আগে বাইপাসের জায়গা পরে দোকান বরাদ্দ: তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৯ ||

তালা (সদর) প্রতিনিধি: তালাবাসির বহুদিনের স্বপ্ন বাইপাস সড়ক। সেটি আজ বাঁধা হয়ে দাঁড়ালো স্থানীয় ভূমি কর্মকর্তাদের অপরিকল্পিত ইজারা দেওয়ার কারণে। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীনের আশ্বাসে আলোর মুখ দেখতে পারে তালাবাসির স্বপ্নের বাইপাস সড়ক বলে আশা করছেন স্থানীয়রা।

তালা উপজেলা সদর বাজারে একটি মাত্র (খুলনা-পাইকগাছা) সড়ক। ভিন্ন রাস্তা না থায় প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হয় জানজট। যার ফলে ঘটতে থাকে সড়ক দুর্ঘটনা। তালা বাসীর অনেকদিরে প্রত্যাশা একটি বাইপাস সড়ক। তাহলে রোধ হবে সড়ক দুর্ঘটনা, হারাতে হবে না অকালে আর কারো জীবন। কিন্তু অপরিকল্পিত ভাবে জায়গা ইজারার কারণে আবারও জীবন দিতে হবে বাবুলালের মত অনেকেরই। তালা বাসীর একটি দাবি ‘পরিকল্পিত ইজারা দিয়ে বাইপাসের জায়গা উন্মুক্ত করতে হবে’। এক্ষনি এর ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে তালায় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এঘটনায় তালা বাজারের ব্যবসায়ী মহল, সুধী সমাজ এবং সাধারণ মানুষ ক্ষোভে ফুসে উঠেলে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সাতক্ষীরা থেকে প্রকশিত দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় ‘কপোতাক্ষ দখেলের মিছিলে ভেস্তে যেতে বসেছে তালাবাসির স্বপ্নের বাইপাস সড়ক’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় নজরে আসে স্থানীয় প্রসাশনের। পারে ২৩ ফেব্রুয়ারি তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন সংাবদিকদের বলেন, আগে বাইপাসের জায়গা খালি করতে হবে পরে দোকান বরাদ্দ। তালার উন্নয়ন করতে হলে আগে বাইপাস রাস্তা করতে হবে। নায়েবকে খবর দেওয়া হয়েছে সে ঘটনাস্থলে যাচ্ছে এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, তালা উপজেলার সদরটি একগলির বাজার। ফলে সৃষ্টি হয় যানজট ঘটতে থাকে সড়ক দুর্ঘটনা। এই সড়ক দুর্ঘটনা থেকে তালা উপজেলাকে মুক্ত করতে হলে বাইপাসের বিকল্প নেই। ইতোপূর্বে সরকার ২৬১ কোটি ৫৪ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ব্যয়ে কপোতাক্ষ খননের পর জেগে ওঠে চরভরাটি জমি। তখনি বাইপাস স্বপ্ন পূরণে জেগে ওঠে আশার আলো। ইতোমধ্যে চরভরাটি জায়গায় বাইপাস নির্মাণের লক্ষে ৩টি স্লুইস গেটও নির্মাণ করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। কিন্তু সেই চরভরাটি জমিতে আজ ইজারা দিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে স্থাপনা। নির্মাণ হচ্ছে পাকা দোকানঘর আবার কেউ কেউ দখল করে গড়ে তুলেছে অবৈধ ইমারত।