সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন আজ সভাপতি-সম্পাদক পদে লড়াই হবে হাড্ডা-হাড্ডি


প্রকাশিত : মার্চ ২১, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: জেলা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক নির্বাচন আজ। নির্বাচনে ৪৮৯জন ভোটার আইনজীবী সরাসরি ভোটের মাধ্যমে আগামী এক বছরের জন্য কার্যনির্বাহী কমিটির নেতা নির্বাচন করবেন। বিগত কয়েকদিন যাবৎ ভোট নিয়ে আদালত পাড়ায় সাধারণ আইনজীবীদের মধ্যে বেশ আগ্রহ দেখা যায়। নানা নাটকীয়তার মধ্যেও নিজের ভোট নিজে দিতে পারবেন এমন আশায় বারের ভোট শেষ পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ হয়ে ওঠে। এবারের ভোটে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদে হেভিওয়েট সব প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় এ দুইটি পদে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই হবে বলে ধারণা করছেন ভোটার আইনজীবীরা।
জানা যায়, ১৮৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতি তার গঠনতন্ত্র অনুযায়ী একটি অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। তবে অন্যান্য বছরের নির্বাচনে আ’লীগ বা বিএনপি অঘোষিত ভাবে বিভিন্ন পদে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দিলেও এবারের নির্বাচনে সেটা লক্ষ্য করা যায়নি। এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন, বারের সাবেক সভাপতি ও এক সময়ের ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা এম শাহ আলম ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং বিএপি নেতা শেখ আব্দুস সাত্তার (১)। অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপি নেতা মো. তোজাম্মেল হোসেন তোজাম এবং বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামীলীগ নেতা আ ক ম রেজওয়ান উল্লাহ সবুজ। সহ-সভাপতির ১টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ৩ জন প্রার্থী। এরা হলেন- এক সময়ের জামায়াত নেতা ও বারের সাবেক সহ-সভাপতি এটিএম বাসারাতুল্লাহ আওরঙ্গী, বিএনপি নেতা ও সাবেক সহ-সভাপতি মো. মহিতুল ইসলাম এবং আওয়ামী লীগ নেতা ও এপিপি মো. রুহুল আমিন। যুগ্ম-সম্পাদকের ১টি পদেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, ৩জন প্রার্থী। এরা হলেন-বিএনপি সমর্থক এবিএম আনিসুজ্জামান (আনিস), আ’লীগ সমর্থক মো. আশরাফুজ্জামান (বাবু) এবং আ’লীগ সমর্থক ও এপিপি শেখ মুস্তাফিজুর রহমান (শাহনেওয়াজ)। কোষাধ্যক্ষ পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন, বিএনপি সমর্থক ও সাবেক কোষাধ্যক্ষ মো. মোস্তফা জামান ও বিএনপি সমর্থক মো. রফিকুল ইসলাম। সহ-সম্পাদক (লাইব্রেরী) পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, জামায়াত সমর্থক মো. ইউনুস আলী ও আ ক ম শামসুদ্দোহা খোকন এবং বিএনপি সমর্থক মো. আব্দুল জলিল। সহ-সম্পাদক (ক্রীড়া) পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন, বিএনপি সমর্থক মো. আকবর আলী ও মো. সালাউদ্দীন (২)। সহ-সম্পাদিকা (মহিলা) পদে অন্য কোন প্রর্থী মনোনয়নপত্র জমা না দেয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হয়েছেন লাকী ইয়াছমিন। এছাড়া সদস্যের ৩টি পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৪ জন প্রার্থী, এরা হলেন-আ’লীগ সমর্থক মো. রফিকুল ইসলাম (রফিক), বিএনপি সমর্থক মো. শিহাব মাসউদ (সাচ্চু), আ’লীগ সমর্থক মো. সাইদুজ্জামান (জিকো) ও এপিপি মো. সাহেদুজ্জামান (সাহেদ)।
এবারের নির্বাচন কমিশনার হিসাবে যারা দায়িত্ব পালন করছেন, তাঁরা হলেন- প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. আব্দুল জলিল (১) এবং অন্যান্য নির্বাচন কমিশনাররা হলেন-আক্তারুজ্জামান, মো. আনিছুর কাদির ময়না, তারক কুমার মিত্র ও শাকিলা খানম।
উল্লেখ্য, সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির ভোটার আইনজীবীরা জানান, আইনজীবীদের পেশাগত মানোন্নয়ন, বারের তহবিল সুরক্ষা, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট আদালতে যাতায়াতের পথ সৃষ্টি, পুরাতন বার নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার সমাধানসহ আদালতে আসা বিচারপ্রার্থী মানুষের হয়রানি ও দুর্নীতি বন্ধে যারা কাজ করতে পারবেন তাদেরকে ভোট দিয়ে নেতা নির্বাচন করবেন। তবে আজকের নির্বাচনে সভাপতি ও সম্পাদক পদে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই হবে বলেও জানিয়েছেন অনেক ভোটার আইনজীবী।