এনডিএ ছাড়ার মুখে দুই সঙ্গী দল! বড় পরীক্ষার মুখে বিজেপি


প্রকাশিত : নভেম্বর ৯, ২০১৮ ||

কলকাতা প্রতিনিধি: এনডিএ-র অন্যতম সহযোগী সদস্য এলজেপি ও আরএলএসপি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে ২০১৪ সালে যে ক’টি আসনে তাঁরা লড়াই করেছে, অন্তত সেই ক’টি আসন তাঁদের দিতেই হবে। ঘটনা হল বিহারের এই দুই দল লোক জনশক্তি পার্টি ও রাষ্ট্রীয় লোকসমতা পার্টি এনডিএ-তে থেকে এবার অনেক কম আসন পাবে বলে মনে করা হচ্ছে। কয়েকদিন আগে জেডিইউ প্রধান নীতীশ কুমার ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ বৈঠক করে জানিয়ে দেন ১৭টি করে আসনে তাঁরা প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন। এই অবস্থায় ৪০টি লোকসভা আসনের বিহারে পড়ে থাকে মাত্র ৬টি আসন। সেগুলিই ভাগ করে নিতে হবে দুই দলকে। যা মেনে নেওয়া দুই দলের কাছে বেশ কঠিন। বিহারে ২০১৪ সালের নির্বাচনে বিজেপি ২২টি আসন জিতেছিল। সেখানে রাম বিলাস পাসোয়ানের দল ৭টিতে লড়ে ৬টিতে জয় পেয়েছিল। উপেন্দ্র কুশওয়াহার আরএলএসপি ৩টিতে লড়ে জয় পেয়েছিল। বিজেপি ও জেডিইউকে দেখে আসন সমঝোতায় রাজি হয়েছে এলজেপি এই খবরকে উড়িয়ে দিয়ে বিহারের দলীয় নেতা পশুপতি পরস জানিয়েছেন, বিজেপি ও জেডিইউ নিজেরা কী করল তাতে তাঁদের সম্পর্ক নেই। চার দলের শীর্ষ নেতৃত্ব একসঙ্গে আলোচনা না করলে আসন সমঝোতা সম্পূর্ণ হতে পারে না। পরস স্পষ্ট জানিয়েছেন, সাতটি আসনেই লড়তে চান তাঁরা। সাতটির মধ্যে ছয়টিতে জয় পেয়েছিল এলজেপি। একটি হেরেছিল মাত্র ৭হাজার ভোটে। তাঁদের গ্রাফ নেমে যায়নি। ফলে আসন কমিয়ে লড়ার পক্ষে নেই তাঁরা। একইসঙ্গে বিজেপি-জেডিইউ-র সম আসনে লড়ার তত্ত্বকেও খারিজ করে দিয়েছেন তাঁরা। এদিকে আরএলএসপি জানিয়েছে, তিনটির কম আসনে তাঁরা লড়বে না। মুখপাত্র মাধব আনন্দ জানিয়েছেন, এই বিষয়ে তাদের মতামত বিজেপিকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন দেখার এনডিএ-র তরফে বিজেপি কোনপথে এগোয়। অবস্থা বেগতিক দেখলে দুই জোটসঙ্গীকে হারাতে হতে পারে লোকসভা ভোটের আগে।