জেলায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খেলো ২লক্ষ ৩৪ হাজার ৩৩৮ জন শিশু


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ ||

এসএম শহীদুল ইসলাম: জেলায় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খেলো ২লক্ষ ৩৪ হাজার ৩৩৮ জন শিশু। জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড-২০১৮) উপলক্ষে উৎসবমূখর পরিবেশে শনিবার সকালে শিশুদের মুখে ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল তুলে দিয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল। সিভিল সার্জন অফিসের আয়োজনে এবং জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান ও জাতীয় পুষ্টি সেবা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নে শহরের সূর্যের হাসি নেটওয়ার্ক ক্লিনিকে সিভিল সার্জন ডা. রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপপরিচালক রওশনারা জামান, সূর্যের হাসি নেটওর্য়াক ক্লিনিকের মেডিকেল অফিসার ডা. সাবেরা সুলতানা, মেডিকেল অফিসার জয়ন্ত সরকার, জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক জগদীশ চন্দ্র হাওলাদার, সূর্যের হাসি নেটওয়ার্ক ক্লিনিক ম্যানেজার মো. মফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
এবার সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ৩৫১টি কেন্দ্রে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড-২০১৮) এ সদর উপজেলার ১২-৫৯ মাস বয়সী ২ লক্ষ ১৩ হাজার ৩২৭ জন শিশুকে ১টি লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে এবং ৬-১১ মাস বয়সী ২৫ হাজার ১১জন শিশুকে একটি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হচ্ছে। জেলার ৭টি উপজেলার মোট ২০৩১টি টিকাদান কেন্দ্রে ২ লক্ষ ৩৪হাজার ৩শ’ ৩৮ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হচ্ছে। এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সি ২৫ হাজার ১১ জন শিশুকে ১টি নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ১৫ মাস বয়সি ২ লক্ষ ৩৪ হাজার ৩৩৮ জন শিশুকে একটি লাল রঙের উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হচ্ছে। এ কর্মসূচিতে স্বাস্থ্যকর্মী (সরকারি) ৬২১ জন এবং স্বাস্থ্যকর্মী (বেসরকারি) ২১৮ জন। স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন ৪ হাজার ৬২ জন। প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত টিকা প্রদান করা হচ্ছে।