জেলার সব উপজেলায় থাকছে বিদ্রোহী প্রার্থী


প্রকাশিত : February 26, 2019 ||

সাখাওয়াত উল্যাহ: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলার সব উপজেলায় থাকছে বিদ্রোহী প্রার্থী। ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সব প্রার্থী কোমর বেঁধে নেমেছেন ভোটের মাঠে। তৃণমূল আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই এখন প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে ভোটে মাঠে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। এতে করে জমে উঠেছে এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। জানা গেছে, কলারোয়া উপজেলায় দলীয় প্রার্থী হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ স্বপনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এখানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টু তৃণমূলের দাবির প্রেক্ষিতে ভোটের মাঠে নেমেছেন। একই অবস্থা তালা উপজেলায়ও। এখানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমারকে দলীয় মনোনয়ন ঘোষণা করা হয়। তবে এখানেও তৃণমূলের দাবির জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক প্রনব ঘোষ বাবলু প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন। সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় জেলা আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবু পেয়েছেন নৌকার টিকিট। কিন্তু এখানে শোনা যাচ্ছে, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম শওকত হোসেন তৃণমূল আওয়ামী লীগের দাবির প্রেক্ষিতে প্রার্থী হবেন। আশাশুনিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন। কিন্তু এখানে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক শাহনেওয়াজ ডালিম নির্বাচনে মাঠে রয়েছেন। দেবহাটা উপজেলায় নৌকার টিকিট পেয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গনি। কিন্তু সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও সভাপতি এড. স. ম. গোলাম মোস্তফাও রয়েছেন নির্বাচনী ময়দানে। এছাড়া জেলা পরিষদ সদস্য আল ফেরদৌস আলফাও নির্বাচনী মাঠে ভোটার সাথে নিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। কালিগঞ্জ উপজেলায় এবার নতুন মুখ হিসেবে নৌকা প্রতীক নিয়ে মাঠে নেমেছেন সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা আতাউর রহমান। কিন্তু এখানে তৃণমূল আওয়ামী লীগের দাবির প্রেক্ষিতে বিদ্রোহী প্রার্থী হচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদ মেহেদী। এদিকে শ্যামনগর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে সাতজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন এসএম আতাউল হক দোলন (নৌকা প্রতীক), সাদেকুর রহমান সাদেম (বিএনপি), এড. আজিবর রহমান, অসীম কুমার জোয়াদ্দার, রেজাউল ইসলাম, অধ্যক্ষ ওসমান গনি ও এড. জহুরুল হায়দার বাবু। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন ৯জন। তারা হলেন মহসীন-মুলক, শাহ জালাল, কামরুজ্জামান, অসীম কুমার মৃধা, আব্দুস সাত্তার, ফারুক হোসেন, সাইদুজ্জামান সাইদ, মাওলানা ইসমাইল হোসেনসহ ৯জন। ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে খালেদা আইয়ুব ডলি, নূরজাহান পারভীন ঝর্ণা, পাপিয়া হক ও নাফিজা খাতুন। সব মিলিয়ে এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়মী লীগের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ। জেলার শ্যামনগর ছাড়া অন্য কোথাও বিরোধী দলের কোন প্রার্থীর নাম শোনা যায়নি। জেলাব্যাপী নির্বাচনী উৎসবে মূখর হয়ে উঠেছে।