ব্রহ্মরাজপুরে সরকারী জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করলো ভূমি অফিস


প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৫, ২০১৮ ||

পত্রদূত ডেস্ক: সরকারি জমি কিনে বন্দোবস্ত না নিয়ে অবৈধপাকা স্থাপনা নির্মাণ করার চেষ্টা বন্ধ দিয়েছে ভূমি অফিস। সদরের ব্রহ্মরাজপুর বাজারের সাহেব বাড়ি মোড়ে সোমবার এ সকালে ঘটনাটি ঘটে।
জানা যায়, ব্রহ্মরাজপুর বাজারের সাহেব বাড়ির মোড়ে সরকারি ডিসিআরকৃত (যা হস্তান্তর বা বিক্রয় যোগ্য নহে) জে,এল,নং-১০৩, মৌজা-ব্রহ্মরাজপুর, খতিয়ান নং-১২৫৭, দাগ নং-৬৬৫০ প্রায় ৬ শতক জমিতে ব্রহ্মরাজপুর গ্রামের মৃত অমূল্য দাসের পুত্র বিশ্বনাথ দাস সামনের জমিতে ৪টি দোকান ঘর ও পেছনে বাড়ি বানিয়ে বসবাস করছিল। সম্প্রতি এই জমিটি ব্রহ্মরাজপুর মেল্লেকপাড়া গ্রামের মো. মকফুর রহমান সরদারের পুত্র বিএনপি নেতা খুরশীদ আলম ৮ লাখ টাকা দিয়ে নন জুডিশিয়াল স্ট্যাস্পে লিখিত করে গণ্যমান্য ব্যক্তিদের স্বাক্ষী রেখে কিনে নেয়। সরকারি সম্পত্তিতে বন্দোবস্ত না নিয়েই গত দুই সপ্তাহ যাবত সামনের গেটে তালাবদ্ধ করে ভেতরে ২টি পাকা ঘর নির্মাণ চালিয়ে যেতে থাকে। ইতোমধ্যে ১টি ঘরের ছাউনীসহ সব কাজ শেষ হয়ে গেছে। বাকি ঘরটির কাজও প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। খুরশীদ আলম জানান, উক্ত সম্পত্তি বিশ্বনাথের। তিনি কাজ করছিলেন। আমি একটি দোকানঘর ভাড়া নিয়েছি মাত্র। এর সাথে আমার কোন যোগসুত্র নেই। বিশ্বনাথের সমুদয় কাগজপত্র ঠিক থাকলেও তিনি ঘর সংস্কারের জন্য যথাযথ কতৃপক্ষের অনুমোদন না নেওয়ায় ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তা কাজ বন্ধ করে দিয়েছে বলে তিনি জানান। ধুলিহর ইউনিয়ন (ভূমি) সহকারী কর্মকর্তা মোকলেস আলী জানান, খবর পেয়েই তাৎক্ষণিক লোক পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তার কাগজপত্র সঠিক থাকলেও সরকরি সম্পত্তিতে সংস্কার করতে হলে যথাযথ কর্তৃপক্ষের পারমিশন লাগে তাই কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।