পৈত্রিক সম্পত্তি দখলে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : নভেম্বর ১৫, ২০১৮ ||

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে সাংসদ সদস্য, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও আদালতের নিদের্শের তোয়াক্কা না করে পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে ভাড়াটিয়া বাহিনী দিয়ে হত্যার হুমকি ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে পুলিশি হয়রানির চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের মলেঙ্গা গ্রামের আব্দুল গফুর সরদারের পুত্র আমিনুর রহমান।

 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, কালিগঞ্জের তেলিখালী মৌজায়, জে এল- ১৩৯, খতিয়ান-এস এ ১৩১, ও ৯৬, ডিপি -১২৩৬, দাগ এস এ ৫৬৯/৮০৯, ৫৬৯/৮১০ দাগে বিলান ০.৬৬ একর, (হাল ৩৫৯৭ দাগে বিলান ০.৬৬) সম্পত্তি পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে আমরা ১ভাই ও ২ বোন দীর্ঘদিন ধরে ধান চাষ করে ভোগ দখল করে আসছি। কিন্তু বিগত কয়েক বছর পূর্বে একই এলাকার হারান গাজীর ছেলে আজগার, কাশেম, ইসমাইল, ইউসুফ, জনাব আলীর ছেলে আমিনুদ্দীনের নজর পড়ে আমাদের সম্পত্তির উপর। তারা উক্ত সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। এবিষয়ে ২০১৩ সালে সাতক্ষীরা আদালতে দুটি মামল দায়ের করা হয়। আমাদের কাগজপত্র সঠিক থাকায় ইতোমধ্যে আমার একটি মামলায় জয়লাভ করেছি ও অন্যটিও দ্রুত শেষ হবে। সেখানেও রায় তাদের বিরুদ্ধে যেতে পারে এটি উপলদ্ধী করে তারা ওই সম্পত্তি দখলের জন্য ভিন্ন কৌশল খুজতে থাকে। এর জেরধরে কালিগঞ্জ উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নের বন্দিপুর এলাকার মৃত নাজির উদ্দীনের ছেলে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও বহু অপর্কের হোতা নাসির উদ্দীনের শরণাপন্ন হয়। নাসির উদ্দীন মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে তার ভাড়াটিয়া বাহিনীর সহযোগিতায় আমাদের সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করিয়ে দেওয়ার পায়তারা শুরু করে। এছাড়া আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের খুন জখম এবং মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানির হুমকি প্রদর্শন করতে থাকে।

 

তিনি আরো বলেন, তারা যে কোন সময় আমাদের সম্পত্তি দখল করতে পারে এমন ধারনা করে গত বছর সাতক্ষীরা অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৫ ধারার মামলা দায়ের করি। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে উভয় পক্ষকে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন এবং দ্বিতীয় পক্ষে শোকজ করেন। যার ধার্য্য তাং ১৫-১১-২০১৮।

 

এরপরও সম্প্রতি আমাদের সম্পত্তিতে লাগানো আমনধান কেটে বাড়ি নিয়ে আসলে ওই ভাড়াটিয়া নাসির গং আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এরপর থেকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মোবাইল থেকে আমাকে হত্যা এবং পরিবারের সদস্যদের খুন জখম ও লোকজন দিয়ে বাড়ি থেকে ধান তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি প্রদর্শন করতে থাকে। এছাড়া মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে জেলে পাঠিয়ে আমাদের সম্পত্তি দখলেরও হুমকি দিচ্ছে নাসির। অথচ এ বিষয়ে আমি স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, কালিগঞ্জ সার্কেল, ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিলে তারা উভয় পক্ষের কাগজপত্র পর্যালোচনা করে রায় আমার পক্ষে দেন। নাসির কালো টাকার প্রভাবে আমাদের সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। এব্যাপারে তিনি পৈত্রিক সম্পত্তি উলেখিত সন্ত্রাসী ভূমিদস্যুদের হাত থেকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।