক, কবি, সাহিত্যিক, লেখক, রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী, কৃষক, শ্রমিকসহ সকল শ্রেণির মানুষের জন্য খোলা থাকবে পাবলিক লাইব্রেরী। জ্ঞানী আর গুণীদের মিলন মেলায় পরিণত হবে পাবলিক লাইব্রেরী। রবিবার এ উপলক্ষে পাবলিক লাইব্রেরীতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল। আলোচনা সভায় বক্তারা পাবলিক লাইব্রেরীর জায়গায় পেটুকের আড্ডা, স্মৃতি পাঠাগার গড়ে ওঠায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন। পাবলিক লাইব্রেরী যাতে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত না হয় সেজন্য বক্তারা মত প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শাহ্ আব্দুল সাদী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. বদিউজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাসিস্ট্রেট অনিন্দিতা রায়, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার কল্যাণ ব্যানার্জী, দক্ষিণের মশালের সম্পাদক আশেক-ই-এলাহী, দৈনিক পত্রদূত সম্পাদক লায়লা পারভীন সেঁজুতি, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ফিরোজ কামাল শুভ্র, শেখ সাহিদ উদ্দিন, শেখ হারুন-উর-রশিদ, তৃপ্তিমোহন মল্লিক, সৈয়দ মহিউদ্দিন হাসেমী তপু, অধ্যাপক গাজী আবুল কাশেম প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন পাবলিক লাইব্রেরীর সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রাসেল। এখন শনিবারের পরিবর্তে শুক্রবার ছুটি থাকবে পাবলিক লাইব্রেরী।