নোনা পানি না পাওয়ায় বিপাকে কাশিমাড়ীর ঘের ব্যবসায়ীরা


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: নদী থেকে নোনা পানি তুলতে না পারায় শ্যামনগরের কাশিমাড়ী এলাকার শতশত ঘের ব্যবসায়ী বিপাকে পড়েছেন। স্থানীয় এক প্রভাবশালী ব্যক্তি চাঁদার দাবিতে এলাকার শতশত বিঘা ঘেরের পানি তোলার একমাত্র স্লুইস গেটটি আটকে রেখেছেন। যার ফলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঘের মালিকরা।
একাধিক ঘের ব্যবসায়ী জানান, অনেক টাকা পায়সা খরচ করে হারি নিয়ে ঘের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। কাশিমাড়ী এলাকায় ঘেরের পানি তোলার একমাত্র স্লুইস গেটটি ইউনিয়নের শেষ প্রান্তে ঝাপালি এলাকায় অবস্থিত। ওই গেট দিয়ে নদী থেকে ওঠা পানি দিয়ে তারা ঘের পরিচালনা করেন। কিন্তু সম্প্রতি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের ভাই ইয়াহিয়া খোকন ও শাহাজান আলী নামের দু’ব্যক্তি কাশিমাড়ী এলাকার শতশত বিঘা ঘেরে নোনা পানি উঠার একমাত্র স্লুইস গেটটি আটকে রেখেছেন। ১ লক্ষ টাকা চাঁদা না দিলে গেটটি খোলা হবে না বলে জানিয়েছেন খোকন। এ বিষয়ে স্থানীয় ঘের ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও কোন ফল পাননি বলে জানিয়েছেন।
ব্যবসায়ী অবিলম্বে ওই গেটটি খোলা দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
স্থানীয় মেম্বর আব্দুস সবুর বলেন, পানি উঠা নামা গেটটি আটকে দেওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এখানকার ঘের ব্যবসায়ীরা। চেয়ারম্যানের ভাই প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ যেতে চাচ্ছেন না। তিনি অবিলম্বে ওই গেটটি খুলে দেওয়ার দাবি জানান।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইয়াহিয়া খোকনের সাথে যোগাযোগ করলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দেন।
শ্যামনগর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা (এসিল্যান্ড) সুজন সরকারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, বিষয়টির সাথে পানি উন্নয়ন বোর্ড সংম্লিষ্ট। আমি তাদেরকে বিষয়টি দেখার জন্য বলবো।
শ্যামনগর উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কামরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। তবে আমি খোঁজ নিয়ে ঘটনার সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।