শিশু একাডেমির আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো জেলা পর্যায়ের জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা


প্রকাশিত : জানুয়ারি ২৪, ২০১৯ ||

বুধবার সকাল ১০টায় জাতীয় শিশু পুরুস্কার প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘উঠবো জেগে, ছুটবো বেগে’। সাতক্ষীরা জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগীতা শেষে বিজয়ী প্রথমস্থান অধিকারকারী শিশুরা বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগীতায় আগামী ৩০ জানুয়ারি ২০১৯ অংশগ্রহণ করবে। ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা বিষয়ক দেশের শিশুদের সর্ববৃহৎ আয়োজন এই জাতীয় শিশু পুরুস্কার প্রতিযোগীতা।
বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগীতায় প্রথমস্থান অধিকারী শিশুরা জাতীয় শিশু পুরুস্কার প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করবে। জাতীয় পর্যায়ে যারা প্রথম স্থান অধিকার করবে তাদেরকে প্রধানমন্ত্রী পুরুস্কার প্রদান করবেন। জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতার তারিখ নির্ধারিত হয়নি, নির্ধারণ করা হলে পরবর্তীতে জানিয়ে দেওয়া হবে।
উল্লেখ্য যে জাতীয় পর্যায়ের তিনটি বিষয় প্রথম স্থান অধিকারী শিশু পাবে সেরাদের সেরা পুরুস্কার। পুরুস্কার হিসেবে থাকবে দশ হাজার টাকা, এক হাজার টাকার বই, সার্টিফিকেট, গোল্ড মেডেল এবং ট্রফি। সেরাদের সেরা পুরুস্কার বিজয়ী শিশু বাংলাদেশ শিশু একাডেমির শুভেচ্ছা দূত হিসেবে পরবর্তী তিন বৎসর যুক্ত থাকবে। জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০১৯ ক বিভাগ প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণি, খ বিভাগ পঞ্চম থেকে সপ্তম শ্রেণি, গ বিভাগ অষ্টম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণির শিশুরা অংশগ্রহণ করতে পারবে। এবার প্রতিযোগীতায় এসএসসি পরীক্ষার্থীরাও অংশগ্রহণ করতে পারবে। উপজেলা পর্যায়ে থেকে দেশ ব্যাপি এই প্রতিযোগীতা শুরু হয়ে জেলা, বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে। একজন প্রতিযোগী তিনটি বিষয়ে অংশগ্রহণ করতে পারবে। শেখ আবু জাফর মো. আসিফ ইকবাল, জেলা শিশু বিষয়ক অফিসার সাতক্ষীরা প্রতিযোগিতার বিস্তারিত নিয়মাবলী সাংবাদিকদের জানান, তিনি আরও জানান ক্রীড়া বিষয়ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন জেলা ক্রীড়া অফিসার, প্রধান শিক্ষক, পিএনহাই স্কুল, শারীরিক শিক্ষক, পিটিআই। সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন আরিফ আদনান, মো: মঞ্জুরুল হক, আবু আফফান রোজ বাবু, শেখ শহিদুল ইসলাম, শামীমা পারভীন রতœা, তবলায় দায়িত্ব পালন করেন বিশ্বজিৎ সাহা ও নয়ন কুমার। শিক্ষা বিষয়ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন লিখন বণিক, ফারুকুজ্জামান ডেভিড, চায়না ব্যানার্জী, নৃত্য বিষয়ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন আসফিয়া সিরাত, নাহিদা পারভীন পান্না, চিত্রাংকন ও কুটির শিল্প বিষয়ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন ইন্দ্রজীত সাহা, শুভেন্দ্র কুমার দাশ, বরুন ব্যানার্জী, আব্দুল জলিল, মো: আব্দুস সবুর প্রমুখ।
শেখ আবু জাফর মো: আসিফ ইকবাল, জেলা শিশু বিষয়ক অফিসার সাতক্ষীরা আর ও জানান সদর, কলারোয়া, তালা, আশাশুনি, দেবহাটা, কালিগঞ্জ, শ্যামনগর উপজেলার সকল প্রতিযোগী জেলার প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে। বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে উপজেলা ও জেলার প্রথম স্থান অধিকারী সনদের মূল কপি অবশ্যই সাথে নিতে হবে। বিস্তারিত জানতে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি সাতক্ষীরা জেলা অফিসে যেগাযোগ অথবা িি.িংযরংযঁধপধফবসু.ংধঃশযরৎধ.মড়া.নফ ওয়েব সাইট থেকে জানা যাবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি