শ্যামনগরে পাউবোর বেড়িবাঁধে ভাঙন: আতংকে এলাকাবাসি


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯ ||

উপকূলীয় অঞ্চল (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: শ্যামনগরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধ (ওয়াপদা) ভয়াবহ ভাঙনের কারণে লাখ মানুষ আতংকের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। কর্তৃপক্ষ সরকারি বরাদ্দ দিয়ে দ্রুত বাঁধ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিরব রয়েছে। মঙ্গলবার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সীগঞ্জ ইউনিয়নের হরিনগর বাজার স্লুইস গেট সংলগ্ন সৎসঙ্গ মন্দিরের পূর্ব পাশে কিরণ কর্মকারের বাড়ি সংলগ্ন ওয়াপদার বেড়িবাঁধে যেয়ে এই দৃশ্য দেখা যায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য উৎপল কুমার জোয়ারদার ঘটনার বর্ণনা দিয়ে জানান, প্রায় এক মাসের অধিক সময় হরিনগর বাজার সংলগ্ন স্লুইস গেটের পূর্ব পাশে পাউবোর বেড়িবাঁধের ভয়াবহ ভাঙনের এই সুচনা হয়। মুহূর্তের মধ্যে পাউবোর সাতক্ষীরা নির্বাহী প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলে তারা মাপ-জরিপ করে দ্রুত বরাদ্ধ দিয়ে বাঁধ সংষ্কারের আশ্বাসে আজ পর্যন্ত কোন কাজ না করেই বসে আছে। তিনি আরও জানান, পাউবোর কর্মকর্তাদের গড়িমশি ও উদাসীনতার কারণে দিনের পর দিন ভাঙনটির অবস্থা ভহাবহের দিকে রুপ নিয়েছে। এই ভাঙনকে কেন্দ্র করে লাখ মানুষের মধ্যে প্রতিনিয়ত চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। যেকোন সময় ঘটে যেতে পারে মারাত্মক দুর্ঘটনা। যার ফলে ক্ষতি হতে পারে জানমাল, কৃষি জমি, মৎস্য ঘের, গবাদীপশুর। ভাঙন কবলিত এলাকার ভূপতি মন্ডল ও আমিনুর রহমানসহ প্রবীনরা জানান, পাউবোর কর্মকর্তাদের ক্ষত বিক্ষত বেড়িবাঁধ নির্মাণ তো দূরের কথা, তারা প্রতিনিয়ত তাদের নিজেরদের আখের গোছাতে ব্যস্ত। পাউবোর উপসহকারী প্রকৌশলীদের প্রত্যক্ষ সহযোগীতায় দিনের পর দিন ব্যাঙের ছাতার মতো অপরিকল্পিত চিংড়ি চাষের জন্য পাউবোর বেড়িবাঁধ ছিদ্র করে পাইপ দিয়ে লবণ পানি উত্তোলন করছে চিংড়িচাষীরা। হরিনগর স্লইস গেট সংলগ্ন এই ভাঙন কবলিত স্থানটি যে কোন সময় ভেঙে পানি প্রবেশ করে উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন প্লাবিত হতে পারে। বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট জরুরী ভিত্তিতে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সর্বস্তরের জনগণ।