নিখোঁজ মৎস্য ব্যবসায়ী হাসান আলীর সন্ধান চেয়ে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: নিখোঁজ মৎস্য ব্যবসায়ী হাসান আলীর সন্ধান এবং বহু বিবাহের নায়িকা দ্বিতীয় স্ত্রী জোছনাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বড় ভাই সংবাদ সম্মেলন করেছেন।
বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন শহরের উত্তরকাটিয়া এলাকার মৃত দ্বীন আলীর ছেলে ও নিখোঁজ হাসান আলীর বড় ভাই মো. মঞ্জুর হোসেন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার ছোট ভাই হাসান আমার সাথে দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সাথে বিনেরপোতা মৎস্য আড়তে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল। সম্প্রতি গত ২৩-১২-১৮ তারিখে বিভিন্ন আড়তদারের পাওনা টাকা পরিশোধের জন্য দুই লাখ টাকা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়। তাকে সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজ খবর নিয়ে কোথাও তার সন্ধান না পেয়ে গত ২৬-১২-১৮ তারিখে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করি। যার ডায়েরী নং-১৩৭০। এদিকে, ছোট ভাই হাসানের কোন সন্ধান না পেয়ে মাতাসহ তার স্ত্রী সাবিনা এবং পরিবারের সকল সদস্য হতাশার মধ্যে দিন কাটাতে থাকি। এরই মধ্যে গত ২৫ ফেব্রয়ারি-২০১৯ তারিখে সাতক্ষীরা বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার মাধ্যমে জানতে পারি রসুলপুর (বকচরা রোড মেহেদিবাগ) গ্রামের বাবর আলী গাজীর কন্যা বহু বিবাহের নায়িকা জোছনা নিজেকে আমার ছোট ভাই হাসানের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করে একটি সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সেখানে তিনি উল্লেখ করেছেন গত ১১ দিন আগে নাকি তার স্বামী হাসান আলী তার বাড়ি থেকে ২ লাখ টাকা নিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন এবং তাদের নাকি চার বছর পূর্বে বিবাহ হয়েছে। অথচ সেটি আমাদের সম্পূর্ণ অজানা। তিনি আরো বলেন, আমার ভাই নিখোঁজ হয় বিগত দুই মাস পূর্বে। অথচ সে দাবি করে মাত্র ১১ দিন আগে আমার ভাই নিখোঁজ হয়েছে। তাই আমরা ধারণা করছি অর্থলোভী বহু বিবাহের নায়িকা জোছনার খপ্পরে পড়ে আমার ভাই ওই দুই লাখ টাকাসহ তার হাত ধরে তার বাড়িতে এতদিন ছিলো। প্রতারক জোছনা কৌশলে পরে তার কাছ থেকে ওই দুই লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাকে হত্যা করে গুম করেছে বলে আমরা ধারণা করছি। পরে তিনি নিজের অপরাধ ধামাচাপা দিতে একটি কাল্পনিক গল্প সাজিয়ে একটি সংবাদ সম্মেলনও করেছেন। সেখানে তিনি মিথ্যাচার করে এর দায়ভার আমার সেজো ভাই রহমত আলী ও আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী সাবিনার উপর চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এমতাবস্থায় তিনি (রহমত আলী) অবিলম্বে জোছনাকে গ্রেপ্তারপূর্বক তার ভাইয়ের সন্ধান পেতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট সকলের হস্তক্ষেপ কামরা করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে এ সময় তার সাথে আরো উপস্থিত ছিলেন, নিখোঁজ হাসান আলীর সেজো ভাই রহমত আলী, মা সায়মান বিবি, স্ত্রী সাবিনা খাতুনসহ পবিারের অন্যান্য সদস্যরা।