সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন ভাটপাড়ায় গোলাপীর দাপটে জমি দখল নিতে পাচ্ছেন না মাহফুজাও অন্যরা


প্রকাশিত : জুন ৩০, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আমাদের পিতা আজিজুল মোড়ল আট বছর আগে মারা যাবার বছর তিনেক আগে তার নামীয় সম্পত্তি দুই ভাই আবদুল গফুর ও আবদুস সবুরের মধ্যে মৌখিকভাবে ভাগ বাটোয়ারা করে দেন। তাদের তিন বোন জয়নুর, মাহফুজা ও বিলকিস খাতুন স্বামীর বাড়িতে থাকায় তাদের প্রাপ্য জমি দুই ভাই শান্তিপূর্নভাবে ভোগদখল করে আসছিলেন। কিন্তু কিছুদিন আগে বড় ভাই আবদুস সবুর মারা যান। এর কিছুদিন পর আবদুস সবুরের মেজ মেয়ে গুলশান আরা গোলাপী চক্রান্ত শুরু করেন। তিনি সবাইকে ভাটপাড়ার বাড়িতে মোবাইল ফোনে ডেকে নেন। তিনি বলেন তার বাবা আবদুস সবুর বেঁচে থাকাকালে দাদা আজিজুল মোড়লের কাছ থেকে জমি চেয়ে নেন। এর পর তেকে তারা দখলে রয়েছেন। তিনি বলেন আবদুল গফুরের দখলে রয়েছে তাদের অন্য সবার জমি।
শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা বলেন ভাটপাড়া গ্রামের মাহফুজা খাতুন । তিনি বলেন গুলশান আরার এই বক্তব্যের পর আমিন ডেকে মেপে দেখা যায় দুই ভাইয়ের দখলের সমান সমান জমি রয়েছে। এ নিয়ে সালিশও হয়। কিন্তু গুলশান আরা গোলাপী সালিশ না মেনে স্বাক্ষর না করে সালিশ ত্যাগ করে। তিনি বলেন আমরা পৈতৃক সম্পত্তি ফেরত পাবার চেষ্টা করি। এ নিয়ে থানায় বসাবসি হয়। মাহফুজা অভিযোগ করে বলেন, গোলাপী তার মা বোন ও ভাইকে নিয়ে নিজেদের রান্না ঘরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে এবং তাদের কাপড় চোপড় ছিঁড়ে তাদের ওপর দোষ চাপায়। তিনি আরও বলেন, জমি মাপার জন্য আমরা বারবার তাগাদা দিলেও সে তাতে রাজী নয়। আমরা জমি ফেরত চাইলে গোলাপী পুলিশের ভয় দেখায়। মিথ্যা মামলা দেয়। গোলাপী সাতক্ষীরা এজি অফিসে কর্মরত। এই ভয় দেখিয়ে সে তাদের ওপর নির্যাতন চালাচ্ছে। তার হাতে তারা বারবার নিগৃহীত হয়েছেন।
এজি অফিসের গুলশান আরা গোলাপীর ক্ষমতার দাপট, জমি দখল, জমি আত্মসাত ও মিথ্যা মামলা দেওয়ার বিষয় তদন্ত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন মাহফুজা খাতুন।