৫ দিন ধরে নিখোঁজ ইবি ছাত্র কাশিমাড়ীর মামুন


প্রকাশিত : জুন ১৩, ২০১৯ ||

পত্রদূত ডেস্ক: কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিঁখোজ হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আল কোরআন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী ছাত্র শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ীর ঘোলা গ্রামের কৃতি সন্তান আব্দুল্লাহ আল মামুন। গত ৮ জুন শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে সর্বশেষ যশোরে অবস্থানকালে বেলা ১টার পর থেকে তার সন্ধান পাচ্ছেন না বলে পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন। তিনি একজন হাফেজ ও ইমাম। মামুনের শ্বশুর আব্দুল গাফফার বলেন, ‘গত ৮ জুন মামুন বাড়ি ফেরার পথে যশোরে থাকা অবস্থায় তার সঙ্গে সর্বশেষ যোগাযোগ হয়। এরপর থেকে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।
পরদিন রোববার সকাল ৯টার দিকে নিখোঁজ মামুনের বন্ধু হুসাইনের মুঠোফোনে অপরিচিত নং দিয়ে কল দিয়ে মামুনের শ্বশুরের মোবাইল নং চায়। এরপরে অপরিচিত কন্ঠে ০৯৬৩৮২১৪৬৫৯ নং দিয়ে মামুনের শ্বশুর আব্দুল গাফফারের মোবাইল ফোনে কল দিয়ে মামুন কে ফেরত দেওয়ার শর্তে ৪০০০০ টাকা দাবী করে। এসময় আব্দুল গাফফার তার জামাইয়ের সাথে কথা বলার অনুরোধ করলে অপহরণকারীরা তাতে রাজী না হয়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। পরদিন ১০ জুনায়েদ আব্দুল গাফফার কুষ্টিয়া ইবি থানায় হাজির হয়ে ৩২৫ নং সাধারণ ডায়েরি করেন।
এরপরে অপহরণকারীরা আব্দুল গাফফারের নিকট গত ১১জুন মংগলবার ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের রকেট নং ০১৮৭৪৪৭১৭৩৯৭ নং এ পূণরায় মুক্তিপণ দাবী করলে তিনি একই দিন রাত ১০টার দিকে ৫০০০ টাকা পাঠিয়ে দেন। এরপরদিন গত ১২ জুন বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে মামুন তার নিজ ব্যবহৃত মুঠোফোন নং দিয়ে তার আব্বা ও শ্বশুরের সাথে কথা বলে যে, “আমি ভাল আছি, খুব তাড়াতাড়ি তোমাদের কাছে ফিরব”। এরপর থেকে আর কোন যোগাযোগ পাওয়া যায়নি। অপহৃত মামুনকে নিয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন সহ পরিচিত-অপরিচিত জনেরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন স্ট্যাটাস দিয়ে তার সন্ধান অব্যাহত রেখেছে।