ডুমুরিয়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের প্রার্থী বাছাইয়ে অনিয়মের অভিযোগ


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯ ||

 

 

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি: ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়ায় ব্যাপক অনিয়ম ও সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও রুদাঘরা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফ কামাল খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় বক্তৃতা করেন- জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. রবীন্দ্রনাথ মন্ডল, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সরদার আবু সালেহ, আটলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রতাপ কুমার রায়, গুটুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা সরোয়ার, তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা কাজী আলমগীর হোসেন, আ’লীগ নেতা আকরাম হোসেন মোল্যা, ইমরান খান প্রমুখ। সভায় এড. রবীন্দ্রনাথ মন্ডল বলেন, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী যাচাই-বাছাই করার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ প্রেরিত যে নির্দেশনাপত্র দেওয়া হয়েছে ডুমুরিয়া উপজেলায় তা মানা হয়নি। সম্পূর্ণ অ-গঠনতন্ত্র ও ব্যাপক অনিয়ম এবং সংগঠন বিরোধি পন্থায় ব্যবসায়ী ও আমলা ব্যাক্তির নাম প্রেরণ করা হয়েছে। নির্দেশনাপত্রে উল্লেখ রয়েছে, উপজেলার সকল ইউনিয়ন সভাপতি/সম্পাদক ও উপজেলা কমিটির নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে একটি বর্ধিত সভা আহবান করতে হবে। ওই সভায় সকলের ঐক্যমতের ভিত্তিতে তিনটি নাম জেলা কমিটি বরাবর প্রেরণ করতে হবে। কিন্তু এখানে আমাদের এর কিছুই করা হয়নি। বরং যাদের নাম প্রেরণ করা হয়েছে তারা দলের একে বারেই নতুন মুখ। জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম শফিকুল ইসলাম বলেন- দলের ত্যাগি ও রাজপথে থাকা নেতা কর্মীদের অমূল্যায়ন করে একক ভাবে সিন্ধান্ত নিয়ে যে তালিকা করা হয়েছে এটা খুবই দুঃখজনক। ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা প্রতাপ কুমার রায় বলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগ অভিভাবক হীনতায় ভুগছে। বঙ্গবন্ধু প্রকৃত সৈনিকদের পাশ কাটিয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যে তিনটি নাম প্রেরণ করা হয়েছে তা আমাদের বোধগম্য নয়। প্রতিবাদ সভার সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল খোকন বলেন- কেন্দ্রে প্রেরিত নাম আমরা এই সভার মাধ্যমে প্রত্যখান করছি এবং অবিলম্বে নিদের্শনাপত্র অনুযায়ি পুনরায় নাম প্রেরনের জন্য যাচাইবাছাই করার আহবান করছি। অন্যথায় আগামিতে বিভিন্ন কর্মসুচীর ডাক দেওয়া হবে। আর সেই কর্মসুচী বাস্তবায়নের জন্য চার সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।