আবাদেরহাট সরকারি চাননীতে অবৈধভাবে দোকান ঘর নির্মাণের অভিযোগ


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আবাদেরহাটের চাননী দখল করে অবৈধভাবে কাঠের দোকান ঘর নির্মাণ করেছে এমন অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার ছেলেসহ ২ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। স্থানীয়রা জানান আবাদেরহাটের বার্ষিক সরকারী রাস্বজ খাতের বরাদ্দ থেকে নিমার্ণ করা চাননীতে অবৈধভাবে কাঠের দোকান ঘর নির্মাণ করেছেন সদর উপজেলার ১০নং আগরদাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইন্দ্রিরা গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে কবির, আগরদাড়ী গ্রামের খালের ছেলে বাবু ও শিয়ালডাঙ্গা গ্রামের মৃত সোহবানের ছেলে আনিছুর রহমান। সূত্রে জানান, আবাদেরহাটের সড়কের ধারে একটি চাননীতে দীর্ঘ কয়েকবছর ধরে আগরদাড়ী এলাকার বৃদ্ধা মুনছুর আলিসহ কয়েকজন ব্যবসায়ীরা রীতিমত হাটের খাজনা দিয়ে ওই চাননী জায়গায় বসে ব্যবসা করে আসছিল। কিন্তু ইতোমধ্যে চাননীটি জরাজীর্ন হওয়ার ফলে এবং ওই চাননীটি সংস্কারের কারণে হাটের ইজারা মালিকের কথামত মুনছুর আলিসহ ব্যবসায়ীরা কয়েকমাসের জন্য চাননী জায়গা ছেড়ে দেয়। এরপর চাননীটি সংস্কার হয়ে গেলে পুনারায় মুনছুর আলিসহ অনেকে ব্যবসায়ীরা ওই চাননীতে বসে ব্যবসা করছিল। কিন্তু মুনছুর আলি ওই চাননীতে কিছুদিন ব্যবসা করার পর স্থানীয় আওয়ালীগ নেতার ছেলে কবির আগরদাড়ীর গ্রামের বাবু, শিলায়লডাঙ্গা গ্রামের আনিছুর কয়েকজন কথিত নেতা চাননী জায়গা দখল করে তারা মুনছুর আলিকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। এরপর ক্ষমতাশীনদলের ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে কবির, বাবু, আনিছুর ওই চানীতে সরকারী ডিসিআর বিহীন অবৈধভাবে ৩টি কাঠের দোকান ঘর নির্মাণ করে বলে সূত্রে জানান। এদিকে আবাদেরহাট ইজারা মালিক অনিত ও সাধারণ ব্যবসায়ীরা অভিযোগ বলেন চাননী দখল করে অবৈধ ভাবে কাঠের দোকান ঘর নির্মাণ করা কোনো নিয়ম নেই। তবে চাননীতে অবৈধ ভাবে কাঠের দোকান ঘর নির্মাণের বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনের বরাবর অভিযোগ করলেও ব্যবস্থা নিচ্ছে না কতৃপক্ষ বলে জানান। এবিষয়ে কবিরের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য জেলা প্রশাসকের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন হাটের ইজারা মালিক ও সাধারণ ব্যবসায়ীরা।