খোলা কলাম জেলায় প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করেই ফিলিং স্টেশনগুলো তেল দিচ্ছে গ্রাহকদের


প্রকাশিত : মার্চ ১২, ২০১৯ ||

মো. জাবের হোসেন
ঘড় ঐবষসবঃ, ঘড় ঋঁবষ যার বাংলা অর্থ হেলমেট নেই তো, তেল নেই। এই স্লোগানকে সামনে রেখে গত বছরের শেষের দিকে জেলায় ফিলিং স্টেশন গুলোকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়। অতিরিক্ত দুর্ঘটনা এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এমন অভিনব পদ্ধতি বের করেন।
মূলত যারা ড্রাইভ করেন তারা যদি মাথায় হেলমেট পরে ড্রাইভ করেন তাহলে দুর্ঘটনা কিছুটা কমানো সম্ভব। কিন্তু জেলা প্রশাসনের সেই আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে জেলার প্রায় অধিকাংশ পাম্পগুলো নিয়ম-নীতি তোয়াক্কা না করেই দেদারছে হেলমেট ছাড়াই তেল দিচ্ছে।
সরেজমিনে দীর্ঘ অনুসন্ধানে দেখা যায় জেলার নিউমার্কেটস্থ মেসার্স মোজাহার ফিলিং স্টেশন, মেসার্স এ বি খান, শহরের কপোতাক্ষ ফিলিং স্টেশন, বিনেরপোতার কামরান ফিলিং স্টেশন,পাটকেলঘাটার লস্কর ফিলিং স্টেশন,মজুমদার ফিলিং স্টেশন,বুধহাটার মেসার্স রহমান ফিলিং স্টেশর, মহেশ্বর কাটির আন্না ফিলিং স্টেশনসহ জেলার প্রায় সব কয়টি পেট্রোল পাম্পগুলো হেলমেট ছাড়া তেল দিচ্ছে।
এমনটাও দেখা গেছে একজন তেল নিতে গেছে তার মাথায় হেলমেট নেই, পাশে অন্য জনের মাথায় আছে সেটি খুলে নিজের মাথায় দিয়ে তারপর তেল নিচ্ছে। প্রশাসনের এমন কড়া নির্দেশনা কেনো মানছেনা তেল পাম্পগুলো সেটি সাধারণ সচেতন নাগরিকের অভিযোগ।
হেলমেট ছাড়াও কেনো তেল দেয়া হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে অনেক পেট্রোল পাম্প কর্তৃপক্ষ বলেন, অদিকাংশই হেলমেট ছাড়া তেল নিতে আছে। আর আমরা যদি না দেয় তাহলে আমাদের ব্যবসায় ক্ষতি হয়ে যাবে। সারাদিনে তেমন তেল বিক্রি করতে পারবোনা। এজন্য বাধ্য হয়ে আমাদেরকে তেল দিতে হয়।
তবে এটি একেবারেই আইনের বিরুদ্ধে। তাই অনতিবিলম্বে যাতে প্রশাসনের নির্দেশ মান্য করে হেলমেট ব্যতিরিক্ত পেট্রোল পাম্পগুলো তেল না দেয় তার বিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন বলে সচেতন নাগরিকরা মনে করেন।