পদ্মশাখরা খাটালে কোরিডোর ছাড়া ১৮টি গরু না খেয়ে তিনদিন!


প্রকাশিত : নভেম্বর ১৫, ২০১৮ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: উচ্চ আদালতের আদেশ ও প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে পদ্মাশাখরা খাটালে অবৈধভাবে গরু তুলছে ও গরু করিডোর করার পায়তারা করছে অবৈধ খাটাল মালিক শহিদুল ইসলাম ও তার লোকজন। এমন অভিযোগ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা নুর আলি গাজী। নুর আলি গাজি জানান, শহিদুল ইসলামের লোকজন গরু রাখালের মাধ্যমে হাড়দ্দহা সীমান্ত দিয়ে চলতি মাসের ১২ তারিখে রাতে ১৮টি ভারতীয় গরু তোলে। কিন্তু এই খাটালে তোলা ১৮টি গরু এখনো পর্যন্ত করিডোর করা হয়নি। শহিদুল ইসলামের লোকজন প্রশাসনকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে নুর আলি গাজির নামে গরু করিডোর করতে দিচ্ছে না। এমনকি খাটালে রাখা ১৮টি গরু ৩ দিন অতিবাহিত হলেও গরু করিডোর করা হয়নি। করিডোর না হওয়ায় খাটালে রাখা গরুগুলো ৩ দিন ধরে অনাহারে কষ্ট ভোগ করছে বলে জানান তিনি। তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, সদর উপজেলার ভোমরা ইউনিয়নের হাড়দ্দহা গ্রামের মৃত বাদল গাজীর ছেলে শহিদুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে পদ্মশাখরা খাটালে অবৈধভাবে গরু তুলে আসছিলো। কিন্তু পদ্মশাখরা খাটালে অবৈধভাবে গরু তোলার ফলে চলতি বছরে ২১ অক্টোবর সুপ্রিম কোর্টের আফিল বিভাগের লিভ টু আফিল ২৯২০/১৮ এর  স্মারকে খাটালটি বন্ধের আদেশ দেন। উচ্চ আদালতের আদেশের প্রেক্ষিতে গত ১১ নভেম্বর ০৫৪৪৮৭০০০১২২৫০০২/১৮-১০২৩ নম্বর এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট স্বজল মোল্লার স্বাক্ষরে সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবির অধিনায়ক, পুলিশ সুপার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সদর থানা ওসি, কাস্টম রাজস্ব কর্মকর্তাকে এই খাটালটি বন্ধের নির্দেশ দেন। অপরদিকে চলতি মাসে ২৯ অক্টোবর সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের রিট পিটিশন ৯৮০৮/১৮ নম্বর পদ্মশাখরা খাটালটি মুক্তিযোদ্ধা নুর আলি গাজীর নামে চালু করা জন্য আদালত আদেশ দেন। নুর আলি গাজীর পক্ষে আদেশের প্রেক্ষিতে চলতি মাসে ১১ নভেম্বর এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট স্বজল মোল্লার স্বাক্ষরে ১০২৪ নম্বর মুক্তিযোদ্ধা নুর আলি গাজীর নামে চালু ও করিডোর করার জন্য ৩৩ বিজিবি অধিনায়ক, পুলিশ সুপার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সদর থানা ওসি ও কাস্টম রাজস্ব কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন। কিন্তু  শহিদুল ইসলাম ও তার লোকজন উচ্চ আদালতের আদেশ ও প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে চলতি মাসের ১২ তারিখে তারা খাটালে ভারতীয় ১৮টি গরু তোলে।

 

এ ব্যাপারে কাস্টম্স’র রাজস্ব কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উচ্চ আদালতে যার নামে খাটাল বহাল রয়েছে তার নামে গরু করিডোর হবে। অপরদিকে পদ্মশাখরা নায়েক সুবেদার আরিফ জানান, আমাদের উপরের স্যারের নির্দেশ পেলে গরু করিডোর হবে।