একুশে ফেব্রুয়ারি/পুষ্পিতা চট্টোপাধ্যায়


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৯ ||

বিপ্লবের মরশুমে জ্বলে ওঠা

অরণ্যে বাদাড়ে ওরা ফিরে ফিরে আসে

মৃত শহীদের রক্তে ভেসে যায় সংগ্রামী কৃষ্ণচূড়া

মায়ের কান্নায় ভিজে ওঠে স্বরবর্ণের প্রতিটি অক্ষর

 

মা বসে মাটির দাওয়ায়

দখিন হাওয়ায় ঝিরঝিরে উনুনে সুখ রাঁধতে রাঁধতে

মা চেনায় অ এ অনুমতি থথথযা নারীর শৃঙ্খল

আ এ আদেশ থথথযা পুরুষের বাহারী পোষাকী রূপ

ই তে ইচ্ছাথথথ নারীকে তা বিসর্জন দিতে হয়

রাতের অন্ধকারে

আর ঈ তে ঈশ্বর সর্বশক্তিমান

যার পুরুষ পুরুষ কামুক গন্ধটা

মিশে যায় ঘুঁটে আর কাঠ কয়লার ধোঁয়ায়

পাঁচমিশালি মশলাদার গন্ধে

চিনচিনে ঘুম জাগে পেটের গভীরে

বিমর্ষ অন্ধকারে মায়ের অপরূপ সৌন্দর্য

ফুটে ওঠে চিকচিক

টগবগে ভাতের ঘ্রাণ স্ফূলিঙ্গের মত

মাতৃভাষার মত সহজ ও মিষ্টি সুস্বাদু

 

মেঝের বিছানায় শুয়ে

মা শেখাচ্ছিল কৃষ্ণচূড়া শুধু ফাগুন আনে না

কৃষ্ণচূড়া বাংলার বিপ্লবও আনে

কৃতজ্ঞতার স্মৃতিসৌধের মত সারি সারি অরণ্যে

ফুটে ওঠা কৃষ্ণচূড়া কোন ফুল নয়

পথের দুধার জুড়ে শত শহীদের রক্ত

বাংলার জন্য মাতৃভাষার জন্য  জয়সঙ্গীত

কোকিলের তানে তানে অহঙ্কারী একুশে ফেব্রুয়ারি!