পরকীয়ার কারণে বেনাপোলে স্ত্রীর দায়ের কোপে বিদেশ থেকে আসা স্বামীর মৃত্যু


প্রকাশিত : মে ১৬, ২০১৯ ||

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি: বেনাপোল ধান্যখোলা গ্রামে স্ত্রীর দায়ের কোপে বিদেশ থেকে আসা স্বামীর মৃত্যু হয়েছে। হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। পরকীয়ার কারণে হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে জানান স্থানীয়রা।
পুলিশ ও পবিবার সুত্রে জানায়, দীর্ঘ ১৫বছর আগে ধান্যখোলা গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে জামাল হোসেনের বিবাহ হয় একই গ্রামের টুকি আলীর মেয়ে আয়শা খাতুনের সাথে। এক পর্যায়ে পরিবারের সুখের আশায় বিদেশে পাড়ী জমায় জামাল। ২বছর আগে জামাল বিদেশ থেকে বাড়িতে আসলে এর আগেও একবার স্বামীকে ইলিক্ট্রিকের তারে জড়িয়ে হত্যা চেষ্টাচালায় স্ত্রী আয়শা। এদিন রাতে হঠাৎ করে বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি। মঙ্গলবার দুপুরে মালেশিয়া থেকে বাড়িতে বেড়াতে আসে জামাল। রাতে নিজ বাসা থেকে স্ত্রীর ডাকে শ্বশুরবাড়ি বাসায় যায় জামাল। বুধবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ।
বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি আবু সালেহ মোহাম্মদ মাসুদ করিম জানান, লাশ উদ্ধার করে পোষ্টমর্টেমের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। তার শরীরে ৩টি দায়ের কোপের চিহ্ন রয়েছে। তবে কেহ এ পর্যন্ত এজাহার দেয়নি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্ত্রী আয়শা,শ্বশুর টুকি আলী ও শাশুড়ী ফুলঝুরিকে আটক করা হয়েছে। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে চেষ্টা চালাচ্ছেন তারা।
প্রতিবেশী ও স্থানীয়রা জানান আয়শার সাথে কথিত যুবকের দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া চলে আসছিল। পরকীয়ার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করেন তারা। ঘটনার দিন রাতে তাকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। দায়ের কোপে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তার চিৎকারে প্রতিবেশিরা ঘটনাটি জানতে পেরে থানা পুলিশকে কবর দেয়। পুলিশ হত্যার আলামত জব্দ করেছে। হত্যার ঘটনার সাথে জড়িতদের ফাঁসি দাবি জানান স্বজনেরা।