সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ


প্রকাশিত : জুন ১, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে হামলা চালিয়ে ১০জন সাংবাদিককে পিটিয়ে জখম করার প্রতিবাদে ও ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আয়োজনে প্রেসক্লাবের সামনে আশাশুনি সাতক্ষীরা সড়কে এ কর্মসূচি পালিত হয়। এর আগে জেলার সাত উপজেলা থেকে সংবাদকর্মীরা এসে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করেন। সংহতি প্রকাশ করে প্রখর রোদে দাঁড়িয়ে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান, তালা প্রেসক্লাব, কলারোয়া প্রেসক্লাব, আশাশুনি প্রেসক্লাব, দেবহাটা প্রেসক্লাব, কালিগঞ্জ প্রেসক্লাব, শ্যামনগর প্রেসক্লাব, তালা রিপোর্টার্স ক্লাব, কলারোয়া রিপোর্টার্স ক্লাব, আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাব, দেবহাটা রিপোর্টার্স ক্লাব, কালিগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাব, শ্যামনগর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংবাদিকরা। এছাড়া কয়েকটি রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করেন। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধনে বক্তারা সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে অতর্কিত পরিকল্পিত হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দোষীদের গ্রেপ্তারপূর্বক বিচারের আওতায় আনার জোর দাবি জানান। একই সাথে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান। বক্তারা এ সময় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব নিয়ে ষড়যন্ত্র না করার জন্য বিশেষমহলকে আহ্বান জানিয়ে বলেন, ষড়যন্ত্র করলে তার পরিণতি শুভ হবে না।
মানববন্ধন কর্মসুচি চলাকালে বক্তব্য দেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক আনিছুর রহিম, সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহী, সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহম্মেদ বাপ্পি, সাংবাদিক এম কামরুজ্জামান, দৈনিক দৃষ্টিপাত সম্পাদক জিএম নূর ইসলাম, সাংবাদিক মোশাররফ হোসেন, সাংবাদিক ইয়ারব হোসেন, সাংবাদিক আবুল কাশেম, আহসানুর রহমান রাজীব, সাংবাদিক হাফিজুর রহমান মাসুম, পত্রদূত সম্পাদক লায়লা পারভিন সেঁজুতি, কালের কণ্ঠর মোশাররফ হোসেন, দৈনিক সাতনদী সম্পাদক হাবিবুর রহমান (মোবাইল ফোনে), কলারোয়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি পলাশ চৌধুরী, কালিগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি নিয়াজ কওছার তুহিন, শ্যামনগর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সামিউল আযম মনির, আশাশুনি প্রেক্লাবের সভাপতি আহসান হাবিব, সদস্য ভুবন ম-ল, সুন্দরবন প্রেসক্লাবের সভাপতি পিন্টু বাউলিয়া, তালা প্রেসক্লাবের সদস্য আব্দুর জব্বার প্রমুখ।
পরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের স. ম আলাউদ্দীন মিলনায়তনে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে শনিবার বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠণের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মত বিনিময় সভা ও জেলার সাতটি উপজেলায় শনিবার ও রোববার মানববন্ধন কর্মসুচি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রেসক্লাবের স. ম আলাউদ্দিন মিলনায়তনে প্রেসক্লাবের সহসভাপতি অধ্যক্ষ আশেক ইা এলাহীর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রসঙ্গত: বৃহস্পতিবার সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে ঢুকে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের উপর সশস্ত্র হামলা চালায়। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে ঘণ্টাব্যাপি হামলায় প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ১০জন আহত হন। ঘটনার খবর পেয়ে সাংসদ ডা. আ. ফ. ম রুহুল হক, সাংসদ এড. মুস্তাফা লুৎফুল¬াহ ও সাংসদ এসএম জগলুল হায়দার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আহত সাংবাদিকদের প্রতি সববেদনা জানান।


এদিকে হামলার ঘটনায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহম্মেদ বাপ্পি বাদি হয়ে ২৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১৫০ জনের নামে শুক্রবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামীরা হলেন- পলাশপোলের জাকির হোসেন মিঠু, চায়না বাংলার মালিক একেএম আনিসুর রহমান, শাল্যের এসএম রেজাউল ইসলাম, পলাশপোলের চটা কামরুল, ব্রহ্মরাজপুরের মনিরুজ্জামান তুহিন, নলকূড়ার খন্দকার আনিসুর রহমান, পুরাতন সাতক্ষীরার অমিত ঘোষ, মুনজিতপুরের আকাশ ইসলাম, মুহুরী মনিরুজ্জামান মনি, কাশেমপুরের শহিদুল ইসলাম, মুহুরী হাফিজুর রহমান, শ্রীউলার হাফিজুর রহমান পলাশ, বুলারাটির শেখ আমিনুর রশীদ সুজন, মেহেদীবাগের আক্তারুজ্জামান ওরফে আক্তারুল, মুনজিতপুরের শেখ আব্দুল হাকিম, পলাশপোলের শাহ আলম, সরকার পাড়ার তাজমিনুর রহমান টুটুল, মুনজিতপুরের জাদু ও দীপ, ভবানীপুরের আক্তারুল ইসলাম।