দখল হয়ে গেল সাতক্ষীরা বাস মিনিবাস মালিক সমিতি


প্রকাশিত : এপ্রিল ৭, ২০১৯ ||

পত্রদূত ডেস্ক: সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত লংঘন করে এবার দখল হয়ে গেল সাতক্ষীরা জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতি। শনিবার সাধারণ সভার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই এই সমিতি দখলে নিয়েছেন সাবেক সভাপতি সাইফুল করিম সাবু ও সাবেক সেক্রেটারি গোলাম মোরশেদ। এরই মধ্যে মালিক সমিতির আহবায়ক সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ ও তার সহযোগীদের শহরের বাস টার্মিনালে মালিক সমিতির কার্যালয় থেকে কৌশলে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের অফিস নিয়ন্ত্রণে নিয়েছেন ‘সাবু-মোরশেদ সমিতি’।
এ প্রসঙ্গে মালিক সমিতির সদস্য সচিব পরিচয় দিয়ে সাবেক সেক্রেটারি গোলাম মোরশেদ জানান ‘শনিবার রাতে সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি ১৬ সদস্যের এই আহবায়ক কমিটি গঠন করে দিয়েছেন। আগামি ৯০ দিনের জন্য গঠিত এই কমিটি সাধারণ নির্বাচনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করবে’। সংসদ সদস্য বাস মিনিবাস মালিক সমিতির কোনো পদে রয়েছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন ‘বেশির ভাগ মালিকের আবেদন অনুযায়ী তিনি এই কমিটি গঠন করেছেন’।
এদিকে জানতে চাইলে চলমান কমিটির আহবায়ক অধ্যক্ষ আবু আহমেদ বলেন তার নেতৃত্বাধীন কমিটির কার্যকাল শেষ হতে যাওয়ায় শনিবার শহরতলির লেক ভিউতে এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নিয়ে সাইফুল করিম সাবু ও গোলাম মোরশেদের উপস্থিতিতে সাধারণ সদস্যরা সিদ্ধান্ত দেন আগামি ৪ মে সাধারণ নির্বাচনের। সভা শেষে তা ঘোষণা করা হয়। সাতক্ষীরার পত্র পত্রিকায় রোববার তা প্রকাশিত হয়। তিনি বলেন এই সিদ্ধান্তের তোয়াক্কা না করে অগঠনতান্ত্রিকভাবে গঠিত সাবু-মোরশেদ কমিটির কোনো বৈধতা নেই। তিনি এই কমিটি গঠনের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সদস্যরা এতে ক্ষুব্ধ ও বিস্মিত। তারা এই ঘরগড়া কমিটি প্রত্যাখ্যান করেছেন।
অধ্যক্ষ আবু আহমেদ আরও জানান ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে তাকে সভাপতি ও গোলাম মোরশেদকে সেক্রেটারি করে তিন বছরের জন্য কমিটি গঠিত হয়। এরই মধ্যে সে কমিটির মেয়াদকাল পূর্ণ হওয়ায় তাকে আহবায়ক করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি মালিক সমিতির পরিচালনা করে আসছিলেন। শনিবার সাধারণ সভায় এই পাঁচ সদস্যসহ উপস্থিত সকলের মতামতের ভিত্তিতে আগামি ৪ মে সাধারণ নির্বাচনের দিন ঘোষণা করা হয়। অথচ এই সিদ্ধান্ত লংঘন করে সংসদ সদস্য এমপি মীর মোস্তাক আহমেদ রবি যে কমিটি গঠন করেছেন তার কোনো বৈধতা নেই। তিনি অবিলম্বে তার নেতৃত্বাধীন আহবায়ক কমিটির মালিক সমিতিকে যথাস্থানে থাকার সুযোগ দিয়ে সাধারণ নির্বাচনে সহায়তার আহবান জানান।