একজন দরিদ্র মানুষও যেন বিনামূল্যের আইনি সহায়তা থেকে বঞ্চিত না হয়: শেখ মফিজুর রহমান


প্রকাশিত : জুন ১৩, ২০১৯ ||

বদিউজ্জামান: সাতক্ষীরার একজন দরিদ্র অসহায় মানুষও যেন সরকারের বিনামূল্যের আইনি সহায়তা থেকে বঞ্চিত না হয়, আমাদের সকলকে সেই লক্ষ্য নিয়ে কাজ করতে হবে। এ জেলার পিছিয়ে পড়া বিচারপ্রার্থী সাধারণ মানুষ আইনগত সহায়তা পাওয়ার ক্ষেত্রে অন্য যে কোন জেলা থেকে এগিয়ে থাকবে বলে আমি বিশ্বাস করি। লিগ্যাল এইড কর্মসূচি বাস্তবায়ন করাটা একটা আন্দোলন বলে আমি মনে করি, এ আন্দোলনকে আমাদের সকলের সহযোগিতায় এগিয়ে নিতে হবে। জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা, সাতক্ষীরা জেলা কমিটির মাসিক সভায় কমিটির চেয়ারম্যান জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান এ সব কথা বলেন।
গতকাল বিকাল সাড়ে ৪ টায় জেলা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ওই সভায় কমিটির চেয়ারম্যান জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান সভাপতিত্ব করেন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তফা পাভেল রায়হান, জেলা প্রসাশকের প্রতিনিধি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদ, আইনজীবী সমিতির সভাপতি এম শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক তোজাম্মেল হোসেন তোজাম, সরকরি কৌশুলি সরকার যামিনি কান্ত, পাবলিক প্রসিকিউটার তপন কুমার দাস, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, জেলা তথ্য কর্মকর্তা, এড. রঘুনাথ মন্ডল, এড. খায়রুল বদিউজ্জামান, আনিসুজ্জামান, সাকিব, সভানেত্রী চুপড়িয়া মহিলা সংস্থা প্রমূখ। কমিটির চেয়ারম্যান জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান আরও বলেন, আমরা গরীব মানুষের স্বপ্নের ভাগিদার হতে চাই, সমাজের সুবিধা বঞ্চিত অসহায় গরিব মানুষকে যদি ন্যায় বিচার দিতে পারি, তবেই এ সমাজে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে। তিনি মিডিয়া কর্মী, জনপ্রতিনিধি, এনজিও সহ সকলকে স্ব স্ব অবস্থানে থেকে লিগ্যাল এইড সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃস্টির জন্য কাজ করার আহবান জানান।
কমিটির চেয়ারম্যান ৪৮টি দরখাস্ত জমা পড়ার বিষয় উল্লেখ করে আরও বলেন, গত মাসের তুলনায় এ মাসে ৪ গুন দরখাস্ত এসেছে বিচারপ্রার্থী সাধারণ মানুষের কাছ থেকে। তিনি বলেন, এভাবে সকলে মিলে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারলে দ্রুততম সময়ের মধ্যে সাধারণ মানুষ বিনামূল্যে আইনি সহায়তা পেতে থাকবে। সমগ্র সভা পরিচালনা করেন, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার সালমা আক্তার (সিনিয়র সহকারী জজ, সাতক্ষীরা)।