সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে হামলা চালিয়ে ১০জন সাংবাদিককে পিটিয়ে জখম করার প্রতিবাদে ও ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আয়োজনে প্রেসক্লাবের সামনে আশাশুনি সাতক্ষীরা সড়কে এ কর্মসূচি পালিত হয়। এর আগে জেলার সাত উপজেলা থেকে সংবাদকর্মীরা এসে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করেন। সংহতি প্রকাশ করে প্রখর রোদে দাঁড়িয়ে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান, তালা প্রেসক্লাব, কলারোয়া প্রেসক্লাব, আশাশুনি প্রেসক্লাব, দেবহাটা প্রেসক্লাব, কালিগঞ্জ প্রেসক্লাব, শ্যামনগর প্রেসক্লাব, তালা রিপোর্টার্স ক্লাব, কলারোয়া রিপোর্টার্স ক্লাব, আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাব, দেবহাটা রিপোর্টার্স ক্লাব, কালিগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাব, শ্যামনগর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংবাদিকরা। এছাড়া কয়েকটি রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করেন। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধনে বক্তারা সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে অতর্কিত পরিকল্পিত হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দোষীদের গ্রেপ্তারপূর্বক বিচারের আওতায় আনার জোর দাবি জানান। একই সাথে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান। বক্তারা এ সময় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব নিয়ে ষড়যন্ত্র না করার জন্য বিশেষমহলকে আহ্বান জানিয়ে বলেন, ষড়যন্ত্র করলে তার পরিণতি শুভ হবে না।
মানববন্ধন কর্মসুচি চলাকালে বক্তব্য দেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক আনিছুর রহিম, সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহী, সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহম্মেদ বাপ্পি, সাংবাদিক এম কামরুজ্জামান, দৈনিক দৃষ্টিপাত সম্পাদক জিএম নূর ইসলাম, সাংবাদিক মোশাররফ হোসেন, সাংবাদিক ইয়ারব হোসেন, সাংবাদিক আবুল কাশেম, আহসানুর রহমান রাজীব, সাংবাদিক হাফিজুর রহমান মাসুম, পত্রদূত সম্পাদক লায়লা পারভিন সেঁজুতি, কালের কণ্ঠর মোশাররফ হোসেন, দৈনিক সাতনদী সম্পাদক হাবিবুর রহমান (মোবাইল ফোনে), কলারোয়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি পলাশ চৌধুরী, কালিগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি নিয়াজ কওছার তুহিন, শ্যামনগর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সামিউল আযম মনির, আশাশুনি প্রেক্লাবের সভাপতি আহসান হাবিব, সদস্য ভুবন ম-ল, সুন্দরবন প্রেসক্লাবের সভাপতি পিন্টু বাউলিয়া, তালা প্রেসক্লাবের সদস্য আব্দুর জব্বার প্রমুখ।
পরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের স. ম আলাউদ্দীন মিলনায়তনে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে শনিবার বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠণের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মত বিনিময় সভা ও জেলার সাতটি উপজেলায় শনিবার ও রোববার মানববন্ধন কর্মসুচি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রেসক্লাবের স. ম আলাউদ্দিন মিলনায়তনে প্রেসক্লাবের সহসভাপতি অধ্যক্ষ আশেক ইা এলাহীর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রসঙ্গত: বৃহস্পতিবার সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে ঢুকে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের উপর সশস্ত্র হামলা চালায়। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে ঘণ্টাব্যাপি হামলায় প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ১০জন আহত হন। ঘটনার খবর পেয়ে সাংসদ ডা. আ. ফ. ম রুহুল হক, সাংসদ এড. মুস্তাফা লুৎফুল¬াহ ও সাংসদ এসএম জগলুল হায়দার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আহত সাংবাদিকদের প্রতি সববেদনা জানান।


এদিকে হামলার ঘটনায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহম্মেদ বাপ্পি বাদি হয়ে ২৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১৫০ জনের নামে শুক্রবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামীরা হলেন- পলাশপোলের জাকির হোসেন মিঠু, চায়না বাংলার মালিক একেএম আনিসুর রহমান, শাল্যের এসএম রেজাউল ইসলাম, পলাশপোলের চটা কামরুল, ব্রহ্মরাজপুরের মনিরুজ্জামান তুহিন, নলকূড়ার খন্দকার আনিসুর রহমান, পুরাতন সাতক্ষীরার অমিত ঘোষ, মুনজিতপুরের আকাশ ইসলাম, মুহুরী মনিরুজ্জামান মনি, কাশেমপুরের শহিদুল ইসলাম, মুহুরী হাফিজুর রহমান, শ্রীউলার হাফিজুর রহমান পলাশ, বুলারাটির শেখ আমিনুর রশীদ সুজন, মেহেদীবাগের আক্তারুজ্জামান ওরফে আক্তারুল, মুনজিতপুরের শেখ আব্দুল হাকিম, পলাশপোলের শাহ আলম, সরকার পাড়ার তাজমিনুর রহমান টুটুল, মুনজিতপুরের জাদু ও দীপ, ভবানীপুরের আক্তারুল ইসলাম।

সম্মিলিত সাংবাদিক এসোসিয়েশনের নিন্দা ও প্রতিবাদ

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে বৃহস্পতিবার দুপুরে হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সম্মিলিত সাংবাদিক এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ। শুক্রবার সংগঠনের সভাপতি মীর মোস্তফা আলী ও সাধারণ সম্পাদক এম বেলাল হোসাইন স্বাক্ষরিত একপত্রে উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

আসাদুজ্জামান বাবু’র সুস্থ্যতা কামনা

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু পক্স রোগে আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন যাবৎ অসুস্থ রয়েছেন। তার আশু রোগ মুক্তি কামনা করেছেন সাতক্ষীরা মর্নিং সান প্রি-ক্যাডেট স্কুলের অধ্যক্ষ শেখ আমিনুর রহমান কাজলসহ স্কুলের সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাবের নিন্দা

কুল্যা (আশাশুনি) প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে বৃহস্পতিবার দুপুরে লাঠিসোটা, হকিস্টিক, লোহার রডসহ ঘন্টাব্যাপী শতাধিক সন্ত্রাসীর হামলায় প্রেসক্লাব সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদসহ সিনিয়র ১০ সাংবাদিক আহত হওয়ার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী ও এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাব নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন, আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সিনিয়র সহ-সভাপতি আইয়ূব হোসেন রানা, সহ-সভাপতি সুব্রত দাশ, শেখ বাদশা, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক আবু ছালেক, সাংগঠনিক সম্পাদক এমএম নুর আলম, অর্থ সম্পাদক মইনুল ইসলাম, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আলমিন হোসেন, প্রচার সম্পাদক বাপন মিত্র, নির্বাহী সদস্য প্রভাষক শেখ হেদায়েতুল ইসলাম, সদস্য উত্তম কুমার দাশ, তপন বিশ্বাস, সত্যরঞ্জন সরকার, জিএম আজিজুল ইসলাম, রাবিদ মাহমুদ চঞ্চল, মাসুম বাবুল, আসাদুজ্জামান মুকুল, আবুল হাসান, বিএম আলাউদ্দীন, এসএম শাহিন আলম ও তারিকুল ইসলাম।

ইটাগাছায় ব্যবসায়ীকে মারপিট করে লুটপাটের অভিযোগ

পত্রদূত রিপোর্ট: পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শহরের ইটাগাছায় ব্যবসায়ীকে মারপিট করে দোকান ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কামালনগর ডিপ এলাকার মৃত মেহের আলীর ছেলে ব্যবসায়ী আব্দুল গনি সরদার এ ঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে জানাগেছে, কামালনগর উত্তরপাড়া এলাকার তমেজ উদ্দীন সরদারের ছেলে মুজিবর রহমান (৪৫), ইসমাইল হোসেনের ছেলে ইয়াছিন (২৫), রেজাউল ইসলামের ছেলে আসাদুল ইসলাম (২৬)সহ ৪/৫ জন তাকে মারপিট করে নগদ ৬৪ হাজার ৩৫০টাকা লুট করে। এরআগে মুজিবর রহমান ৩০ মে রাত ১১টার দিকে মোবাইল ফোনে ব্যবসায়ী আব্দুল গনিকে দোকান খুলতে নিষেধ করে হুমকি দেয়। এরপর দোকান খুললে হামলা চালিয়ে দোকানের জিনিসপত্র ভাংচুর করে লক্ষাধিক টাকার সম্পদ নষ্ট করে। এসময় হামলাকারীরা ব্যবসায়ী আব্দুল গনি সরদারকে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা চালায়। তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

৩০ মে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিক্রিয়ায় বাংলাদেশ জাসদ

ক্ষমতাকে দায়িত্ব মনে করুন, কর্তৃত্ব নয়। ২০১৯ সালের নির্বাচনের পরে দেখা যাচ্ছে কেউ কেউ স্থানীয় সংসদ সদস্যদের নাম ভাঙিয়ে আবার কেউ কেউ প্রশাসনের নাম ভাঙিয়ে দখলবাজ, চাঁদাবাজ, ধাপ্পাবাজীতে নিয়োজিত হচ্ছেন। সাচ্চা গণতান্ত্রিক পরিবেশ মানেই কাজের জবাবদিহিতা এবং পরমত সহিষ্ণুতা। সাতক্ষীরা জেলাতে ইদানিং তার বড়ই অভাব দেখা যাচ্ছে। দেখা যাচ্ছে কেউ কেউ জমিদার আমল মনে করছেন, আবার কেউ কেউ সেনা শাসনের আমল মনে করছেন। মোটেই না, বাংলাদেশ জাসদ সাতক্ষীরা জেলা শাখা চায় গণতান্ত্রিক পরিবেশ, বাস মালিক সমিতি দখল, প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলা, গরীব ইজিবাইক চালক, ব্যাটারী চালকদেরকে হুমকি ধামকি-এগুলো ভালো লক্ষণ নয়। হাসপাতালের ঔষধ থাকে মাটির নিচে, হাসপাতালের যন্ত্রপাতি চুরি হয়, এমপি, জনপ্রতিনিধিরা নিশ্চুপ। এ তামাশা বন্ধ হোক। মুক্তিযোদ্ধা সংসদে তালা লাগানো, সাংবাদিকবৃন্দের মাঝে গ্রুপবাজি, সাতক্ষীরাবাসীর জন্য শুভ লক্ষণ নয়। যার যার দায়িত্ব সম্পর্কে সজাগ হোন, তাহলে আমরা গণতন্ত্রের সুবাতাস ফিরে পাব। পরিশেষে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজী এবং দুর্নীতিবাজদের গ্রেপ্তার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা চাই। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সাতক্ষীরা টিচার্স ক্লাবের কমিটি গঠন সিরাজ সভাপতি, শামসুল হক সম্পাদক

সাতক্ষীরা টিচার্স ক্লাবের কমিটি গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক সংলগ্ন একটি রেস্তরাঁয় এ কমিটি গঠন করা হয়। উপাধ্যক্ষ শাহজান সিরাজকে সভাপতি সহকারী শিক্ষক বিএম শামসুল হককে সাধারণ সম্পাদক ও প্রভাষক মামুনুর রহমানকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

আওয়ামী তথ্য প্রযুক্তি লীগের ইফতার মাহফিল

পত্রদূত রিপোর্ট: দেশের সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে আওয়ামী তথ্য প্রযুক্তি লীগের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ২৫ রমজান, সংগঠনের সাতক্ষীরা পৌর শাখার উদ্যোগে এ আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি লায়লা পারভীন সেঁজুতি, মৌচাক সাহিত্য পরিষদের সভাপতি আব্দুর রশিদ (সুমন), তথ্য প্রযুক্তি লীগ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা রায়হান সিদ্দিকী, সহ-সভাপতি আরিফুল হক চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক সদরুল কাদির (শাওন), যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক মুজাহিদুল আলম, আইন বিষয়ক উপদেষ্টা শামীমা পারভীন (বেনু), মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রেশমা আক্তার রিনা, প্রচার সম্পাদক ইনজামুল হক টুটুল, পৌর শাখার সভাপতি সজিবুল হক স্বজল, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক আলাল হোসেন, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, সদস্য আইয়ুব হোসেন, আলিফ খান, তপন, নাজমুল, সাদিল, মুহিন ও প্রান্ত প্রমূখ।
ইফতার মাহফিলে স্বাগত বক্তব্যে লায়লা পারভীন সেঁজুতি।
বক্তারা ৩০ মে বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান। বক্তারা বলেন, ঘটনায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা হবে।
প্রধান অতিথি মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য প্রযুক্তি লীগকে জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়নের সৈনিক হিসেবে কাজ করতে হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বাস্তব। দেশ এখন উন্নত রাষ্ট্রের মহাসড়কে। সুতরাং সরকারের সকল উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সকলকে মিলেমিশে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

আবু আহমেদের শয্যা পাশে জেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক

পত্রদূত ডেস্ক: বৃহস্পতিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলায় আহত জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ ও মোহনা টিভির সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি আব্দুল জলিলকে দেখতে যান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে তাদের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবু সাইদ, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদিকা ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সদস্য সচিব লায়লা পারভিন সেজুঁতি।

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় দেবহাটা প্রেসক্লাবের নিন্দা

দেবহাটা সংবাদদাতা: সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার সম্পাদক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক, মুক্তিযোদ্ধা ও সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কয়েকবারের সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাবেক সভাপতি চ্যানেল আইয়ের জেলা প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার কল্যাণ ব্যানার্জি, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সময় টিভির জেলা প্রতিনিধি মমতাজ আহমেদ বাপী, মোহনা টিভির জেলা প্রতিনিধি আব্দুুল জলিল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুলল বারীসহ ১০জন সিনিয়র সাংবাদিককে আহতের ঘটনায় দেবহাটা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিদাতারা হলেন প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুর রব লিটু, সহ-সভাপতি আকতার হোসেন ডাবলু, আবু হুরাইরা, যুগ্ম-সম্পাদক নির্মল কুমার মন্ডল, কোষাধ্যক্ষ কেএম রেজাউল করিম, ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আরাফাত হোসেন লিটন, দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক আরিফ, কার্যনির্বাহী সদস্য আব্দুল আলিম মিঠু, সাইফুল ইসলাম, এমএ মামুন, হাফেজ জিএম আব্বাস উদ্দীন, মোসলেম আলী, মোমিনুর রহমান, আব্দুস সালাম, নাসিরউদ্দীন সজীব, রুহুল আমিন, ইয়াকুব হোসেন রাজু, আব্দুস সামাদ, আসাদুজ্জামান সুমন, আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে হামলার ঘটনায় দেবহাটা আওয়ামী লীগের নিন্দা

দেবহাটা ব্যুরো: সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা ও সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাতবারের সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাবেক সভাপতি চ্যানেল আইয়ের জেলা প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার কল্যাণ ব্যানার্জি, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সময় টিভির জেলা প্রতিনিধি মমতাজ আহমেদ বাপী, মোহনা টিভির জেলা প্রতিনিধি আবদুল জলিল, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল বারীসহ ১০ জন সিনিয়র সাংবাদিককে আহতের ঘটনায় দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে উদ্বেগসহ তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে। শুক্রবার দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবর রহমান এক বিবৃতিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে নেক্কারজনক এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।