তালায় হোমিও ডাক্তার রবিন গরীবের শেষ ভরসা


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৯ ||

ইলিয়াস হোসেন, তালা (সদর): তালায় হোমিও প্যাথিক ডাক্তার রবিন চক্রবর্তী গরীব মানুষের চিকিৎসার শেষ ভরসার প্রতীক হয়ে উঠেছেন। তিনি তালা উপজেলার খলিলনগর ইউনিয়নে মাছিয়াড়া গ্রামের রামপদ চক্রবর্তীর ছেলে। তিনি নিরলসভাবে সামান্য টাকায় ক্যান্সার, টিউমার, গলায়কাঁটা, হার্ডব্লক, ব্যথাসহ বিভিন্ন জটিল রোগের চিকিসা দিচ্ছেন।

অজ পাড়াগায়ে হোমিও প্যাথিক ডাক্তার রবিন চক্রবর্তী গড়ে তুলেছেন গরীব মানুষের এক চিকিৎসাখানা। ডাক্তার রবিনের কাছে যে সমস্ত রুগি আসে, যারা ক্যান্সারের মত জটিল রোগে ভুগছেন। তার চিকিৎসাখানায় উপস্থিত রোগীদের কাছে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলেন, আমরা ডাক্তার রবিনের কাছে এসেছি এবং এখানে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছি। আমরা গরীব মানুষ প্রতিনিয়ত আসতে অনেক খরচ। পাইকগাছা গদায়পুর হতে আসা ছকিনা বেগম (৬০) বলেন, আমার ক্যান্সার হয়েছে, এখানে চিকিৎসা নিয়ে অনেক ভাল আছি। পাইকগাছা কয়রা উপজেলার মান্দার গাজী (৬৫)বলেন, আমার পায়ে গ্যাংগ্রিন হয়েছে। পায়ের আংগুল প্রায় সব শেষ হয়ে যাচ্ছে । রবিন বাবুর কাছে চিকিৎসা নিয়ে আস্তে আস্তে সুস্থ হচ্ছি। খুলনা বাগেরহাট হতে আসা আতাহার শেখ (৪৮) জানায়, আমার ক্যান্সার হয়েছে। এখানে চিকিৎসা নিয়ে অনেক সুস্থ আছি। পাইকগাছা উপজেলার সকিনা বিবি জানায়, আমার গলায় কাঁটা ফুটে অনেক কষ্ট পাচ্ছিলাম। ডাক্তার রবিনের নিকট এসে কাঁটা বের করে অনেক স্বস্তি পাচ্ছি। সরজমিনে গিয়ে প্রায় ১৫/১৬ জন রুগির সাথে কথা বলে জানা যায় এর মধ্যে ৮ জনই ক্যান্সারের রুগি। বেশীর ভাগই গরীব মানুষ। তারা ডাক্তার রবিন চক্রবর্তীর তত্ত্বাবধানে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ডাক্তার রবিন তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। তাদের কোন ভাড়া দিতে হয়না। ১৭জন রুগি তার বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এ বিষয়ে ডাক্তার রবিন চক্রবর্তী বলেন, আমি প্রায় ২৭ বছর যাবত চিকিৎসা দিচ্ছি। যত প্রকার ক্যন্সারের রুগি আমি চিকিৎসা দিচ্ছি। অনেকেই ভাল হয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে। সবাই টাকা দিতে পারে না। আমি গরীব মানুষের ডাক্তার। তিনি আরও বলেন, আমি ক্যান্সার রোগ ছাড়া টিউমার,গলায় কাঁটা হার্ডব্লক,ব্যাথা,পঁচা ঘাঁসহ জটিল রোগের চিকিৎসা দিচ্ছি। আমি যতদিন বেচেঁ থাকবো মানুষের সেবা করে যাব। তিনি আরও বলেন, আমি চাই যারা টাকার অভাবে চিকিৎসা নিতে পারছেনা তারা আমার কাছে আসলে আমি তাদের চিকিৎসা দিব ।